আনোয়ারায় লক্ষাধিক মানুষ পানিবন্দী, দুর্ভোগ চরমে

অনোয়ারা প্রতিনিধি

রবিবার , ১৪ জুলাই, ২০১৯ at ৯:১০ পূর্বাহ্ণ
68

 

 

আনোয়ারায় গত ৫ দিনের টানা বৃষ্টি ও সাঙ্গু নদীবঙ্গোপসাগরের জোয়ারের পানির প্রভাবে উপজেলার নিম্নাঞ্চলের লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দী হয়ে মানবেতর জীবন যাপন করছে। আনোয়ারা বরকল সড়কসহ অর্ধশতাধিক গ্রামীণ সড়ক ডুবে যাওয়ায় চলাচলে চরম দুর্ভোগ নেমে এসেছে। পুকুর, ডুবা, খালবিল পানিতে একাকার হয়ে গেছে। যার ফলে মৎস ঘের ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে।

গত ৫ দিনের টানা বৃষ্টি ও অস্বাভাবিক জোয়ারের পানির কারণে উপকূলীয় ইউনিয়নের বার আউলিয়া, ঘাটকুল, পূর্ব গহিরা, সরেঙ্গা, রায়পুর, চুন্নাপাড়া, জুইদন্ডি ইউনিয়নের পূর্ব জুইদন্ডি, মধ্যম জুঁইদন্ডি, পশ্চিম জুঁইদন্ডি, বটতলী ইউনিয়নের পূর্ববৈরিয়া, পশ্চিম বৈরিয়া আইর মঙ্গল, বটতলী রুস্তম হাটের আশপাশ এলাকা, বরুমচড়া নলদ্বিয়া, বারখাইন ইউনিয়নের দক্ষিণ তৈলারদ্বীপ, পূর্ব বারখাইন, বারখাইন, শিলাইগড়া, সৈয়দ কুসাইয়া, ঝিওরী, হাজির হাট, চাতরী ইউনিয়নের কৈনপুরা, কেয়াগড়, মহতর পাড়া, চাতরী, ডুমুরিয়া, আনোয়ারা সদর ইউনিয়নের আনোয়ারা সদর, ইছামতি, হাইলধর ইউনিয়নের হাইলধর, ইছাখালী, হেটি খাইন, পরৈয়কোড়া ইউনিয়নের কৈয়খাইন, ওশখাইন, মামুর খাইন, শিলালিয়া, তালশরা, পরৈকোড়াসহ বৈরাগ বারশত ইউনিয়নের বিভিন্ন এলাকার লক্ষাধিক মানুষ পানি বন্দী হয়ে পড়ার খবর পাওয়া গেছে।

শুধু তাই নয় পানির কারণে ছাত্তার হাট ওশখাইন মুরালী, কৈখাইন ছামুদরিয়া সড়ক, বরুমচড়া বটতী দিঘির পাড় সড়কসহ উপজেলার ১১ ইউনিয়নের ৫০ টিরও অধিক গ্রামীণ সড়ক ব্যাপকভাবে ক্ষতিগ্রস্ত হয়ে গ্রামীণ যোগাযোগ ব্যবস্থা হুমকির মুখে পড়েছে। রায়পুর ইউনিয়নের চেয়ারম্যান জানে আলম জানায়, বেডিবাঁধ নির্মাণ কাজে দুর্নীতির কারণে আজ রায়পুর পানিতে ডুবে আছে। শুধু তাই নয়, সাপমারা খালের বাঁধ নির্মাণে ঠিকাদারের লোকজন স্লুইচ গেট বন্ধ করে দেওয়ায় পানি চলাচল বন্ধ হয়ে এলাকায় জলবদ্ধতার সৃষ্টি হয়ে হাজার হাজার মানুষ দুর্ভোগে পড়েছে।

জুঁইদন্ডি ইউনিয়নের চেয়ারম্যান মোরশেদুল আলম খোকা জানান, টানা বৃষ্টি ও জোয়ারের পানির কারণে ধানের বীজ তলা মৎস ঘের ও ফসলের ব্যাপক ক্ষতি হয়েছে। গ্রামীণ সড়ক ডুবে হাজার হাজার মানুষ পানি বন্দী হয়ে পড়েছে। পূর্ব বারখাইনের বাসিন্দা মুক্তিযোদ্ধা মাস্টার আবুল হাসেম জানান, বেডি বাঁধের কাজ না হওয়ায় সাঙ্গু নদীর জোয়ারের পানিতে পুরো এলাকা সয়লাব হয়ে গেছে। বেডি বাঁধ ভাঙা থাকায় এলাকার মানুষের দুঃখ কষ্টের শেষ নেই।

উপজেলা প্রকল্প বাস্তবায়ন কর্মকর্তা জামিরুল ইসলাম জানায়, আনোয়ারায় গত এক সপ্তাহ ধরে টানা বৃষ্টি ও জোয়ারের পানির কারণে ৮ শতাধিক বসতঘর ও ৫০ টিরও অধিক ক্ষতিগ্রস্ত সড়কের তালিকাসহ ক্ষয়ক্ষতির বিবরণ জেলা প্রশাসনকে জানানো হয়েছে। উপজেলা নির্বাহী অফিসার শেখ জোবায়ের আহমদ জানান, ক্ষতিগ্রস্ত পরিবারের জন্য জেলা প্রশাসন থেকে প্রাথমিক সাহায্য হিসাবে ৫ টন চাউল ও ২ শত প্যাকেট শুকনো খাবার বরাদ্দ পাওয়া গেছে। আজ (রবিবার) এসব বিতরণ করা হবে।

x