কাল থেকে ১২ নভেম্বর নাট্যাধার নাট্যপার্বণ

বৃহস্পতিবার , ৭ নভেম্বর, ২০১৯ at ১০:২৭ পূর্বাহ্ণ
5

গ্রুপ থিয়েটার নাট্যাধার কর্তৃক আয়োজিত পাঁচ দিনব্যাপী নাট্যপার্বণে পাঁচটি নাটকের প্রদর্শনী অনুষ্ঠিত হবে। জেলা শিল্পকলা একাডেমি চট্টগ্রামে এ উৎসব আগামী ৮ নভেম্বর থেকে শুরু হচ্ছে।
নাট্যপার্বণের প্রথম দিন ৮ নভেম্বর শুক্রবার সন্ধা ৭ টায় পরিবেশিত হবে নাট্যাধার প্রযোজনা ‘৩২ ধানমন্ডি এবং…’ নাটকটি। আহাম্মদ কবির রচিত নাটকটির নির্দেশনা দিয়েছেন শারমিন সুলতানা রাশা। এই নাটকে দেখা যাবে, হাজার বছরের শ্রেষ্ঠ বাঙালি শেখ মুজিবুর রহমানের রাজনৈতিক প্রেক্ষাপ্ট এবং ৭৫-এ বঙ্গবন্ধু হত্যাকান্ডের ইতিহাস। একাত্তরের নিপীড়িত, শোষিত, দিশেহারা জাতির বঙ্গবন্ধুর বজ্রকন্ঠে উজ্জীবিত ও একাত্ম হয়ে উঠা, কঠিন সংগ্রাম ও মহান ত্যাগে স্বাধীনতা অর্জনের খন্ডন চিত্র তুলে ধরার পাশাপাশি যুদ্ধ- বিদ্ধস্ত দেশের ভেঙে পড়া কাঠামোকে সচল করার প্রয়াস, বঙ্গবন্ধু হত্যার মধ্য দিয়ে অপশক্তির জাতীয় অগ্রযাত্রাকে থামিয়ে দেয়ার চক্রান্ত এবং চক্রান্তকে ব্যর্থ করে তরুণ প্রজন্মের দেশের হাল ধরার চিত্র।
উৎসবের ২য় দিন ৯ নভেম্বর শনিবার মঞ্চায়িত হবে নাট্যাধারের নাটক ‘ফুলজান’। আহাম্মদ কবির রচিত ও মোস্তফা কামাল যাত্রা নির্দেশিত এই নাটকে ফুটে উঠবে কর্নফুলী নদীর এপার ওপার মানুষের জীবন ধারা নিয়ে, শহুরে ও গ্রামীণ জীবনের নানা মাত্রিকতার রুপ, কর্নফুলী নদী আর মানুষের জীবন এ দেশে যেন একই সূত্রে গাঁথা।
উৎসবের ৩য় দিন ১০ নভেম্বর রোববার একই সময়ে আমন্ত্রিত নাট্যদল হিসেবে ‘আলোর নিরোত্তর’ নাটকটি পরিবেশন করবে ‘মঞ্চ কথা’। রবিউল আলম নির্দেশিত এই নাটকে ৭১- এর মুক্তিযুদ্ধে হিন্দু সমাজের নিপিড়ীত হওয়ার চিত্র তুলে ধরা হবে।
উৎসবের ৪র্থ দিন ১১ নভেম্বর সোমবার অনুষ্ঠিত হবে নাট্যাধারের প্রেযোজনা মহাভারতের কাহিনী অবলম্বনে রুবাইয়াৎ আহমেদ রচিত এবং মোস্তফা কামাল যাত্রা নির্দেশিত নাটক ‘হিড়িম্বা।’ এই নাটকে তুলে ধরা হবে, রাক্ষস নারীর প্রেম কাহিনী। রাক্ষস কুলের নারী বলে মানুষ কুলে নারীর কাছে অবহেলিত হওয়া। যুদ্ধ ক্ষেত্রে মানুষ কুলের সাহায্য করার সত্যও মানুষের মন না পাওয়ার দৃশ্য।
উৎসবের সমাপনী দিন ১২ নভেম্বর মঙ্গলবার মঞ্চায়িত হবে নাট্যাধারের নাটক ‘শিখন্ডী কথা।’ আনন জামান রচিত নাটকটির নিদর্শনা দিয়েছেন মোস্তফা কামাল যাত্রা। হিজড়া জনগোষ্ঠির যাপিত যন্ত্রনাময় জীবনের চিত্র এই নাটকে দেখানো হবে। হিজড়ারা কিভাবে পরিবার, সমাজ থেকে বিতাড়িত হয়। নিন্দা ও লজ্জিত জীবন কাটানোর কষ্ট তুলে ধরা হবে। এই নাটকে একজন শিশু হিজড়ার অবুঝ চোখের চাহনী থেকে শুরু করে শাড়ি পরে বিচিত্র সাজা পোশাক, নাচ গান ঠাট্টা করার বিষয় বস্তু দেখানো হবে। শৈশবের অনভিজ্ঞ চিন্তা, পুরুষ নারীর পার্থক্যর জটিলতা তুলে, অজানা জগতের মর্মস্পর্শী, পীড়াদায়ক বাস্তবতা। মানব সমাজে প্রকৃতির বিচিত্র খেয়ালের এক অনিঃশেষ ও দূর্ভাগা শিকারের নাম হিজড়া।
জিয়া হায়দার নাট্যপদক পাচ্ছেন রবিউল আলম

প্রবীণ নাট্যকার, নির্দেশক ও মঞ্চাভিনেতা রবিউল আলম পাচ্ছেন গ্রুপ থিয়েটার নাট্যাধার প্রবর্তিত ১২তম জিয়া হায়দার নাট্যপদক। নাট্য চর্চায় গুরুত্বপূর্ণ অবদানের জন্য তিনি ২০১৯ সালে এই পদকের জন্য মনোনীত হয়েছেন। পাঁচ দিনব্যাপী নাট্যাধার নাট্যপার্বণের তৃতীয় দিন ১০ নভেম্বর রোববার বিকাল পাঁচটায় জেলা শিল্পকলা একাডেমি চট্টগ্রামের মূল মিলনায়তনে এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানের মাধ্যমে তার হাতে এ পদক তুলে দেওয়া হবে। তির্যক নাট্য সমপ্রদায়ের অন্যতম উদ্যোক্তা নাট্যজন রবিউল আলম ১৯৪৬ সালের ৩ নভেম্বর জন্মগ্রহণ করেন। হায়ার সেকেন্ডারি পরীক্ষা শেষে (১৯৬৫) জীবনের প্রথম নাটক (বর সংকট) লিখে হ্যাজাকের আলোয় তার মঞ্চায়ন করেন। জন্মস্থান বগুড়ার বারপুর গ্রামে। তবে নাটকের সাথে গাঁটছড়া বাঁধেন কর্মস্থল চট্টগ্রামে। অফিস পাড়ার নাটকের মঞ্চে আত্মপ্রকাশ করেন প্রথমে অভিনেতা (১৯৭২) ও পরে নাট্যকার (অখচ অন্ধকার ১৯৭৩) রূপে। তির্যক নাট্যগোষ্ঠী প্রতিষ্ঠার (১৯৭৪) মাধ্যমে গ্রুপ থিয়েটার চর্চায় যুক্ত হন। তির্যকের প্রথম নাটক জননীর মৃত্যু চাই এর রচয়িতা তিনি।

x