সড়ক মেরামতের আবেদন

শুক্রবার , ৮ জুন, ২০১৮ at ৪:৫৪ পূর্বাহ্ণ
33

অবস্থা দেখে মনে হয় এটা বাংলাদেশের সীমান্ত সংলগ্ন কোন একটি ছিটমহল। “বন্দর এলাকার সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ এই পোর্ট কানেকটিং সড়কটি” অথচ উন্নয়নের নামে এই সামান্য অংশটুকুর কাজ দীর্ঘ সময় ধরে চলছে। যার কারণে সাধারণ মানুষের অভাবনীয় দুর্ভোগ পোহাতে হচ্ছে। এই সামান্যতম কাজটুকু চট্টগ্রামের দুই প্রধান সংস্থা শেষ করতে পারে না। সেখানে উন্নয়নের মহাযজ্ঞের কাজ কখন শেষ করা হবে?

এবছর বেশী কিছু প্রত্যাশা নয়” সিডিএ চেয়ারম্যান সাহেব বলেছেন। এত দিন আমরা শুনে আসছি। চট্টগ্রামে উন্নয়নের মহাযজ্ঞ চলছে। কিছু দিন আগে একজন লেখক তার লিখায়, লিখেছিলেন ২/১ ফ্লাইওভার ২/১টা বেড়িবাঁধকে উন্নয়নের মহাযজ্ঞ বলে না। এখন নগরবাসীর কথা হলো ফ্লাইওভার এর পিছে বর্ষার ও জোয়ারের পানিতে নগরবাসী ভাসবে। এই বর্ষায় তার কোন কুল কিনারা হলো না। অথচ কথায় কথায় বলা হয় উন্নয়নের মহাযজ্ঞ চলছে। প্রকৃত উন্নয়নে নজর দিন। ইতিমধ্যে সিডিএ আবাসিক এলাকায় জোয়ারের পানি ওঠা শুরু হয়ে গেছে। সামনে বর্ষা কি অবস্থা হয় আল্লাহ জানেন। তাই জরুরি প্রস্তাব হলো মহেশখালের খনন অন্তত পাঁচফুট মাটি খনন করতে হবে। খালে পানির ধারণ ক্ষমতা বাড়াতে হবে। বর্তমানে পুলের বিভিন্ন স্থানের আবর্জনাস্তূপ সরাতে হবে। পোর্ট কানেকটিং সড়ক দিন রাত কাজ করে চলাচলের উপযোগী করতে হবে। মাননীয় প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশে পতেঙ্গা সড়কের তিনটি ব্রিজ এর কাজ যেভাবে শেষ করা হয়েছিল। সেইভাবে এই পোর্ট কানেকটিং সড়ক ও আগ্রাবাদে এক্সেস সড়ক কাজ শেষ করতে হবে। তা হলে বলা হবে চট্টগ্রামে সত্যিকার অর্থে উন্নয়নের মহাযজ্ঞ চলছে।

মাসুদ করিম, বন্দর, চট্টগ্রাম।

x