এসডিজির লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে শিশুর মায়ের দুধের বিকল্প নেই

মা সমাবেশে বক্তারা

বুধবার , ৭ আগস্ট, ২০১৯ at ১০:০৮ পূর্বাহ্ণ
16

এসডিজি অনুযায়ী ‘সকলের জন্য সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করা’ কথা বলা হলেও দেশে শিশুকে মাতৃদুগ্ধ দানের প্রবণতা ক্রমাগত হ্রাস পাচ্ছে। সার্বিক পুষ্টি পরিস্থিতিতে বাংলাদেশ উল্লেখযোগ্য উন্নতিলাভ করলেও স্তন্যদানকারী মায়ের সংখ্যা আশংকাজনকভাবে কম। ১৯৯৪ সালে এর হার ছিল ৪৬% যা ২০১১ সালে বেড়ে দাঁড়ায় ৬৪ শতাংশে এবং ২০১৪ সালে এসে তা হ্রাস পেয়ে হয় ৫৫ শতাংশ। ২০১৮ সাল নাগাদ এই অনুপাত আর বাড়েনি। শিশুর যথাযথ পুষ্টি, গঠন এবং মায়ের সুস্বাস্থ্য নিশ্চিত করতে মাতৃদুগ্ধদান একটি অতুলনীয় পন্থা। বিশ্ব স্বাস্থ্য সংস্থা ৯০% মায়েদের দুগ্ধদানের লক্ষ্য নির্ধারণ করেছে। তাই শিশুকে মায়ের দুধ ও ঘরের তৈরি পরিপূরক খাবার খাওয়ানোর অগ্রগতির ধারাকে জোরদার করতে সংশ্লিষ্ট সকলকে আরো কার্যকরভাবে কাজ করতে হবে। সরকারি, বেসরকারি এবং সংশ্ল্লিষ্ট সকল ব্যক্তি ও প্রতিষ্ঠানকে আরো কার্যকরভাবে কাজ করতে হবে এবং সকলের সম্মিলিত প্রচেষ্টায় মাতৃ ও শিশু পুষ্টি বিষয়ে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা (এসডিজি) অর্জন সক্ষম হবে।
গত ৫ আগস্ট নগরীর রউফাবাদ বিহারী কলোনীর সমাজ সেবা অফিস চত্বরে বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উদযাপন উপলক্ষে মা সমাবেশ ও মাতৃদুগ্ধদানকারী মা’দের সম্মাননা অনুষ্ঠানে বক্তারা এসব কথা বলেন। বিশ্ব মাতৃদুগ্ধ সপ্তাহ উদযাপনের অংশ হিসাবে সপ্তাহব্যাপী কর্মসূচির আওতায় সিএসএ ফর সানের সহযোগিতায় আইএসডিই এ কর্মসূচির আয়োজন করে। আইএসডিইর নির্বাহী পরিচালক এস এম নাজের হোসাইনের সভাপতিত্বে ও ক্যাব বিভাগীয় সংগঠক জহুরুল ইসলামের সঞ্চালনায় অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি ছিলেন কাউন্সিলর আবিদা আজাদ। বক্তব্য দেন, বিজিএমইএর স্ট্যান্ডিং কমিটির কো-চেয়ারম্যান আবু তাহের, ক্যাব দক্ষিণ জেলা সভাপতি আবদুল মান্নান, এস এম শাহনেওয়াজ আলী মির্জা, জানে আলম, নিজাম উদ্দীন খোকন, শাকিল আহমেদ মুন্না, জাবেদ আলম শাহীন, মো. জাহাঙ্গীর আলম, রেশমী আখতার, মুক্তা শেখ মুক্তি, রহিমা আখতার, শাম্পা কে নাহার, শিক্ষক সুধাংশু বিকাশ রায়, নিখিল কুমার বিশ্বাস, মৌলানা মনির আহমদ প্রমুখ। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x