উন্নয়নে আত্মতুষ্টি

শনিবার , ২১ এপ্রিল, ২০১৮ at ৮:৪৫ পূর্বাহ্ণ
68

উন্নয়ন নিয়ে সরকার এতটাই আত্মতুষ্টিতে ভুগছে যে, অতীতের কোনো সরকার যেন এর ধারেকাছেও যেতে পারেনি। এ সরকারের প্রায় দশ বছরের শাসনামলে যে উন্নয়ন হয়েছে তা যেন নজির বিহীন। তাই সরকার উন্নয়নের এই ধারাবাহিকতা ধরে রাখতে জনসভা করে তাকে ভোট দিয়ে আবারো ক্ষমতায় আনার জন্য বারবার আহবান জানাচ্ছে। জনসভায় আহূতদের ওয়াদা করিয়ে ভোট নিশ্চিত করা হচ্ছে। সরকারের ঘোষণা অনুযায়ী তার চলমান দুই মেয়াদে যে ইতিহাস সৃষ্টি করা উন্নয়ন হয়েছে তাতে তাকে পুনরায় ভোট না দেয়ার কোনো কারণ থাকতে পারে না। ক্ষমতাসীন দলের নেতারা এমন আত্মবিশ্বাসী যে, তাদেরকে পুনরায় নির্বাচিত করা ছাড়া জনগণের সামনে যেন আর কোনো বিকল্প নেই। সরকারের অভূতপূর্ব এই উন্নয়ন নিয়ে নিরপেক্ষ নাগরিক সমাজের অনেকে কেন কথা বলছেন না এবং প্রভাবশালী পত্র-পত্রিকা ও অন্যান্য মিডিয়ায় কেন লেখালেখি হচ্ছে না। এ নিয়েও সরকারের বেশ আক্ষেপ রয়েছে। ক্ষমতাসীন দলের শীর্ষ পর্যায় থেকে প্রায় কটাক্ষ করে বলা হয়, তারা কী সরকারে উন্নয়ন দেখে না? তারা কী অন্ধ? তাদের কী চোখ নষ্ট হয়ে গেছে? সরকারের পক্ষ থেকে এমন ক্ষোভ প্রকাশ করা খুবই স্বাভাবিক। কারণ সে তার উন্নয়নের ব্যাপারে অন্ধ। সে মনে করে, তার আমলে উন্নয়ন হয়েছে বা হচ্ছে, ভবিষ্যতে তা আর কেউ করতে পারবে না। ফলে যখন নাগরিক সমাজের অনেকে বা প্রভাবশালী মিডিয়াগুলো যখন সরকারের প্রভূত উন্নয়ন কর্মকাণ্ড নিয়ে কথা না বলে কিংবা লেখালেখি না করে, তখন তার রাগ হতেই পারে। সে বলতেই পারে, তোমরা কেন সমস্বরে বলছো না এবং শ্লোগান দিচ্ছো না। এ সরকারের মতো উন্নয়ন বাংলার ইতিহাসে আর কেউ করতে পারেনি। পারবেও না। তবে বর্তমান সরকারের উন্নয়ন নিয়ে তার সমর্থক বুদ্ধিজীবী ও মিডিয়াগুলো যে প্রশংসায় পঞ্চমুখ হচ্ছে না, তা নয়। তারা নিরন্তর বলে যাচ্ছেন। তারপরও সরকারের মন ভরছে না। কারণ সরকার ভাল করেই জানে, তার সমর্থক প্রশংসা করবেই। প্রশ্ন হচ্ছে বাংলাদেশ যে স্বল্প উন্নত দেশ থেকে উন্নয়নশীল দেশের প্রাথমিক ধাপে পা দিয়েছে, এটা কি শুধু এই সরকারের কারণেই হয়েছে। অতীতের সরকারগুলোর কি কোনোই অবদান নেই? বাস্তবতা হচ্ছে একটি দেশ হুট করেই উন্নতি করে না। উন্নতি একটি ধারাবাহিক প্রক্রিয়া ও কার্যক্রম। অনেকে তো বলেন, এ সরকারের আমলে ব্যাংক লুটসহ আর্থিকখাতে যে হাজার হাজার কোটি টাকা দুর্নীতি ও পাচার হয়েছে তা যদি না হতো এবং গণতন্ত্রের স্বাভাবিক গতি, মত প্রকাশের স্বাধীনতা, মানবাধিকার, সুশাসন মান সম্পন্ন অবস্থায় থাকত তাহলে পাঁচ বছর আগেই দেশ অনেক উন্নতি সাধন করত। তার অর্থ, উন্নতির ক্ষেত্রে আমরা পাঁচ বছর পিছিয়ে গিয়েছি। প্রত্যেক সরকারই মনে করে তার সময়ে দেশে যত উন্নয়ন হয়, আর কোনো সরকারের আমলে হয় না। বর্তমান সরকারের সময়ও প্রতিদিন এ কথা বলা হচ্ছে।
ণ্ড এম. এ. গফুর, বলুয়ার দীঘির দক্ষিণ-পশ্চিম পাড়, কোরবানীগঞ্জ, চট্টগ্রাম।

x