১০ লাখ টন চাল রপ্তানির চিন্তা

ফণীতে ফসলের ক্ষতি সাড়ে ৩৮ কোটি টাকা

বুধবার , ৮ মে, ২০১৯ at ৬:৪৩ পূর্বাহ্ণ
168

দেশে চাহিদা মেটানোর পর উদ্বৃত্ত থাকায় ৫ থেকে ১০ লাখ মেট্রিক টন বোরো চাল রপ্তানির চিন্তা রয়েছে সরকারের। ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে কৃষিতে ক্ষয়ক্ষতির তথ্য জানাতে গতকাল মঙ্গলবার সচিবালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক এই তথ্য জানান।
তিনি বলেন, বোরো ধান কাটা হয়ে গেলে ১৫-২০ দিন পর সবার সঙ্গে আলোচনা করে সিদ্ধান্ত নেব এবার ৫-১০ লাখ টন চাল রপ্তানি করা যায় কি না। এই চাল রপ্তানি করলে কোনো অসুবিধা হবে না। আমরা আন্তর্জাতিক বাজারে যেতে পারব, দেশের ভাবমূর্তিও বাড়বে। খবর বিডিনিউজের।
তবে চাল রপ্তানির পর কোনো কারণে সংকট দেখা দিলে আমদানিও করা যাবে বলে মত দেন কৃষিমন্ত্রী। বর্তমানে ধান উদ্বৃত্ত রয়েছে জানিয়ে তিনি বলেন, বোরো সঠিকভাবে ঘরে তুলতে পারলে আরও উদ্বৃত্ত হবে। দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত করে উদ্বৃত্ত ধান রপ্তানি করতে পারব। তবে কতটুকু ধান বর্তমানে উদ্বৃত্ত আছে সংবাদ সম্মেলনে সে তথ্য জানানে পারেননি রাজ্জাক।
সরকার এ বছর ১০ লাখ মেট্রিক টন সিদ্ধ বোরো চাল কিনছে প্রতিকেজি ৩৬ টাকায়, যা গতবারের থেকে দুই টাকা কম। এছাড়া অগাস্ট পর্যন্ত সরকারিভাবে ৩৫ টাকা কেজি দরে আরও দেড় লাখ টন বোরোর আতপ চাল, ২৬ টাকা কেজিতে দেড় লাখ টন বোরো ধান এবং ২৮ টাকা কেজি দরে ৫০ হাজার মেট্রিক টন গম কেনার কথা এর আগে জানিয়েছিলেন খাদ্যমন্ত্রী সাধন চন্দ্র মজুমদার।
এদিকে ঘূর্ণিঝড় ফণীর কারণে ৩৮ কোটি ৫৪ লাখ দুই হাজার ৫০০ টাকার ফসলের ক্ষতি হয়েছে বলে জানিয়েছেন কৃষিমন্ত্রী আব্দুর রাজ্জাক। সচিবালয়ে গতকাল এক সংবাদ সম্মেলনে তিনি বলেন, দেশের ৩৫ জেলার ২০৯টি উপজেলার ৬৩ হাজার হেক্টর জমির বোরো, সবজি, ভুট্টা, পাট ও পান ফসলের আংশিক ক্ষতি হয়েছে। এর মধ্যে ৫৫ হাজার ৬০৯ হেক্টর জমির বোরো ধান, তিন হাজার ৬৬০ হেক্টরের সবজি, ৬৭৭ হেক্টর জমির ভুট্টা, ২ হাজার ৩৮২ হেক্টর জমির পাট এবং ৭৩৫ হেক্টর জমির পানের ক্ষতি হয়েছে বলে জানান মন্ত্রী। তিনি বলেন, ঘূর্ণিঝড়ের কারণে ১৩ হাজার ৬৩১ জন কৃষকের ক্ষতিগ্রস্ত হওয়ার তথ্য সরকারের হাতে এসেছে। কৃষকের ক্ষতি পুষিয়ে দিতে স্বল্প ও দীর্ঘমেয়াদী প্রণোদনামূলক কর্মসূচি হাতে নেওয়া হবে।

x