প্রচ্ছদ শুভ নববর্ষ ১৪২৫

শুভ নববর্ষ ১৪২৫

মুখ ও মুখোশের বাংলা নববর্ষ

নববর্ষের দিন সন্ধ্যার আগে বাড়ি ফিরে যেতে বলেছেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী। নতুন কিছুনা। আগেও বলেছিলেন। এখন থেকে হয়তো সবসময় বলবেন। কিন্তু কেন? উৎসব বা আয়োজনের দিন...

বৈশাখে নীলাম্বরের গান

আমার ফসলি সাল আকবর বাদশার খাজনা,বক্র তে মাঠ জুড়ে সব ওলান বিহীন গাভী চণ্ডীর পূজোতে মঙ্গল মাগি;যুগান্তরের কালকেতু,ফুলরা । দেবীর বাসনার পাপ, ছায়ার প্রেমে দিওনা...

আমি তো আমার কথাই

আমি তো আমার কথাই বলতে চাচ্ছি- কিন্তু বারবার এসে যাচ্ছে ঝড়ের কথা। আমি তো আমার কথাই বলতে চাচ্ছি- বড় বেলা। কিন্তু বারবার এসে যাচ্ছে শিশুকাল- কিশোর বেলা। পয়লা বৈশাখ মনে হয় স্মৃতির...

পলিথিন হাই তোলে

ওই তো নিয়নফুল ফুটে আছে নিশিথিনী কুমারীর কোলে। আয় ঘুম, নিয়নের চোখে ঘুম আয় নিশিথিনী দূরপারে যাবে ডাস্টবিন বুকে নেবে চুষে নেবে সিফিলিস বিষ। পলিথিন হাই তোলে আধোঘুম নিয়নের চোখে ঢেউ খেলে...

অগস্ত্য-যাত্রা

সময়ের ঘোড়দৌড় পেরিয়ে যায় ছেলেবেলার মাঠ, ঝরা-পাতার যাদুঘর-কপাটে-খিলানে সূচিশিল্পের জ্যোৎস্নায় সেলাই হয় দীর্ঘশ্বাস, পোষা পালঙ্কে রণের নদীতে ক্রমে পড়ে যায় চরা। মাঝে মাঝে বাস্তুসাপ জাগে, পদ্মবনে ঢালতে চায়...

বৃষ্টি, বৃষ্টি

হৃদয়ের ওপর নদী বয়ে যায় আমাদের দুজনের মধ্যে বর্ষা একবার থমকে দাঁড়িয়ে ছিলো আমরা তুলোর মতোন অজস্ত্র শাদার ভিতর স্বপ্নের মতোন উড়ছিলাম। আমাদের জন্মস্থান সমুদ্রের ঘূর্ণিপাকে বাষ্প হয়ে উড়ে যাওয়া দেখছিল...

ভেতরে জলের টান

ভেতরে জলের টান কে যায়? ডুবে যায়! তুমুল আত্ম-অভিমানে! আহা আমাদের অতীত! স্মৃতির কবাটে পড়েছে ধুলোবালির খিল! এসো সখা হাত ধরি ডুবে যাই আজো একবার বিস্মৃত অতীত অবয়বে। অন্ধ বন্ধ দরজাকবাটে মাটিচাপা দিয়ে ফের...

মুখ না, শুধু হাত

মুখ না, শুধু হাত দেখেছি আজ হাতে মূদ্রার নাচ, যেন সমুদ্রের ঢেউ ধুকপুক পৃথিবী বাজছিল মনে গোপনে কথা বলছিল খু্‌ব পরিচিত কেউ আমার অবস্থান ছিল কিছু...

ভ্রূণের মায়া

নিশ্চুপ রাতে অজানা ফুলের সুবাসে খুলে যায় দেহের ফণা। প্ররোচনার আলোয় জাগে রক্তচক্ষুু মায়া। আলো থেকে খসে পড়ে এক-একটি জীবনের ভ্রূণ। ভ্রূণের বাগানে গুনে...

ভ্রূণের মায়া

নিশ্চুপ রাতে অজানা ফুলের সুবাসে খুলে যায় দেহের ফণা। প্ররোচনার আলোয় জাগে রক্তচক্ষুু মায়া। আলো থেকে খসে পড়ে এক-একটি জীবনের ভ্রূণ। ভ্রূণের বাগানে গুনে...

আরো খবর