কক্সবাজারে ঝোপের পাশে গুলিবিদ্ধ দুই লাশ

ডাকাত দলের সদস্য বলে ধারণা পুলিশের

কক্সবাজার প্রতিনিধি

শনিবার , ১৭ মার্চ, ২০১৮ at ৪:৫২ পূর্বাহ্ণ
88

কক্সবাজার সদর উপজেলার ঈদগাঁওঈদগড় সড়কের পার্শ্ববর্তী একটি ঝোপের মধ্য থেকে দুইজনের গুলিবিদ্ধ লাশ উদ্ধার করেছে পুলিশ। গতকাল শুক্রবার সকাল ৮টার দিকে ওই সড়কের হিমছড়ি ঢালা নামের পাহাড়ি এলাকায় লাশ দুটি পাওয়া যায়। এরমধ্যে গতরাত ৯টা পর্যন্ত পুলিশ একজনের পরিচয় শনাক্ত করেছে। নিহত ব্যক্তিকে ডাকাত বলে দাবি করেছে পুলিশ।

নিহতদের একজন হলেন সদর উপজেলার ইসলামাবাদ ইউনিয়নের মৃত ফশিউর রহমানের ছেলে আরফাতুর রহমান টিটু (২৮)। অন্যজনের পরিচয় এখনও জানা সম্ভব হয়নি। নিহত টিটু একটি মামলার ১৭ বছরের সাজাপ্রাপ্ত আসামি। এছাড়াও তার বিরুদ্ধে ডাকাতিসহ বিভিন্ন অভিযোগে আরো বহু মামলা রয়েছে বলে জানান কক্সবাজার সদর থানার ওসি ফরিদ উদ্দিন খন্দকার। তিনি আজাদীকে বলেন, নিহতদের শরীরে একাধিক ছুরির আঘাত, দা’য়ের কোপ ও গুলির চিহ্ন রয়েছে। নিহতদের দুজনই ডাকাত দলের সদস্য বলে প্রাথমিকভাবে ধারণা করা হচ্ছে।

এ বিষয়ে কক্সবাজারের অতিরিক্ত পুলিশ সুপার ও জেলা পুলিশের মুখপাত্র আফরাজুল হক টুটুল বলেন, নিহতরা গরু চুরি ও ডাকাতির সঙ্গে জড়িত বলে গ্রামবাসীর সঙ্গে কথা বলে জানা গেছে। আর গরু চুরি কিংবা ডাকাতির টাকার ভাগবাটোয়ারা নিয়ে তাদের মধ্যে বিবাদ ছিল। এর জের ধরেই কোনো এক পক্ষ তাদেরকে হত্যা করেছে বলে ধারণা করা হচ্ছে। যারা তাদের খুন করেছে তারাও ডাকাত দলেরই লোক। পুলিশ তাদেরকে ধরতে অভিযান চালাচ্ছে বলে জানান তিনি।

পুলিশ ও প্রত্যক্ষদর্শীরা জানায়, স্থানীয় কাঠুরয়ারা সকালে ঈদগাঁও ইউনিয়নের ঈদগড়বাইশারি সড়কের হিমছড়ির ঢালার পাহাড়ি ঝোপে ছিন্নভিন্ন অবস্থায় দুটি লাশ দেখতে পেয়ে পুলিশকে খবর দেয়। সকাল দশটায় ঈদগাঁও তদন্ত কেন্দ্রের পুলিশ ঘটনাস্থলে গিয়ে মৃতদেহ দুটি উদ্ধার করে। পরে মৃতদেহের সুরতহাল শেষে ময়না তদন্তের জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল মর্গে পাঠানো হয়। উল্লেখ্য, যে এলাকা থেকে লাশ দুটি উদ্ধার হয়েছে, সেই হিমছড়ি ঢালার ৪ কিলোমিটারব্যাপী এলাকা ডাকাত দলের স্বর্গরাজ্য। ওই এলাকায় প্রায়ই রাস্তায় ব্যারিকেড দিয়ে লোকজনকে অপহরণসহ সর্বস্ব ছিনিয়ে নেয়া হয়।

x