৮ মহানগর আদালতে ৩১ হাজার মামলা

সবুর শুভ

বৃহস্পতিবার , ১৩ জুন, ২০১৯ at ৫:০২ পূর্বাহ্ণ
55

মামলার চাপে হিমশিম অবস্থা ৮ মহানগর ম্যাজিস্ট্রেট আদালতে। বিচারের জন্য এসব বিচারকের সামনে রয়েছে ৩১ হাজারেরও বেশি মামলা। গত মে মাসের মামলার বিবরণী থেকে এ তথ্য উঠে এসেছে। মহানগর ম্যাজিস্ট্রেসির ৮ আদালতে বিচারক সংকট না থাকলেও মামলার সংখ্যা বেড়ে চলেছে। অপরাধের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় বিচারাধীন মামলার সংখ্যাও বাড়ছে বলে জানালেন মুখ্য মহানগর হাকিম আদালতে রাষ্ট্রপক্ষে দায়িত্ব পালনকারী অতিরিক্ত মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট আবিদ হোসেন।
২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত বিচারাধীন মোট মামলার সাথে গত মে মাসের মামলার তথ্য মিলালে দেখা যায়, চলতি বছরের গেল ৫ মাসে (মে মাস পর্যন্ত ) নতুন মামলা যোগ হয়েছে ১ হাজার ৪৮৪টি।
পরিসংখ্যান অনুযায়ী, প্রতিমাসে ২৯৭টি করে মামলা যোগ হয়েছে। ২০১৮ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত ৮ আদালতে যেখানে মামলার সংখ্যা ছিল ২৯ হাজার ৬১৫টি, সেখানে গত মে মাসের সর্বশেষ স্থিতি হচ্ছে ৩১ হাজার ৯৯টি।
এদিকে গত মে মাসে মামলা দায়ের ও নিষ্পত্তির বিবরণীর তথ্য মতে, মহানগর ম্যাজিস্ট্রেসিতে মে মাসে মামলা দায়ের হয় ২ হাজার ৮৮২টি। অন্যভাবে বিচারের জন্য এসেছে ৩০৭ মামলা। এর মধ্যে দোতরফা সূত্রে নিষ্পত্তি হয়েছে ৩০৮ মামলা। অন্যভাবে নিষ্পত্তি হওয়া মামলার সংখ্যা ২ হাজার ১৫০টি। এক্ষেত্রেও দায়েরের তুলনায় ৭৩১টি মামলা কম নিস্পত্তি হয়েছে।
এ বিষয়ে অতিরিক্ত মহানগর পিপি অ্যাডভোকেট আবিদ হোসেন জানান, মুখ্য মহানগর হাকিমের নেতৃত্বে মেট্রো ম্যাজিস্ট্রেসির ৮টি আদালতে বর্তমানে পুরোমাত্রায় বিচারিক কার্যক্রম চলছে। কিন্তু মামলা দায়েরের সংখ্যা বৃদ্ধির কারণে বিচারাধীন মামলাও বেড়ে যাচ্ছে।
তথ্য অনুযায়ী, বর্তমানে মহানগর ম্যাজিস্ট্রেসির ৮টির মধ্যে সিএমএম হিসেবে দায়িত্বে রয়েছেন মোহাম্মদ ওসমান গণি। তাঁর নেতৃত্বে রয়েছেন অতিরিক্ত মুখ্য মহানগর হাকিম (এসিএমএম) মহিউদ্দিন মুরাদ, মহানগর হাকিম আবু ছালেম মোহাম্মদ নোমান, খায়রুল আমিন, মোহাম্মদ শফি উদ্দিন, মোহাম্মদ আল ইমরান খান, সারোয়ার জাহান ও মেহনাজ রহমান। ২০১৮ সালের ১ জানুয়ারি থেকে ৩১ ডিসেম্বর পর্যন্ত পাওয়া এক বছরের হিসাবে উল্লেখিত ৮ আদালতে মামলা রয়েছে ২৯ হাজার ৬১৫টি। এর মধ্যে ফৌজদারি আপিল রয়েছে ১৬টি, সিআর মামলা রয়েছে ১১ হাজার ৭৪৯টি, জিআর মামলা ১৪ হাজার ৫১৭, নন-জিআর মামলা ১ হাজার ৬০৫, বিটিসিএল এর মামলা রয়েছে ১ হাজার ৬৪৬, পিউর ফুড সংক্রান্তে মামলা রয়েছে ৪২ ও ফৌজদারি মিচ মামলা ৪০টি।
এ ব্যাপারে মহানগর হাকিম আদালতে রাষ্ট্রপক্ষের দায়িত্ব পালনকারী এপিপি অ্যাডভোকেট মোহাম্মদ ওসমান উদ্দিন জানান, মহানগরে অপরাধের মাত্রা বেড়ে যাওয়ায় আদালতে মামলার সংখ্যাও বেড়েছে। তবে মহানগর হাকিম আদালতগুলোতে বিচারক সংকট না থাকায় মামলাজট কমার আশা করছেন সরকারি এ আইন কর্মকর্তা।

x