কৌতুক কণিকা

বৃষ্টির দিনে গৃহকর্তা গৃহকর্মীকে

হাসিব, যা বাগানে গিয়ে ফুল গাছগুলোতে পানি দিয়ে আয়। স্যার, বাইরে তো বৃষ্টি হচ্ছে। বৃষ্টি হলে ছাতা নিয়ে যা।

কৌতুক কণিকা

আমাদের বিয়ের খবরটা আমি আগে পাশের বাড়ির জাবেদকে জানাবো। কেন? কারণ সে বলেছিল আমাকে নাকি গাধা ছাড়া কেউ বিয়ে করবে না।

কৌতুক কণিকা

দুধ থেকে দই বানানোর একটা সহজ পদ্ধতি বলো। স্যার, এই কোনো ব্যাপারই না। গাভীকে তেঁতুল খাইয়ে দিলেই হবে।

কৌতুক কণিকা

তেলের দোকানে ইনকামট্যাক্সের কর্মকর্তা আসতে পারে ভেবে মালিক কর্মচারীকে ২০ ড্রাম তেল মাটির তলার ঘরে লুকিয়ে রাখতে বলল। কতক্ষণ পর কর্মচারীটি এস মালিককে বলল, "স্যার,...

কৌতুক কণিকা

বলো তো আমরা কীভাবে আমাদের স্কুলকে পরিস্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে পারি আমরা স্কুল না এসে বাসায় বসে থাকতে পারি।

কৌতুক কণিকা

পড়ো "লেখাপড়া করে যে গাড়িঘোড়া চরে সে। কথাটা ঠিক না স্যার। কেন? আপনি তো অনেক লেখাপড়া করেছেন। তাহলে পড়াতে আপনি প্রতিদিন হেটেঁ আসেন কেন?

কৌতুক কণিকা

মামুনি, তুমি কোন ক্লাশে পড়? ক্লাশ থ্রি সেকেন্ড ইয়ার। মানে! ক্লাশ থ্রিতে দুই বছর ধরে পড়ছি তো তাই।

কৌতুক কণিকা

বলতো ফিজিক্স পড়তে এতো কঠিন লাগে কেন? কারন, নিউটনের মাথায় আপেলের বদলে নারিকেল বা তাল পড়েনি তাই!!

কৌতুক কণিকা

একটা দাঁত তোলার জন্য ৫শ' টাকা! এটাতো ২ মিনিটের কাজ। আপনি বললে আমি আধ ঘন্টা ধরে তুলতে পারি।

কৌতুক কণিকা

পাঁচটি পাখির নাম বলো। কাক, কাকের মা, কাকের বাবা, কাকের ভাই, কাকের বোন।

আরো খবর