অভিষেকেই শূন্য রানে ৬ উইকেট নেপালের অঞ্জলির

স্পোর্টস ডেস্ক

মঙ্গলবার , ৩ ডিসেম্বর, ২০১৯ at ৫:১৯ পূর্বাহ্ণ
11

আইসিসির সব সদস্য রাষ্ট্রকে টি-টোয়েন্টি মর্যাদা দেওয়ার পর নতুন নতুন ঘটনা ঘটছে মাঠে। বিচিত্র সব রেকর্ড হচ্ছে নিয়মিত। বিশেষ করে মেয়েদের ক্রিকেটে। অঞ্জলি চাঁদ গড়লেন তেমনই অবিশ্বাস্য এক কীর্তি। অভিষেক ম্যাচে নেপালের এই বোলার ৬ উইকেট নিয়েছেন কোনো রান না দিয়েই! দক্ষিণ এশিয়ান গেমসে (এস এ গেমস) সোমবার মালদ্বীপের মেয়েদের বিপক্ষে এই রেকর্ড গড়েন অঞ্জলি। পোখারায় আসরের প্রথম ম্যাচে ২৪ বছর বয়সী এই বোলারের বোলিং ফিগার ছিল ২.১-২-০-৬। মেয়েদের আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টিতে সেরা বোলিংয়ের আগের রেকর্ড ছিল মালয়েশিয়ার ম্যাস এলিসার। গত জানুয়ারিতে চীনের বিপক্ষে এই লেগ স্পিনার ৬ উইকেট নিয়েছিলেন ৩ রানে। রান না দিয়ে সবচেয়ে বেশি উইকেটের আগের রেকর্ড ছিল তাঞ্জানিয়ার বোলার নাসরা সাইদির। গত জুনে মালির বিপক্ষে তিনি ৫ উইকেট নিয়েছিলেন শূন্য রানে। এবার নেপালের অঞ্জলি যে বোলিং উপহার দিলেন, ছেলে-মেয়ে মিলিয়ে আন্তর্জাতিক ক্রিকেটের কোনো সংস্করণেই এমন কিছুর নজির নেই আর। অঞ্জলির বোলিং ফিগার থেকেই অবশ্য প্রতিপক্ষ সম্পর্কে ধারণা পাওয়া যায়। আনকোরা মালদ্বীপের মেয়েদের এটিই ছিল প্রথম আন্তর্জাতিক ম্যাচ। ১০.১ ওভারে তারা গুটিয়ে যায় ১৬ রানে। রান তাড়ায় নেপাল জিতে যায় ৫ বলেই। অঞ্জলির রেকর্ড গড়া বোলিংয়ে মালদ্বীপকে ১০ উইকেটে হারিয়েছে স্বাগতিক নেপাল। এসএ গেমসে নারী ক্রিকেটের প্রথম ম্যাচে টস জিতে প্রথমে ব্যাটিং করার সিদ্ধান্ত নেন মালদ্বীপের অধিনায়ক জুনা মারিয়াম। তবে ব্যাট হাতে নেমেই স্বাগতিকদের বোলিং তোপে পড়ে ১০ দশমিক ১ ওভারে মাত্র ১৬ রানে গুটিয়ে যায় মালদ্বীপের নারীরা। ইনিংসের সপ্তম ওভারে বল হাতে আক্রমণে আসা অঞ্জলি কোন রান খরচ না করে ৬ উইকেট শিকার করে আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে সেরা বোলিং ফিগারের রেকর্ড গড়েন। লাতসা হালিমাথ স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত ম্যাচে নিজের প্রথম ওভারে মালদ্বীপ অধিনায়ককে শূন্য রানে আউট করেন ২৪ বছর বয়সী অঞ্জলি। দুই বল পরেই নিজের দ্বিতীয় উইকেট তুলে নেন তিনি। আট নম্বরে ব্যাট হাতে নামা শাফা সালিমও রানের খাতা খোলার আগেই শিকার হন অঞ্জলির। এরপর ফাসাল ইব্রাহিম, কিনাথ ইসমাইল এবং শামা আলীও আউটহন কোন রান না করেই। জয়ের জন্য ১৭ রানের লক্ষ্যে খেলতে প্রথম ওভারেই কাজল শ্রেষ্ঠা তিন বাউন্ডারি হাকালে মাত্র পাঁচ বল খেলেই ম্যাচ জিতে নেয় নেপাল। নারী আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে এর আগে সেরা বোলিং ফিগারের মালিক ছিলেন মালদ্বীপের মান এলিসা। চলতি বছর চীনের বিপক্ষে একটি ম্যাচে তিন উইকেটে ৬ উইকেট শিকার করেছিলেন এলিসা। আন্তর্জাতিক টি-২০ ক্রিকেটে পুরুষ বিভাগে সেরা বোলিং ফিগারের মালিক ভারতের দিপক চাহার। গত মাসে নিজ মাঠে বাংলাদেশের বিপক্ষে সাত রানে ৬ উইকেট শিকার করেন এ ফাস্ট বোলার। মালদ্বীপের ১৬ রান মেয়েদের টি-টোয়েন্টিতে সর্বনিম্ন স্কোর নয়। ১০৪টি সদস্য রাষ্ট্রকে টি-টোয়েন্টি মর্যাদা দেওয়ার পর রেকর্ড বই স্বাক্ষী হচ্ছে অভাবনীয় সব ঘটনার। গত জুনে রুয়ান্ডার বিপক্ষে ৬ রানে গুটিয়ে গিয়েছিল মালি। সর্বনিম্ন দলীয় রানের রেকর্ড সেটিই। রান তাড়ায় রুয়ান্ডা জিতেছিল ৪ বলে। ওই ম্যাচ ছাড়াও ১০, ১১ ও ১৪ রানে অলআউট হওয়ার ইনিংসও আছে মালির মেয়েদের। আরেকটি ম্যাচে তাঞ্জানিয়ার মেয়েরা ২০ ওভারে করেছিল ২৮৫ রান, মালি জবাবে করতে পেরেছিল কেবল ১৭।

x