কবতুর পালন করে স্বাবলম্বী সিরাজুল

মাহবুব পলাশ : মীরসরাই

সোমবার , ২০ জানুয়ারি, ২০২০ at ৫:২১ পূর্বাহ্ণ
38

১০ বছর আগে শখের বশে একজোড়া কবুতর কিনে বাড়িতে আনেন মীরসরাই উপজেলার জোরারগঞ্জ ইউনিয়নের মধ্যম সোনাপাহাড় গ্রামের মৃত নূরুল ইসলামের পুত্র সিরাজুল ইসলাম। কিছুদিন পালন করার পর ৫ জোড়া বাচ্চাও হয় সেই কবুতরের। বড় করে সেই কবুতর জোড় বিক্রি করেন। তখন থেকেই মাথায় আসে বাণিজ্যিক ভাবে কবুতর পালনও বিক্রি করার কথা। এরপর আরও কিছু কবুতর কিনে বাড়ির আঙ্গিনায় বাণিজ্যিক ভাবে গড়ে তোলেন কবুতরের খামার। বর্তমানে ৫০ জোড়া কবুতর রয়েছে তার।
সিরাজুল ইসলাম জানান, ১০ বছরআগে ফেনীর ফাজিলপুর এলাকা থেকে একজোড়া কিং কবুতর ক্রয় করেন। এর থেকে ৫ জোড়া বিক্রি করে তার মাথায় আসে বাণিজ্যিক ভাবে কবুতরের খামার করার। বাড়ির অন্যান্যদের সহযোগিতায় বাড়ির আঙ্গিনায় গড়ে তোলেন সিরাজুল প্রিজন ফার্ম। বর্তমানে তার খামারে বিভিন্ন প্রজাতির দেশি বিদেশি কবুতর রয়েছে। এর মধ্যে ৪২ হাজার টাকা জোড়া মূল্যেরই য়োলো বোখরা, ১০ হাজার টাকা মূল্যের মডেনা বল্টুকিং, ম্যাগপাই ও আওল এবং ৬ হাজার টাকা মূল্যের বিউটি হুমার। আছে ৬ থেকে ২০ হাজার টাকা মূল্যের পাকিস্তানি বল্টু সিরাজি, কালোকিং, লালকিং, হলুদ কিং, হোয়াইটকিং, সাটিং, শ্যালো, নানপারভিন, সিংহ ও হাইপিলার। ৬ হাজার টাকা মূল্যের অস্ট্রেলিয়ার কিং। ২ হাজার টাকা মূল্যের ভারতীয় বোম্বে ও লোটন এবং দেশি সোয়াচন্দন। ২০ হাজার টাকা খরচ করে এক জোড়া বিদেশি কবুতর পুষলে বছরে সব খরচ বাদ দিয়ে ৩০ হাজার টাকা লাভ থাকে। এক জোড়া কবুতর কমপক্ষে ৪ জোড়া বাচ্চা দেয়। প্রতি জোড়া বাচ্চার দাম ৩০০ টাকা থেকে শুরু করে ১ হাজার টাকা পর্যন্ত। কবুতরের খাবার বাবদ এক বছরে খরচ হয় ১৫শ’ থেকে ২ হাজার টাকা। অন্যান্য খরচ ৪ হাজার টাকার মতো। এ হিসাবে খরচ বাদ দিয়ে মাসে প্রায় ৩০ হাজার টাকার লাভ থাকে। এভাবেই ৪ বছর খামারে উৎপাদিত বাচ্চা ও কবুতর বিক্রি করে উল্লেখযোগ্য আর্থিক পরিবর্তন আনতে পেরেছেন। সিরাজুল ইসলাম আরও জানান, বর্তমানে নোয়াখালী, ফেনী ও ঢাকা থেকে বিভিন্ন প্রজাতির কবুতর ক্রয় করে জোরারগঞ্জ পোস্টঅফিসের সামনে প্রতিদিন বিক্রি করছি। পাশাপাশি খামারে উৎপাদিত বিদেশি জাতের কবুতরের বাচ্চা বিক্রি করছি।
ব্যবসায়ী মোঃশামীম জানান, সিরাজুল ইসলাম কবুতর বিক্রি করে স্বাবলম্বি হচ্ছে। নিজেই সুন্দরভাবে সংসার চালিয়ে জীবিকা নির্বাহ করছেন। এ ব্যাপারে মীরসরাই উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা ডা. শ্যামল চন্দ্র পোদ্দার জানান, সিরাজুল ইসলাম দেশি বিদেশি বিভিন্ন জাতের কবুতর পালন করে আজ স্বাবলম্বী হয়েছেন। সিরাজুল কবুতরের সমস্যা নিয়ে আসলে তাকে সঠিক পরামর্শ দেয়া হবে।