একটি সড়কে পাল্টে যাবে দুই জনপদের চেহারা

ইমরান হোসেন, রাঙ্গুনিয়া

সোমবার , ১১ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ at ১১:০৯ পূর্বাহ্ণ
1046

চারপাশে নদী বেষ্টিত হওয়ায় রাঙ্গুনিয়া উপজেলার সরফভাটা ইউনিয়নের প্রায় ৭০ হাজার মানুষের যোগাযোগ রক্ষায় নদীপথই ছিল মূল ভরসা। এক দশক আগে কাপ্তাই সড়ক ঘেঁষে রাঙ্গুনিয়ার গোডাউন হয়ে সড়ক হওয়ার পর যোগাযোগে নতুন আশা ও সম্ভাবনার তৈরি হয়। দীর্ঘদিন সে সম্ভাবনাকে বাস্তবে রূপ দেয়ার ছিল না কোন আয়োজন। রাঙ্গুনিয়ার সন্তান তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদের একান্ত প্রচেষ্টায় সে সম্ভাবনা বাস্তবে রূপ নিচ্ছে। কৃষি, শিক্ষা, যোগাযোগে এসেছে বিপ্লব। বর্তমান সরকারের বিগত সময়ে রেকর্ড পরিমান উন্নয়নের ছোঁয়ায় বদলে গেছে সরফভাটার চিত্র। বিশ্বব্যাংকের অর্থায়নে সরকারের প্রচেষ্টায় চট্টগ্রামের বোয়ালখালীর জ্যৈষ্ঠপুরা-রাঙ্গুনিয়ার গুদামঘর পর্যন্ত ৭ কিলোমিটার ৫৮৮ মিটারের সড়কটি রাঙ্গুনিয়া ও বোয়ালখালি উপজেলার দুর্গম অংশে বসবাসরতদের জন্য হয়ে এসেছে আশির্বাদ। সরফভাটার সড়ক ও যোগাযোগ বিপ্লবের মধ্যে এম সাদেক চৌধুরী সেতু, আহম্মদ সৈয়দ মাস্টার সড়ক, হাজী বাড়ি সড়ক, সরফভাটা ইউনিয়ন আশ্রয়ণ প্রকল্প, হাফেজ মোহাম্মদ শরীফ সড়ক, হাজী আশরাফ আলী সড়ক ইত্যাদি যতগুলো উন্নয়ন প্রকল্প দৃশ্যমান ও বাস্তবায়ন সম্পন্ন হয়েছে। সরকারের দৃশ্যমান প্রকল্পের মধ্যে অধিকতর গুরুত্বপূর্ণ ও যোগাযোগ বিপ্লবের রাঙ্গুনিয়া-বোয়ালখালীর এ সংযোগ সড়কটি, স্থানীয় সূত্রে জানা যায় চলতি সরকারের বিগত সময়কালে জানুয়ারী ২০১৬ সালের জ্যৈষ্ঠপুরা-রাঙ্গুনিয়া গুদামঘর পর্যন্ত সরফভাটা বোয়ালখালী সংযোগ সড়কটি তৈরির কাজ শুরু হয়।
এ সড়কটির নির্মাণ কাজের ভিত্তিপ্রস্থর স্থাপন করেন রাঙ্গুনিয়া-৭ আসনের সাংসদ বর্তমান আওয়ামী সরকারের তথ্যমন্ত্রী ড. হাসান মাহমুদ। প্রসঙ্গত, সরফভাটা তথা গোটা দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়ার শহরে যাতায়াতের একমাত্র সড়কপথ ছিলো সরফভাটা গোডাউন ব্রিজ। আর সরফভাটা-বোয়ালখালীর এ সংযোগ সড়কটির ফলে শহরে যাতায়াতের ও যোগাযোগ ব্যবস্থার আরও একটি বিকল্প সড়কের দ্বার উন্মুক্ত হলো। এতে করে চাপ কমবে খুব ব্যস্ত রাঙ্গুনিয়া কাপ্তাই সড়কের। রাঙ্গুনিয়া- কাপ্তাই ও শহরে যাতায়াতের প্রধান এ সড়কের যানজট নিরসনেও সহায়ক হিসেবে উল্লেখযোগ্য অবদান রাখবে সরফভাটা- বোয়ালখালীর এ সংযোগ সড়কটি। আগে সরফভাটার তথা গোটা দক্ষিণ রাঙ্গুনিয়ার যোগাযোগ ব্যবস্থার বেহাল অবস্থার ফলে পাড়ি জমিয়েছেন অনেকেই শহরে, যাপিত জীবনের উন্নয়ন তথা শিক্ষা, চিকিৎসা ও সার্বিক সুবিধা পাওয়ার লক্ষ্যে। সমগ্র দেশ তথা রাঙ্গুনিয়ায় উন্নয়নের ছোঁয়ায় নগরে রূপান্তরিত হতে চলেছে। এ সড়ক নির্মাণের ফলে রাঙ্গুনিয়া ও বোয়ালখালী অঞ্চলের যোগাযোগ ও কৃষি বিপ্লব হবে বলে ধারণা করছেন সংশ্লিষ্টরা। স্বাধীনতার ৪৭ বছর পরে এসে যোগাযোগ বিল্পবের এ যুগে অসম্ভব কাজকে সম্ভব করেছে এ সরকার। সড়কটির কাজ প্রায় শেষ, তবে এখনও সরফভাটার মীরের খীল, মাতব্বর বাড়ি, জঙ্গল সরফভাটার বড়খোলা পাড়া সংযোগ সড়কের ও বোয়ালখালীর জৈষ্ঠ্যপুরার সংযোগ এর মাঝামাঝি বেশকিছু কার্পেটিং তথা ফ্লেক্সিবল পেইভমেন্টের কাজ চলছে। চলতি বছরের মাঝামাঝি নাগাদ সড়কটির কাজ সম্পন্ন হবে বলে জানিয়েছেন সংশ্লিষ্টরা।

x