কক্সবাজার দরিয়ানগরে বানরের পাহাড়ে ফিরেছে বানর ও পাখির দল

শরৎকালে প্রজনন মৌসুম

আহমদ গিয়াস, কক্সবাজার

বুধবার , ৩ অক্টোবর, ২০১৮ at ১১:৪৯ অপরাহ্ণ
128

কক্সবাজার শহরতলীর জীববৈচিত্র্য সমৃদ্ধ দরিয়ানগর বানরের পাহাড়ে বানরসহ নানা জাতের দেশী পাখির দল ফিরতে শুরু করেছে। ইতোমধ্যে দুরন্ত স্বভাবের বাতাসী পাখির একটি মাঝারী আকারের দল ছাড়াও ঘুঘু, নাচুনি, মাছরাঙা, বুলবুলি, শিকরা, দোয়েল, মুনিয়া, হাঁড়িচাচাসহ আরো কয়েক প্রজাতির পাখি এই পাহাড়ে প্রজননে মেতেছে। প্রতিবছর বর্ষা শেষে শরৎকালে বেশ কয়েক প্রজাতির দেশী পাখি বাচ্চা ফুটাতে এই পাহাড়ের ঢালে গর্ত খুঁড়ে বাসা তৈরি করে।

স্থানীয় পর্যবেক্ষকরা জানান, আবহাওয়া ও পরিবেশের অনুকূলাবস্থায় প্রতিবছর বর্ষা শেষে ‘দরিয়ানগর বানরের পাহাড়ে’ ফিরে বিরল ও বিপন্ন প্রজাতির বেশ কয়েক দেশী পাখি। এরমধ্যে রয়েছে আইইউসিএন (ইন্টান্যাশনাল ইউনিয়ন ফর কনজার্ভ ন্যাচার) এর জরীপে বিপন্ন প্রজাতির তালিকায় থাকা ডোরাকাটা মাছরাঙাও। তবে চলতি মৌসুমে এখনও ডোরাকাটা মাছরাঙার দেখা না মিললেও বাতাসী, ঘুঘু, নাচুনি, নীল রঙা মাছরাঙা, বুলবুলি, শিকরা, দোয়েল, মুনিয়া, হাঁড়িচাচাসহ আরো কয়েক প্রজাতির নতুন পাখি এই পাহাড়ে প্রজননে মেতেছে। এসব পাখি হেমন্ত মাসের শুরুতে ডিম পেড়ে বাচ্চা ফুটাতে শুরু করবে এবং বাচ্চা বড় করে শীতের শেষে অন্যত্র চলে যাবে। এরপর শীতের শেষে বসন্তকালে আসবে সুঁইচোরা, কাঠ শালিক. শালিকসহ কয়েকটি রঙিন পাখি।

কক্সবাজার শহরতলীর দরিয়ানগরে জীববৈচিত্র্য সমৃদ্ধ ‘দরিয়ানগর বানরের পাহাড়’কে ঘিরে প্রায় ৩০ একর আয়তনের একটি বন্যপ্রাণী অভয়ারণ্য গড়ে তুলছে সরকার। দীর্ঘদিন ধরে স্থানীয় পাখি পর্যবেক্ষক ও পরিবেশবাদীদের দাবীর প্রেক্ষিতে সরকার সম্প্রতি শিক্ষা, গবেষণা, পর্যটন ও জলবায়ূ পরিবর্তনজনিত প্রভাব মোকাবেলায় জীববৈচিত্র্য সমৃদ্ধ পাহাড়টি রক্ষার উদ্যোগ নিয়েছে। এটি দেশে নতুন অনুমোদন পাওয়া ৮টি অভয়ারণ্যের একটি বলে জানান কক্সবাজার দক্ষিণ বনবিভাগের বিভাগীয় বন কর্মকর্তা বন সংরক্ষক মো. আলী কবীর।

তিনি জানান, অভয়ারণ্যের জন্য প্রস্তাবিত জমিটি ১ নং খাস খতিয়ানভূক্ত হলেও বনবিভাগকে জমিটির ইজারা পাওয়ার জন্য একটি প্রস্তাব পাঠাতে বলা হয়েছে। এরই পাশাপাশি প্রস্তাবটি বাস্তবায়নের জন্য জেলা উন্নয়ন কমিটির তালিকায়ও অন্তর্ভূক্ত করা হয়েছে। আশা করা যাচ্ছে, আগামীকয়েক মাসের মধ্যে প্রকল্পটির বাস্তবায়নের কাজ শুরু হবে।

কক্সবাজার শহরের কলাতলী মোড় থেকে প্রায় আড়াই কিলোমিটার দক্ষিণে মেরিন ড্রাইভ ও সমুদ্র সৈকত সংলগ্ন দরিয়ানগর ‘বানরের পাহাড়’কে ঘিরে বিপন্ন ও বিরল ঘিরে পশু-পাখির মেলা বসে। জীববৈচিত্র সমৃদ্ধ এই পাহাড়ে রয়েছে ঘন বাঁশবন ও সেগুন বাগান ছাড়াও নানা প্রজাতির বৃক্ষ ও গুল্মের সমাহার। পাহাড়ে খাঁজে খাঁজে বাস করে নানা প্রজাতির পাখি। বিভিন্ন গাছেও বাসা বেঁধে থাকে পাখির দল। এরই মাঝে এখানে বাস করে বন্য বানরের কয়েকটি দলও। এছাড়া রাতের বেলায় বিচরণ করে বড় আকারের কয়েকটি প্যাঁচা ও শিয়ালের দল। তাছাড়া গুঁইসাপ ও অজগরসহ কয়েক প্রজাতির সরীসৃপও দেখা যায় পাহাড়টিতে। হাজার হাজার পশু-পাখি প্রজননকাল উপলক্ষে এখানে বাচ্চা ফোটায়।

x