উন্নয়নের নামে বাংলাদেশ হতে চলেছে কয়লার ভাগাড় : সুলতানা কামাল

রবিবার , ৬ অক্টোবর, ২০১৯ at ৪:৪৫ পূর্বাহ্ণ

সারাবিশ্ব যখন জলবায়ু সমস্যা নিয়ে উদ্বিগ্ন, তখন উন্নয়নের দোহাই দিয়ে বাংলাদেশে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের কাজ চলছে। এর মধ্য দিয়ে এ দেশ দিন দিন এক কয়লার ভাগাড়ে পরিণত হতে চলেছে বলে মন্তব্য করেছেন সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটির আহ্বায়ক সুলতানা কামাল।
গতকাল শনিবার রাজধানীর সেগুনবাগিচায় ঢাকা রিপোর্টার্স ইউনিটিতে আয়োজিত এক সংবাদ সম্মেলনে এ মন্তব্য করেন সুলতানা কামাল। ইউনেস্কোর ৪৩তম সভার সব সুপারিশ বাস্তবায়ন, সুন্দরবনের পাশে রামপালসহ সব শিল্প নির্মাণ প্রক্রিয়া বন্ধ ও সমগ্র দক্ষিণ-পশ্চিমাঞ্চলের কৌশলগত পরিবেশ সমীক্ষা সম্পন্নের দাবিতে এ সংবাদ সম্মেলনের আয়োজন করে সুন্দরবন রক্ষা জাতীয় কমিটি। খবর বিডিনিউজের।
বাংলাদেশে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপনের সমালোচনা করে সুলতানা কামাল বলেন, সারাবিশ্ব যখন জলবায়ু পরিবর্তনজনিত মহাসংকট নিয়ে ব্যতিব্যস্ত, বাংলাদেশ তখন কিছু খোঁড়া যুক্তির ভিত্তিতে কয়লা বিদ্যুৎকেন্দ্র স্থাপন করে চলেছে। অথচ এটি সর্বজনবিদিত যে, কয়লা হচ্ছে সবচেয়ে নিকৃষ্ট জ্বালানি, আর ‘ভালো কয়লা’ একটি উৎকৃষ্ট মিথ্যা। ফলে উন্নয়নের নামে বাংলাদেশ হতে চলেছে বিশ্বনন্দিত কয়লার ভাগাড়।
উন্নয়ন বা বিদ্যুতের জন্য কয়লা, এমনকি কোনো জীবাশ্ম জ্বালানিরই প্রয়োজন নেই। রাষ্ট্র পরিচালকদের মন পরিষ্কার থাকলেই আমাদের অফুরন্ত বিকল্প জ্বালানি চোখে পড়বে।
সুন্দরবন প্রশ্নের সরকারের সমালোচনা করে সুলতানা কামাল বলেন, আমরা চাই সরকার তার ভুল অবস্থান থেকে সরে এসে রামপাল প্রকল্প বাতিল করুক।
বনবিরোধী সব স্থাপনা উৎখাত করুক এবং বনের প্রাকৃতিক চরিত্র সংরক্ষণ ও সমৃদ্ধকরণের সঠিক পদক্ষেপ নিক। বিজ্ঞানসম্মতভাবে বিকল্প উপাপয়ে বিদ্যুৎ তৈরি করুক।
‘সম্প্রতি জানা গেল যে, রামপাল প্রকল্প নির্মাতা ভারতীয় কোম্পানি এনটিপিসির সব কয়লা বিদ্যুৎ প্রকল্প সে দেশে স্থগিত করেছে। ইকোনমিক টাইমস পত্রিকায় প্রকাশিত খবরে বলা হয়েছে, ভারতের সর্ববৃহৎ বিদ্যুৎ উৎপাদন প্রতিষ্ঠান এনটিপিসি আগামী ৫ বছর নতুন করে কোনো কয়লাভিত্তিক বিদ্যুৎ উৎপাদনে যাবে না।