অবসর নিয়ে নতুন করে ভাবতে চান গেইল

স্পোর্টস ডেস্ক

শুক্রবার , ১ মার্চ, ২০১৯ at ৬:৪৮ পূর্বাহ্ণ

ইংল্যান্ডে আসন্ন ওয়ানডে বিশ্বকাপের পর এই ফরম্যাটের ক্রিকেটকে বিদায় জানাবেন ওয়েস্ট ইন্ডিজের মারকুটে ওপেনার ক্রিস গেইল। আগেই এই ঘোষণা দিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু গেইলযে পুরিয়ে যাননি তা আরো একবার প্রমাণ করলেন। ক্যারিবীয়ান এই বুড়ো দানব এখনো ২২ গজে ঝড় তুলছেন। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে আরেকবার গেইল তান্ডব দেখেছে ক্রিকেট বিশ্ব। দীর্ঘদিন পর ওয়ানডে দলে ফিরে গেইল ইংল্যান্ডের বিপক্ষে যেভাবে ব্যাট করেছেন, তাতে নিজের ঘোষিত অবসরের ঘোষণা নিয়ে দোটানায় পড়েছেন তিনি। ইংলিশদের বিপক্ষে ঝড়ো ১৬২ রানের অনবদ্য এক ইনিংস খেলার পর জানালেন, অবসর নাও নিতে পারেন তিনি। কারণটাও তো স্বাভাবিক। চলমান পাঁচ ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজের তিন ইনিংসে দ্বিতীয় সেঞ্চুরি করলেন এই বাঁহাতি ওপেনার। তিন ইনিংসে ১১৫.৬৬ গড় ও ১২০.০৬ স্ট্রাইক রেটে গেইলের রান ৩৪৭। ব্রায়ান লারার পর দ্বিতীয় উইন্ডিজ ব্যাটসম্যান হিসেবে ওয়ানডেতে ১০ হাজার রান পূর্ণ করেছেন গেইল। এই মাইলফলক স্পর্শ করা তিনি ১৪তম ব্যাটসম্যান। ইংল্যান্ডের বিপক্ষে ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্বিতীয় সর্বোচ্চ রান করেছেন তিনি। তার ১৪টি ছয়ে সাজানো ইনিংসে চড়ে ক্যারিবীয়ানরা ওয়ানডেতে তাদের সর্বোচ্চ রান তুলেছে। সিরিজের চতুর্থ ওয়ানডেতে প্রথম ইনিংসে ব্যাট করতে নেমে ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ৪১৯ রানের পাহাড় গড়েছিল ইংল্যান্ড। জবাবে ওয়েস্ট ইন্ডিজ থামে ৩৮৯ রান করে। বেন স্টোকসের বলে বোল্ড হয়ে ফেরার আগে ৯৭ বলে ১৬২ রানের বিস্ফোরক এক ইনিংস খেলেছেন গেইল। ১৪ ছক্কা আর ১১ চারে ১৬২ রান করা গেইল বুঝিয়েছেন এখনও ফুরিয়ে যাননি। ৫৫ বলে করা সেঞ্চুরিটা তার ওয়ানডে ক্যারিয়ারের দ্রুততম। আর উইন্ডিজ ব্যাটসম্যানদের মধ্যে দ্বিতীয় দ্রুততম। ১৯৯৯ সালে ৪৫ বলে বাংলাদেশের বিপক্ষে সেঞ্চুরি করেছিলেন ব্রায়ান লারা।
সিরিজ শুরুর আগে সব ধরনের ক্রিকেট মিলিয়ে মোট ৪৭৬টা ছক্কা ছিল গেইলের। ক্রিকেট ইতিহাসের সবচেয়ে বেশি ছক্কা মারার এই রেকর্ডে পাকিস্তানের শহীদ আফ্রিদির সঙ্গে যৌথভাবে প্রথম স্থানে ছিলেন তিনি। সিরিজের চতুর্থ ম্যাচ শেষে গেইলের ছক্কা ৩০টি। সব মিলিয়ে গেইলের ছক্কা এখন ৫০৬টি। আর সব ধরনের ক্রিকেট মিলিয়ে ৫০০ ছক্কা মারা প্রথম ক্রিকেটার তিনিই। কোনো ওয়ানডে সিরিজ বা টুর্নামেন্টেই এত বেশি ছক্কা মারার উদাহরণ নেই কারও। এর আগের রেকর্ডটা গেইলেরই ছিল। ২০১৫ বিশ্বকাপে ২৬টা ছক্কা মেরেছিলেন তিনি।
ম্যাচ শেষে গেইল জানান, আমার খেলা অন্যতম রোমাঞ্চকর ম্যাচ এটা। চমৎকার একটা ইনিংস ছিল। আমি অনেক বেশি টি-টোয়েন্টি ক্রিকেট খেলি। তাই ৫০ ওভারের ক্রিকেটে ফেরা সবসময় কঠিন। কিন্তু এই ফরম্যাটে নিজেকে মানিয়ে নিতে পারছি। আমাকে আরেকটু পরিশ্রম করতে হবে। হয়তো আরও অন্যরকম ক্রিস গেইলকে দেখবেন। সবকিছু দ্রুত পাল্টে যায়। আমি এখন ৪০ এর কাছাকাছি। অবসরের সিদ্ধান্ত থেকে সরে আসবো কিনা সেটা সময় বলে দেবে। এগুলো নিয়ে ধীরেসুস্থে ভাববো। ওয়ানডে ক্রিকেটে এ নিয়ে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে মোট ৭১টি ছক্কা মেরেছেন গেইল। কোনো নির্দিষ্ট প্রতিপক্ষের বিরুদ্ধে ওয়ানডেতে এত বেশি ছক্কা মারার রেকর্ড আর কারও নেই। পেছনে ফেলেছেন ভারতের রোহিত শর্মাকে। অস্ট্রেলিয়ার বিপক্ষে ৬৬টি ছক্কা মেরেছেন তিনি। আর শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আফ্রিদি মেরেছেন ৬৩টি ছক্কা। তবে, ওয়ানডেতে আফ্রিদির ছক্কা ৩৫১টি, গেইলের সেখানে ৩০৫টি।

x