কক্সবাজারে ঘাটে ফিরে আসছে মাছধরা ট্রলার

সাগর উত্তাল

আহমদ গিয়াস, কক্সবাজার

শনিবার , ৯ নভেম্বর, ২০১৯ at ৪:২৬ পূর্বাহ্ণ
39

টানা ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে গত সপ্তাহে সাগরে মাছ ধরা শুরু হলেও সপ্তাহ পার হতে না হতেই ফের ঘাটে ফিরছেন জেলেরা। গভীর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ইতোমধ্যে মাছধরা বন্ধ করে কক্সবাজারের অধিকাংশই ট্রলারই ঘাটে ফিরে এসেছে। বাকি ট্রলারগুলোও আজ শনিবারের মধ্যে ঘাটে ফিরবে বলে জানিয়েছে জেলা ফিশিংবোট মালিক সমিতি।
জেলা ফিশিংবোট মালিক সমিতির সাধারণ সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন জানিয়েছেন, গভীর বঙ্গোপসাগরে সৃষ্ট ঘূর্ণিঝড়ের কারণে দুর্যোগের আশংকায় আবহাওয়া বিভাগ সতর্কতা সংকেত জারি করলে কক্সবাজারের সকল ট্রলারকে বৃহস্পতিবারই মাছধরা বন্ধ করে ঘাটে ফিরে আসতে বলা হয়। এরই প্রেক্ষিতে শুক্রবার সন্ধ্যা পর্যন্ত শতকরা প্রায় আশি ভাগ ট্রলারই ঘাটে ফিরেছে। বাকি ট্রলারগুলোও শনিবারের (আজ) মধ্যে ঘাটে ফিরবে বলে আশা করা হচ্ছে। এজন্য জেলা বোট মালিক সমিতির সভাপতি ও পৌর মেয়র মুজিবুর রহমানের নেতৃত্বে শুক্রবার জেলে পল্লীতে সচেতনতামূলক প্রচারণা
চালানো হয়েছে।
ফিশিংবোট মালিক সমিতির সূত্র জানায়, কক্সবাজারে মাছ ধরার ছোট বড় ৫ সহস্রাধিক যান্ত্রিক নৌকা রয়েছে। যেখানে লক্ষাধিক জেলে-শ্রমিক নিয়োজিত রয়েছে। সাগরে মাছধরা বড় নৌকায় ৩০ থেকে ৪০ জন এবং ছোট নৌকায় ৫ থেকে ১৭ জন জেলে থাকে। আবার কক্সবাজার শহরতলীর দরিয়ানগর ঘাটের ইঞ্জিনবিহীন ককশিটের বোটে থাকে মাত্র ২ জন জেলে। নৌকাগুলোর মধ্যে ইলিশ জালের বোটগুলো গভীর বঙ্গোপসাগরে এবং বিহিন্দি জালের বোটগুলো উপকূলের কাছাকাছি মাছ ধরে। ইলিশ জালের বোটগুলো পক্ষকালের রসদ নিয়ে এবং বিহিন্দি জালের বোটগুলো মাত্র একদিনের রসদ নিয়ে সাগরে মাছ ধরতে যায়। বিহিন্দি জালের বোটগুলো সাগর উপকূলে ছোট প্রজাতির মাছ ধরে যাকে স্থানীয় ভাষায় ‘পাঁচকাড়া’ (পাঁচ প্রকারের) মাছ বলা হয়। কিন্তু বিরূপ আবহাওয়ার কারণে গত ২দিন ধরে সাগরে সকল প্রকার মাছ ধরা বন্ধ রয়েছে।
কক্সবাজারের জেলে নুর আহমদ ও বহদ্দার (বোট মালিক) নজির আলম আক্ষেপ করে বলেন, সাগরে মাছধরার উপর ২২ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে মাছ ধরা শুরু হলেও সপ্তাহ পার না হতেই হোঁচট খেলাম। এরআগে ৬৫ দিনের নিষেধাজ্ঞা শেষে সাগরে মাছ ধরতে গিয়েও একই কারণে চার বার হোঁচট খেয়েছি। এবছর দুর্ভাগ্য আমাদের।
শহরের প্রধান মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র ফিশারীঘাটস্থ মৎস্য ব্যবসায়ী সমিতির পরিচালক জুলফিকার আলী বলেন, একমাস বন্ধ থাকার পর মাত্র কয়েকদিন আগে সচল হওয়া শহরের প্রধান মৎস্য অবতরণ কেন্দ্রটি দুর্যোগপূর্ণ আবহাওয়ার কারণে আবারো শুনশান হতে চলেছে।
আবহাওয়া বিভাগ জানিয়েছে, বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় বুলবুল এর প্রভাবে সাগর উত্তাল রয়েছে। মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে পরবর্তী নির্দেশ না দেয়া পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।

x