অবৈধ দখলে কক্সবাজারের ফুটপাত

পথচারীদের দুর্ভোগ চরমে

কক্সবাজার প্রতিনিধি

শনিবার , ২৪ নভেম্বর, ২০১৮ at ১১:৩১ অপরাহ্ণ
105

কক্সবাজার শহরের ফুটপাত ও সড়ক এখন হকার ও অবৈধ পার্কিংয়ের দখলে। সড়ক ও ফুটপাতে ভ্রাম্যমাণ দোকান, ফেরিওয়ালা, সড়কের উপর যানবাহনের অবৈধ পার্কিং, নির্মাণসামগ্রী রাখা, কাঁচাবাজার, ডাস্টবিন, মোড়ে মোড়ে গাড়ির বিশৃঙ্খল জটলা, যাত্রী ওঠানামা ইত্যাদি কারণে বাড়ছে জনদুর্ভোগ, যানজট আর দুর্ঘটনার ঝুঁকি। একেতো শহরের সংকীর্ণ সড়ক, তার ওপর পার্কিং ও ফুটপাত অবৈধ দখলের কারণে পথচারীদের পড়তে হচ্ছে চরম দুর্ভোগে।

সরেজমিন ঘুরে দেখা গেছে, কক্সবাজার পর্যটন শহরের প্রধান সড়কের বাজারঘাটা ফুটপাত অন্যান্য স্থানের তুলনায় অনেক সংকীর্ণ। এ ফুটপাত ফলমূলের দোকান এবং দোকানের সরঞ্জাম, পান-সিগারেট, ফল ও বিক্রেতাদের দখলে। নিউ মার্কেটের সামনের রাস্তার উল্টোদিকের ফুটপাতের পুরোটাই অবৈধ দখলে। এ সড়কের দমকল বিভাগ সংলগ্ন রাস্তায় গড়ে উঠেছে কয়েকটি মাছ ও কাঁচা সবজির দোকান। ফায়ার সার্ভিসের গেটের তিনপাশের ফুটপাতে কাপড় বিক্রেতা ও খাবারের দোকানদাররা মালামাল রেখে দখল করে রেখেছেন। এখানে পথচারী ও সিএনজিচালিত অটোরিকশা, টমটমের জন্য অপেক্ষমাণ যাত্রীদের চরম দুর্ভোগ পোহাতে হয়।

শহরের ঝাউতলা সড়কে দেখা যায়, পথচারীদের নির্বিঘ্নে চলাচলের জন্য একটু ফুটপাতও খালি নেই। এখানে ফুটপাত দখল করার পর ব্যস্ত সড়ক দখল করে গাড়ি পার্কিং, চনামুড়ির দোকান, ইস্পাতের আসবাবপত্র, নির্মাণ সামগ্রী, গাড়ি পার্কিং করে রাখা হয়েছে।

শহরের লালদীঘি পাড়স্থ বিলকিস মার্কেটের সামনে রাস্তা দখল করে বসে ফল ব্যবসায়ী, কাপড় ব্যবসায়ী ও বইসহ হরেকরকমের পণ্যের পসরা। ভ্যান গাড়িতে পসরা সাজিয়ে রাস্তার উপর চলছে কেনাবেচা।

শহরের অন্যতম ব্যস্ততম সড়ক হাসপাতাল সড়ক। এ রোডে গত ৭ আগস্ট দুর্ঘটনায় এক পথচারীর মৃত্যু হয়। তারপরও হাসপাতাল সড়কের দুপাশের ফুটপাত ও রাস্তা দখল করে রেখেছে ফল ও সবজি ব্যবসায়ীরা। এছাড়া সেন্ট্রাল হাসপাতাল থেকে কোর্ট বিল্ডিং পর্যন্ত সড়কের পুরোটাই দখল করেছে হকার, সবজি, ফল ব্যবসায়ী ও বিভিন্ন প্রসাধনের দোকান। ক্লিনিকগুলোর সামনে কোনো পার্কিংয়ের ব্যবস্থা না থাকায় রাস্তার উপর রাখা হচ্ছে যানবাহন।

স্থানীয় এক ফল ব্যবসায়ী বলেন, পুলিশ ও স্থানীয় ক্যাডারদের দৈনিক ১০০-২০০ টাকা হারে চাঁদা দিয়েই তারা দোকান চালাচ্ছেন।

শহরের ভোলা বাবুর পেট্রোল পাম্প ক্রমে বিপজ্জনক হয়ে উঠছে পথচারী আর যানবাহনের জন্য। পান বাজার সড়কের সামনের রাস্তাটি অলিখিত গাড়ি পার্কিংয়ের জায়গায় পরিণত হয়েছে। মোড়ের এ পাশে গাড়ি চলতে পারে পাঁচ ফুটের মতো অংশে। অর্ধশতাধিক রিকশা, অটোরিকশা চালক এখানে যাত্রীর আশায় বসে থাকে। প্রায়ই দেখা যায়, ছোট বড় গাড়ি পার্ক করা। এখানে নিয়মিত দাঁড়িয়ে থাকে ব্যক্তিগত গাড়ি, মাইক্রোবাস ইত্যাদি। এছাড়া বিভিন্ন গণপরিবহন যাত্রী নামানোর জন্যও থামে এখানে। মোড় পর্যন্ত সড়কের দুপাশে ফুটপাত আছে কিন্তু দুর্ভোগও আছে সমানে। ফুটপাতের উপর এলোমেলো রাখা হয়েছে বিভিন্ন দোকানের মালামাল।

স্থানীয় বাসিন্দা শিবলি হোসেন ও আকবর আলী ক্ষোভ প্রকাশ করে বলেন, ‘পেট্রোল পাম্প ফল এবং হকার ব্যবসায়ীদের দখলে চলে গেলেও পথচারী কিংবা মানুষের দুর্ভোগের কথা কেউ ভাবছেন না। শহরকে যানজটমুক্ত করতে কক্সবাজার জেলা পুলিশ শহরে অবৈধ যানবাহন প্রবেশে বাধা দিতে ৩টি চেকপোস্ট বসিয়েছে কিন্তু তারপরও যানজট পরিস্থিতির উন্নতি হয়নি।ফুটপাতগুলোও হয়নি জবরদখল মুক্ত।

x