সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী : বিশিষ্ট রাজনীতিবিদ ও কবি

বুধবার , ১৭ জুলাই, ২০১৯ at ৬:১৬ পূর্বাহ্ণ
26

সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী ছিলেন একাধারে কবি, লেখক, বাগ্মী ও রাজনীতিবিদ। শৈশব থেকেই পড়াশোনায় ভীষণ মনোযোগী ছিলেন। ছিলেন নীতিনিষ্ঠ। সাহিত্য চর্চাও ছোটবেলা থেকেই। আজ তাঁর ৮৮তম মৃত্যুবার্ষিকী।
সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজীর জন্ম ১৮৮০ সালের ১৩ জুলাই সিরাজগঞ্জে। ১৯০৬ সালে সিরাজগঞ্জে অনুষ্ঠিত এক জনসভায় নিজের রচিত কিছু উদ্দীপনামূলক কবিতা পড়েন। সেই অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন বিশিষ্ট সমাজ সংস্কারক মুন্সী মেহেরুল্লাহ। কবিতাগুলো শুনে উপস্থিত সকলে মুগ্ধ হন। মেহেরুল্লাহ কবিতাগুলো নিয়ে ‘অনলপ্রবাহ’ নামে একটি গ্রন্থ প্রকাশের ব্যবস্থা করেন। ব্রিটিশ সরকার সাথে সাথে বইটি বাজেয়াপ্ত করে এবং কবিকে গ্রেফতার করে। বাংলা সাহিত্যে অনলপ্রবাহ সর্বপ্রথম বাজেয়াপ্ত কাব্যগ্রন্থ। দু বছর কারাগারে অন্তরীণ থেকে কবি যখন মুক্ত হন তখন তুরস্কে চলছে ব্যাপক যুদ্ধ। মুক্ত সিরাজী তুরস্কে চলে যান দেশটিকে সাহায্য করার জন্য। এই যুদ্ধে অসীম সাহস আর নৈপুণ্য প্রদর্শন করে তুরস্ক সরকার কর্তৃক গাজী উপাধিতে ভূষিত হন। ১৯১৩ সালে দেশে ফিরে সারাদেশ ঘুরে অগ্নিঝরা বক্তৃতা দেন। ব্রিটিশ সরকার প্রায় ৮২ বার তাঁর সভা পণ্ড করার জন্য ১৪৪ ধারা জারি করে। কিন্তু তার পরও সিরাজীর আহ্বানে উদ্বুদ্ধ হয় মানুষ। সারা দেশে গড়ে উঠতে থাকে স্কুল, কলেজ, মাদ্রাসা, পাঠাগার ইত্যাদি। আইন অমান্য আন্দোলনের জন্য ১৯৩০ সালে ৩ মাসের কারাভোগ করেন তিনি। সিরাজী রচিত উল্লেখযোগ্য গ্রন্থের মধ্যে রয়েছে: ‘স্পেন বিজয় কাব্য’, ‘নব-উদ্দীপনা’, ‘সঙ্গীত সঞ্জীবনী’ ইত্যাদি। ১৯৩১ সালের ১৭ জুলাই প্রয়াত হন সৈয়দ ইসমাইল হোসেন সিরাজী।

x