স্কুল কমিটি অনুমোদনে লেনদেনের অভিযোগ

তদন্তে তিন সদস্যের কমিটি

আজাদী প্রতিবেদন

শনিবার , ১৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৭:০০ পূর্বাহ্ণ
210

একটি বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটি (এডহক) অনুমোদন এবং এ সংক্রান্ত চিঠি পেতে নগদ ও পণ্যসামগ্রী মিলিয়ে মোট ১১ হাজার টাকা খরচ করতে হয়েছে স্কুল সংশ্লিষ্টদের। আর এই টাকা ও পণ্য সামগ্রী দিতে হয়েছে জাহেদ হোসেন নামে শিক্ষাবোর্ডের এক কর্মচারিকে। জাহেদ হোসেন বোর্ডের বিদ্যালয় শাখায় অফিস সহকারী হিসেবে কর্মরত। এ নিয়ে শিক্ষাবোর্ডে লিখিত অভিযোগ করেছেন টেকনাফের মারিশ বনিয়া এসএসডিপি মডেল উচ্চ বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির (এডহক) সভাপতি সাইফুল কাদের।
অভিযোগের প্রেক্ষিতে তিন সদস্যের তদন্ত কমিটি গঠন করেছে শিক্ষাবোর্ড কর্তৃপক্ষ। গত ২৮ আগস্ট শিক্ষাবোর্ডের সচিব প্রফেসর শওকত আলম স্বাক্ষরিত এক অফিস আদেশে এ কমিটি গঠন করা হয়। বোর্ডের উপ-পরিচালক (হিসাব ও নিরীক্ষা) নারায়ন চন্দ্র নাথকে এ কমিটির আহবায়ক করা হয়েছে। আর বোর্ডের সহকারী সচিব মোহাম্মদ সাইফুদ্দিন ও সহকারী কলেজ পরিদর্শক মো. আলী আকবর কমিটির সদস্য। ৭ কর্মদিবসের মধ্যে তদন্ত কমিটিকে এ সংক্রান্ত প্রতিবেদন জমা দিতে বলা হয়। অভিযোগ এবং এর প্রেক্ষিতে তদন্ত কমিটি গঠনের তথ্য আজাদীকে নিশ্চিত করেছেন শিক্ষাবোর্ডের চেয়ারম্যান প্রফেসর শাহেদা ইসলাম।
লিখিত অভিযোগে সাইফুল কাদের দাবি করেন, বিদ্যালয় কমিটির অনুমোদন বিষয়ে নগদ ৭ হাজার টাকা কর্মচারি জাহেদ অনৈতিকভাবে আদায় করেন। এছাড়া শুটকি ও মোরগসহ পণ্য বাবদ খরচ হয় ৪ হাজার টাকা। গত ১২ জুলাই রাত ৮টার দিকে নগরীর নিউমার্কেট মোড়ের জামান হোটেলে (২য় তলায়) এই পণ্যসামগ্রী ও নগদ টাকা জাহেদের হাতে হস্তান্তর করা হয়। চকরিয়া দিগর পানখালী হাই স্কুলের সিনিয়র শিক্ষক শফিকুর রহমান আজাদ লেনদেনের সময় উপস্থিত ছিলেন। ওই হোটেলে রাতের খাবার খাওয়ার পর জাহেদ হোসেন কমিটি অনুমোদনের চিঠি হস্তান্তর করেন বলে অভিযোগনামায় দাবি করেছেন বিদ্যালয়ের ম্যানেজিং কমিটির সভাপতি সাইফুল কাদের। এদিকে ইতোমধ্যে অভিযোগকারী ও অভিযুক্তের বক্তব্য গ্রহণ করেছেন বলে জানিয়ছেন তদন্ত কমিটির আহবায়ক নারায়ন চন্দ্র নাথ। লিখিত ১১ পৃষ্ঠার ১ম কলাম
বক্তব্যে জাহেদ হোসেন লেনদেনের বিষয়টি অসত্য দাবি করেছেন জানিয়ে বোর্ডের উপ-পরিচালক (হি: ও নি:) নারায়ন চন্দ্র নাথ বলেন, অভিযোগকারীও এসেছিলেন। তবে তিনি স্বাক্ষী আনতে পারেননি। সোমবার (১৬ সেপ্টেম্বর) অভিযোগকারীকে পুনরায় স্বাক্ষী নিয়ে আসতে বলা হয়েছে। ওই দিন স্বাক্ষ্য গ্রহনের পর তদন্ত প্রতিবেদন জমা দেওয়া হবে বলেও জানান তিনি।

x