হুমায়ুন কবির : সমাজ, সংস্কৃতি ও রাজনীতির বস্তুনিষ্ঠ গবেষক

রবিবার , ১৮ আগস্ট, ২০১৯ at ৭:২৮ পূর্বাহ্ণ
12

সাহিত্য ও দর্শন চিন্তায় মুক্তবুদ্ধি ও অসাম্প্রদায়িক রাজনৈতিক চেতনার অনুসারী হিসেবে অনায়াস কাজ করে গেছেন বিশিষ্ট লেখক ও রাজনীতিবিদ হুমায়ুন কবির। দীর্ঘ রাজনৈতিক জীবনে তিনি নানা সময়ে বিভিন্ন গুরুত্বপূর্ণ পদে অধিষ্ঠিত থেকেছেন। কিন্তু চিন্তা ও জীবন দর্শনে ছিলেন সৎ ও বিবেকবান। কখনোই আপোষ করেননি অন্যায়ের সাথে। আজ তাঁর অর্ধশত মৃত্যুবার্ষিকী।
হুমায়ুন কবিরের জন্ম ১৯০৬ সালের ২২ ফেব্রুয়ারি ফরিদপুর জেলার কোমরপুর গ্রামে। বাবা খান বাহাদুর কবিরুদ্দিন আহমদ ছিলেন জেলা ম্যাজিস্ট্রেট। নওগাঁ কে বি স্কুল থেকে প্রবেশিকা পাশ করে কলকাতা প্রেসিডেন্সি কলেজ থেকে উচ্চ মাধ্যমিক সমাপ্ত করেন। বি.এ অনার্স ও এম.এ-তে তাঁর বিষয় ছিল ইংরেজি। ছাত্র জীবনে সকল পরীক্ষাই অত্যন্ত কৃতীত্বের সাথে উত্তীর্ণ হন হুমায়ুন কবির। পরবর্তী সময়ে সরকারি বৃত্তি নিয়ে উচ্চ শিক্ষার উদ্দেশ্যে লন্ডনে যান এবং অঙফোর্ড থেকে দর্শন, ইতিহাস ও অর্থনীতিতে প্রথম শ্রেনিতে প্রথম হয়ে অনার্স ডিগ্রি লাভ করেন। দেশে ফিরে অন্ধ্র বিশ্ববিদালয়ে দর্শনের প্রভাষক হিসেবে যোগ দেন। পরবর্তী সময়ে কলকাতা বিশ্ববিদ্যালয়ে নিযুক্ত হয়ে দীর্ঘকাল এখানেই শিক্ষকতা করেছেন। রাজনৈতিক জীবনে বঙ্গীয় সরকারের প্রধানমন্ত্রী এ. কে ফজলুল হকের রাজনৈতিক সচিব ছিলেন তিনি। ভারত সরকারের শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের যুগ্ম সচিব, ভারতের প্রথম বিশ্ববিদ্যালয় গ্র্যান্টস কমিশনের চেয়্যারম্যান, ভারত সরকারের শিক্ষা সচিব সহ নানা গুরুত্বপূর্ণ পদে সনিষ্ঠ দায়িত্ব পালন করেছেন। পরবর্তী সময়ে সরকারি চাকরি ছেড়ে কংগ্রেসের রাজনীতিতে যোগ দেন। কংগ্রেসের মনোনয়নে ভারতীয় রাজ্যসভার সদস্য, বেসামরিক বিমান চলাচল প্রতিমন্ত্রী, ভারতীয় লোকসভার সদস্য, শিক্ষা মন্ত্রী সহ বিভিন্ন দায়িত্বপূর্ণ পদে নিরলস কাজ করেছেন। পাশাপাশি করেছেন সাহিত্য চর্চা। সাহিত্য ও রাজনীতিতে তাঁর দৃষ্টিভঙ্গি ছিল মানবতাবাদী, অসাম্প্রদায়িক ও মুক্তচিন্তার। সাহিত্য ও সংস্কৃতি বিষয়ক ত্রৈমাসিক পত্রিকা ‘চতুরঙ্গ’র প্রকাশক ও সম্পাদক ছিলেন হুমায়ুন কবির। তাঁর রচিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থসমূহের মধ্যে রয়েছে : ‘ধারাবাহিক’, ‘শরৎ সাহিত্যের মূলতত্ত্ব’, ‘মার্কসবাদ’, ‘বাংলার কাব্য’, ‘মিরজা আবু তালিব খান’, ‘মুসলিম পলিটিকস ইন বেঙ্গল’, ‘দ্য এডুকেশন ইন ইন্ডিয়া’, ‘স্বপ্নসাধ’, ‘সাথী’, ‘অষ্টাদশী’, ‘নদী ও নারী’ প্রভৃতি। ১৯৬৯ সালের ১৮ আগস্ট হুমায়ুন কবির প্রয়াত হন।

x