৩৮নং ওয়ার্ডে ওয়াসার সংযোগ লাইন স্থাপনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিন : সুজন

শুক্রবার , ১৬ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ at ৮:৪৮ পূর্বাহ্ণ
71

নগরীর বিভিন্ন এলাকায় বিভিন্ন ধরনের নাগরিক সমস্যা চিহ্নিতকরণ এবং তা থেকে পরিত্রাণের লক্ষ্যে কর্মপন্থা নির্ধারণের জন্য জনদুর্ভোগ লাঘবে জনতার ঐক্য চাই শীর্ষক নাগরিক উদ্যোগের প্রধান উপদেষ্টা ও মহানগর আওয়ামী লীগের সহসভাপতি খোরশেদ আলম সুজন গতকাল বৃহস্পতিবার চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী কে এম ফয়জুল্লাহর সাথে তাঁর দফতরে সাক্ষাত করেন। এ সময় সুজন বলেন, ৩৮নং দক্ষিণ মধ্য হালিশহর ওয়ার্ডটি ঘনবসতির দিক থেকে চট্টগ্রামের মধ্যে একটি দ্বিতীয় জনবহুল ওয়ার্ড। এ ওয়ার্ডে প্রায় ৫ লক্ষাধিক লোকের বসবাস। এ ওয়ার্ড ঘেষেই দেশের বৃহত্তম রপ্তানি প্রক্রিয়াজাতকরণ এলাকা সিইপিজেড অবস্থিত। সঙ্গত কারণেই এ ওয়ার্ডে দেশের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিভিন্ন শ্রেণী পেশার মানুষ এসে জীবন ও জীবিকার তাগিদে বসবাস করে। কিন্তু অত্যন্ত দুঃখের বিষয় এই ওয়ার্ডের বিভিন্ন এলাকায় ওয়াসার সংযোগ লাইন নেই যে কারণে এ বৃহৎ জনগোষ্ঠীকে সুপেয় পানির আশায় টিউবওয়েল, পাম্প এবং মিনারেল পানির উপর নির্ভর করতে হয়। যেহেতু এই ওয়ার্ডটি সমুদ্র উপকূলবর্তী এলাকার পাশে অবস্থিত সেহেতু বিশাল সংখ্যক জনসাধারণকে বাধ্য হয়েই টিউবওয়েলের নোনা পানি পান করতে হয়। যাদের স্বচ্ছলতা আছে তারা হয় মিনারেল পানি অথবা ওয়াসার সরবরাহ এলাকা থেকে বেশী মূল্যে কন্টেইনার ভর্তি পানি কিনতে বাধ্য হচ্ছে। তাই অতিসত্ত্বর ৩৮নং ওয়ার্ডের যে সকল পাড়া মহল্লায় ওয়াসার সংযোগ লাইন নেই সে সকল এলাকায় সংযোগ লাইন স্থাপনের জন্য ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালকের দৃষ্টি আকর্ষণ করেন। গ্রাহকের মৃত্যুর পর তার ওয়ারিশগণের অনূকুলে নাম পরিবর্তনে প্রশাসনিক জটিলতা নিরসন এবং গ্রাহক সেবা বৃদ্ধির জন্যও তিনি ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালকের প্রতি আহ্বান জানান। তাছাড়া ৪০নং উত্তর পতেঙ্গা এবং ৪১নং দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ড নগরীর অন্যতম দুইটি গুরুত্বপূর্ণ ওয়ার্ড। এ ওয়ার্ড দুইটিতে বিভিন্ন সরকারি এবং বেসরকারি গুরুত্বপূর্ণ স্থাপনা অবস্থিত। দেশের অন্যতম বৃহত্তম নৌ ও বিমান ঘাঁটির অবস্থান এই দুই ওয়ার্ডে। এই দুই ওয়ার্ডের কোল ঘেষে দেশের প্রধানতম তেল শোধনাগার অবস্থিত। দেশের অন্যতম বৃহত্তম আর্ন্তজাতিক বিমান বন্দরের অবস্থান ৪১নং দক্ষিণ পতেঙ্গা ওয়ার্ডে। এই দুই ওয়ার্ডেও ওয়াসার সংযোগ লাইন আছে কিন্তু কোন প্রকার পানির সঞ্চালন নেই। সে কারণে এই দুই ওয়ার্ডের কয়েক লক্ষাধিক জনসাধারণকেও অবর্ণনীয় দুর্দশায় দিনাতিপাত করতে হচ্ছে। চট্টগ্রাম ওয়াসার ব্যবস্থাপনা পরিচালক নানাবিধ সমস্যার কথা শুনেন এবং দ্রুত সমাধানের লক্ষ্যে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য ওয়াসার তত্ত্বাবধায়ক প্রকৌশলী ইঞ্জিনিয়ার মোঃ আরিফুল ইসলামকে তাৎ নিক নির্দেশ প্রদান করেন।

তিনি বলেন, প্রধানমন্ত্রীর ঐকান্তিক ইচ্ছা ও দিকনির্দেশনায় স্বল্প সময়ে চট্টগ্রামের জনগণ পানি সমস্যার সমাধান থেকে মুক্তি লাভ করবে যা প্রধানমন্ত্রীর চট্টগ্রামের প্রতি আন্তরিকতার বহিঃপ্রকাশ। তিনি এ বছরের মধ্যেই ওয়াসার কাজ সমাপ্ত করার মাধ্যমে নগরবাসীকে সুপেয় পানি সরবরাহের আশ্বাস দেন। এ সময় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন ওয়াসার সিবিএ সভাপতি মোঃ সালাউদ্দিন, সাধারণ সম্পাদক তাজুল ইসলাম, নাগরিক উদ্যোগের সদস্য সচিব হাজী হোসেন কোম্পানি, হালিশহর কলতান সংঘের সাধারণ সম্পাদক মোঃ কামাল উদ্দিন, আব্দুল আজিম, মোঃ শাহজাহান, মোরশেদ আলম, অধ্যক্ষ মোঃ কামরুল হোসেন, সমীর মহাজন লিটন, সফি আলম বাদশা, স্বরূপ দত্ত রাজু, সুমন দে বাবু, মোঃ কাইয়ুম, মোঃ অভি, মোঃ রিফাত, মোঃ সিফাত প্রমূখ। পরে মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নেতৃত্বে চলমান উন্নয়নের ধারা অব্যাহত রাখার প্রত্যয়ে মোনাজাত করা হয়। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x