স্পেনে ঈদুল আজহা পালিত

কবির আল মাহমুদ, স্পেন থেকে

রবিবার , ১১ আগস্ট, ২০১৯ at ৫:০২ অপরাহ্ণ
70

স্পেনের রাজধানী মাদ্রিদে উৎসবমুখর পরিবেশে ঈদুল আজহা পালন করেছেন প্রবাসী বাংলাদেশিরা। স্থানীয় সময় রবিবার  স্পেনে বসবাসরত মুসলমান প্রবাসীরা এ ধর্মীয় উৎসব নিজেদের মধ্যেই ভাগাভাগি করে নেন।

রাজধানী শহর মাদ্রিদ, পর্যটন নগরী বার্সেলোনাসহ স্পেনের বিভিন্ন শহরে ছড়িয়ে থাকা প্রবাসী বাংলাদেশিরা ঈদের নামাজ আদায়, একে অপরের বাসায় গিয়ে ঈদের কুশল বিনিময় করে ঈদের দিনটি আনন্দময় করার চেষ্টা করেন। তবে স্পেনে ঈদের দিন সরকারি ছুটি না থাকায় নামাজ আদায় করেই অনেককেই কাজে ছুটতে দেখা গেছে।

মাদ্রিদের প্রাণকেন্দ্র লাভা-পিয়াসের কাসিনো পার্কে খোলা মাঠে ঈদ জামাত আদায় করেন প্রবাসীরা।

অন্যান্য বছরের মতো এবারও সরকারিভাবে অনুমতি নিয়ে কাসিনো পার্কে হাজারো মুসল্লির উপস্থিতিতে ঈদ জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

দেশটিতে বসবাসরত বাংলাদেশিরা মিলে একসঙ্গে ভাগাভাগি করে নেন ঈদের আনন্দ।

সুন্দর আবহাওয়া তাদের ঈদের আনন্দ আরও বাড়িয়ে দেয়।

ঈদের নামাজ শেষে একে অপরের সঙ্গে কোলাকুলি ও কুশল বিনিময় করেন প্রবাসী মুসলিমরা।

শত ব্যস্ততার মাঝে এই একটা দিন প্রবাসী সবাই মিলিত হন উৎসবের আমেজে।

গ্রীষ্মকালীন ছুটি থাকায় এবারের ঈদুল আজহায় প্রবাসী বাংলাদেশি শিশু-কিশোরদের মধ্যে বেশ উৎসাহ এবং একটা উৎসবের আমেজ দেখা যায়। অনেকে সপরিবারে লম্বা ছুটিতে দেশে রয়েছেন।

ঈদের দিন বাংলাদেশিদের পাশাপাশি বিশ্বের বিভিন্ন দেশের ধর্মপ্রাণ মুসলমানরাও কাসিনো পার্কে জড়ো হয়ে ঈদের নামাজ আদায় করেন।

মাদ্রিদে বাংলাদেশি অধ্যুষিত লাভা-পিয়াসের বায়তুল মুকাররম বাংলাদেশি মসজিদ পরিচালনা কমিটির আয়োজনে পার্কে কাসিনোর খোলা ময়দানে স্থানীয় সময় সকাল সাড়ে ৭টায় এবং সাড়ে ৮টায় দু’টি জামাতে বাংলাদেশ, পাকিস্তান, মরক্কো, সেনেগালসহ বেশকিছু দেশের কয়েক হাজার মুসল্লি অংশ নেন।

নামাজ শেষে খুতবায় বিশ্ব মুসলমানদের শান্তি ও সমৃদ্ধি কামনা করা হয়।

স্পেনে বাংলাদেশ দূতাবাস প্রধান এম হারুন আল রাশিদ সহ স্থানীয় কমিউনিটির নেতারা ঈদের নামাজ আদায় করেন ও সবার সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

স্পেনের সবচেয়ে বড় মসজিদ ভেনতাসে সকাল ৮টায় ঈদের বৃহত্তম জামাত অনুষ্ঠিত হয়েছে।

স্পেনে বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত হাসান মাহমুদ খন্দকার, বাণিজ্যিক সচিব রেদওয়ান আহমেদ, প্রথম সচিব (শ্রম) শরিফুল ইসলামসহ কমিউনিটির নেতারা ঈদের নামাজ আদায় করেন ও সকলের সঙ্গে কুশল বিনিময় করেন।

এছাড়া মালাগা, আলিকান্তে, মুরছিয়া, সেভিলা, গ্রানাদা, করদুভাসহ অনেক শহরে ঈদের জামাত অনুষ্ঠিত হওয়ার খবর পাওয়া গেছে।

পর্যটননগরী বার্সেলোনায় শাহ জালাল জামে মসজিদে অনুষ্ঠিত ঈদের তিনটি জামাতেই ছিল প্রবাসী বাংলাদেশিদের উপচে পড়া ভিড়। ঈদের নামাজের দু’টি জামাত মসজিদে ও একটি জামাত মসজিদ সংলগ্ন খালি ময়দানে আয়োজন করে মসজিদ পরিচালনা কমিটি। সকাল পৌনে ৮টা, সোয়া ৮টা এবং সোয়া ৯টায় অনুষ্ঠিত হয় ঈদের নামাজের জামাতগুলো।

এছাড়া লতিফিয়া ফুলতলী জামে মসজিদে সকাল সাড়ে ৭টায়, সোয়া ৮টায় ও ৯টায় ঈদের নামাজের তিনটি জামাত অনুষ্ঠিত হয়।

ঈদের নামাজ আদায় করতে আসা বাঙালিদের মিলনমেলায় পরিণত হয় মসজিদের আশপাশ।

মোনাজাত শেষে প্রবাসীরা শুভেচ্ছা বিনিময় আর নিজেদের মাঝে সুখ-দুঃখ ভাগাভাগি করে কিছুটা হলেও খুঁজে পান শিকড়ের টান। কেউ কেউ জানান গ্রীষ্মের ছুটি থাকায় এবারের ঈদে যোগ হয়েছে বাড়তি আনন্দ।

এই ঈদে কেনাকাটার চেয়ে মুসলমানেরা পশু কোরবানি নিয়ে ব্যস্ত থাকেন বেশি কিন্তু স্পেনের আইন অনুযায়ী প্রকাশ্যে পশু কোরবানি দেয়া যায় না। তাই মাংস ব্যবসায়ীদের মাধ্যমে বাংলাদেশিরা কোরবানি দেন।

x