কচুয়া গ্রাম ছাগল পালনে দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছে

মাহবুব পলাশ : মীরসরাই

সোমবার , ১৩ জানুয়ারি, ২০২০ at ৫:৩৮ পূর্বাহ্ণ
21

ছাগল পালন একটি লাভজনক জীবিকা। বিকল্পভাবে অনেকে ছাগলকে গরীবের আশ্রয়দাতা ও বলেন। আদর্শবান এই গৃহপালিত পশু পালন করে মীরসরাই উপজেলার মঘাদিয়া ইউনিয়নের কচুয়া গ্রামে লাভবান হয়েছেন শতাধিক জনগোষ্টী। আর এই ছাগল পালনে সফলতার দৃষ্টান্ত হয়ে উঠেছে মঘাদিয়ার কচুয়া গ্রাম, যা বেকারত্ব লাঘবে একটি অনন্য দৃষ্টান্ত ও বটে।
স্বল্প পুঁজিতে অধিক আয়ের মীরসরাই উপজেলার ১১নং মঘাদিয়া ইউনিয়ন এর কচুয়া গ্রামের প্রায় শতাধিক মানুষের প্রিয় শখ ও জীবিকা এই ছাগল পালন। এখানে খুব জনপ্রিয় হয়ে উঠেছে এই পেশা। উক্ত এলাকার অধিকাংশ দরিদ্র বেকার যুবকরা এই ছাগল পালন করে আত্মকর্মসংস্থান গড়ে তুলেন এবং স্বাবলম্বী হয়ে উঠেন। এবং তারা বলেন এটি তাদের পেশা নন নেশা। এবং এক, একজনের কাছে ২০ টা থেকে ৪০ টা করে ছাগল পালন করে আসছে। গ্রামের ছাগল বেপারি জামাল মিয়া বলেন, ওই এলাকা থেকে মীরসরাই উপজেলার বিভিন্ন ইউনিয়ন থেকে লোকজন ছাগল ক্রয় করতে আসেন। ন্যায্য মূল্যেই তারা বিক্রয় করেন। তিনি আরো বলেন ছাগল পালন হচ্ছে দারিদ্রতা থেকে মুক্তি পাওয়ার একটি কৌশল। আরেকজন বেপারি জাহাঙ্গীর বলেন কচুয়া গ্রামে প্রায় ১৫০ থেকে ২০০ পরিবার ছাগল পালন করে আসছেন এর মধ্যে শতাধিকই স্বাবলম্বী হয়েছেন এই পেশায়। জনৈক ছাগল বেপারি নাজিম উদ্দিন বলেন তাদের এটি করে মাসে ২০-৩০হাজার টাকা উপার্জন হয়। স্বাবলম্বী হওয়াদের মধ্যে নাজিম উদ্দিন, নবী, লিটু, করিম হোসেন, সাইফুল, সেলিম, জসিম, লাতু, ইলিয়াছ, শামসুদ্দিন, ইব্রাহিম, তারু অন্যতম। নাজিম বলে আমরা ছাগল পালন ও বিক্রয় করে আত্মকর্মসংস্থান ও বেকারত্ব দূর করছি। আর এভাবে বেকার যুবকদেরকে ছাগল পালনে এগিয়ে আসার আহব্বান করছি। স্থানীয় ইউপি চেয়ারম্যান জাহাঙ্গির হোসেন মাষ্টার বলেন বর্তমান বাংলাদেশে বেকারত্বের হার যেভাবে বৃদ্ধি পাচেছ আর যখনই দেশের এই অবস্থা ছাগলের খামার হয়ে উঠতে পারে আপনার ভবিষ্যৎ গড়ার নতুন দিগন্ত। অনেকেই সখের বসে ছাগল পালন করে থাকে। কিন্তু বর্তমান জীবন ব্যবস্থায় ছাগল পালন এই দৃষ্টান্ত শুরু হচেছ বাণিজ্যিক ভাবেই। স্বল্প পরিসর জায়গা নিয়ে, স্বল্প পুঁজির মধ্য দিয়েই নিজের পরিশ্রম আর মেধা , আর অভিজ্ঞতা কে কাজে লাগিয়ে আপনি হয়ে উঠুন একজন সফল ব্যক্তি। এই বিষয়ে মীরসরাই উপজেলা প্রাণি সম্পদ কর্মকর্তা শ্যামল কান্তি পোদ্দার বলেন আমরা ছাগল পালনে সবসময় উদ্বুদ্ধ করে থাকি। উল্লেখিত কচুয়া গ্রামের সকল ছাগলপালনকারীর যে কোন সহযোগিতায় আমরা পাশে আছি থাকবো বলে জানান।