সৈয়দ আহমদ সিরিকোটি (রাঃ)’র হাতে প্রজ্বলিত আলোর মশাল দারুল ইসলাম কামিল মাদ্‌রাসা

মীর আসলাম : রাউজান

সোমবার , ১০ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ at ৯:১৬ পূর্বাহ্ণ
22

আওলাদে রাসূল (.) হযরতুল আল্লামা আলহাজ্ব হাফেজ ক্বারী সৈয়দ আহমদ শাহ্‌ সিরিকোটি (রাঃ) হাতে প্রজ্বলিত জ্ঞানের মশাল ‘রাউজান দারুল ইসলাম কামিল মাদ্‌রাসা’টি এখন গোটা চট্টগ্রামকে আলোকিত করছে। ওই এলাকার প্রবীণদের মতে রাউজানের এই মাদরাসাটির প্রতিষ্ঠার ইতিহাসের সাথে যাঁর নামটি চিরকাল অম্লান থাকবে, তিনি হচ্ছেন চট্টগ্রামের প্রাচীন পত্রিকা “দৈনিক আজাদী”র প্রতিষ্ঠাতা আধ্যাত্মিক জ্ঞানে আলোকিত কৃতি পুরুষ ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবদুল খালেক। এই কৃতি পুরুষ আওলাদে রাসূল (দঃ) হযরতুল আল্ল্লামা আলহাজ্ব হাফেজ ক্বারী সৈয়দ আহমদ শাহ্‌ সিরিকোটি (রাঃ)কে এই রাউজানে নিয়ে এসেছিলেন বার্মা থেকে। তাঁর বরকতময় হাত দিয়ে মাদরাসাটির ভিত্তি প্রস্তর স্থাপন করেছিলেন। জানা যায় মুরিদ হিসাবে হুজুর সিরিকোটি (রাঃ)এর অত্যন্ত প্রিয়ভাজন ছিলেন ইঞ্জিনিয়ার আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবদুল খালেক। ১৯৪২ সালে বার্মা থেকে হুজুরকে তিনি নিয়ে এসে রাউজানের বাড়িতে রেখে সেবা যত্ন করেছিলেন। বিভিন্ন সময় সাথে করে নিয়ে যেতেন চট্টগ্রাম শহরের নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান কোহিনূর প্রেসে। সেখানে বসেই হুজুর দ্বীনের প্রচার প্রসারের কাজ করতেন। এলাকার প্রবীণদের মতে ওই সময় দ্বীনি শিক্ষার জন্য রাউজানে মাদরাসা মক্তব ছিল হাতে গোনা কয়েকটি। সুলতানপুর গ্রামে ছিল ছোট পরিসরে একটি মাত্র মক্তব (ফোরকানিয়া মাদ্‌রাসা)। সুলতানপুরের এই মাদরাসাটির প্রথম অবস্থান ছিল রাউজান উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার বর্তমান বাসভবনের কাছে। পরবর্তী সময়ে এটিকে স্থানান্তর করা হয়েছিল বেরুলিয়া এলাকায়। ছোট্ট পরিসরে জীর্ণশীর্ণ অবস্থায় থাকা এলাকার মাদরাসাটিকে বড় পরিসরে প্রতিষ্ঠায় ওই সময় অনেকেরই চেষ্টা ছিল। বিভিন্ন কারণে তা হয়ে উঠেনি। হুজুর সিরিকোটি রাউজানে আসার পর এই এলাকায় মানুষের মাঝে নবজাগরণের সৃষ্টি হয়। হুজুরকে পেয়ে অনেকেই বড় পরিসরে মাদরাসা প্রতিষ্ঠার স্বপ্ন দেখতে থাকেন। এই সময় ইঞ্জিনিয়ার আবদুল খালেকসহ এলাকার কয়েকজন শিক্ষানুরাগী বড় পরিসরে মাদরাসা প্রতিষ্ঠায় হুজুরের অনুমতি প্রার্থনা করেন (১৯৪২ সালে)। হুজুর অনুমতি দিয়ে তাঁদেরকে একাজে উৎসাহ দান করেন এবং নিজের হাতে এই মাদরাসাটির ভিত্তি স্থাপন করেন। সেই থেকে এই মাদরাসা প্রতিষ্ঠায় কারো আর পিছনে তাকাতে হয়নি। হুজুরের অনেক মুরিদ, ভক্ত এই মাদরাসার জন্য অবদান রাখতে শুরু করেন।

ইতিহাস থেকে জানা যায়,বাংলাদেশের মাটিতে আওলাদে রাসূল (দঃ) হযরতুল আল্লামা আলহাজ্ব হাফেজ ক্বারী সৈয়দ আহমদ শাহ্‌ সিরিকোটি (রাঃ) হাতে ভিত্তিস্থাপন করা রাউজানের এই মাদরাসাটি (‘রাউজান দারুল ইসলাম কামিল মাদ্‌রাসা) প্রথম। প্রথম দিকে বড় পরিসরে মাদরাসা প্রতিষ্ঠায় ভূমিদান করে স্মরণীয় হয়ে আছেন পোস্ট মাস্টার মরহুম আলহাজ্ব মোয়াজ্জেম হোসেন খান ও কাজী গোলামুর রহমান মুন্সি। প্রতিষ্ঠায় ভূমি ও অর্থ দিয়ে রাউজানের আরো যেসব সৌভাগ্যবান ব্যক্তির নাম চিরস্মরণীয় হয়ে থাকছে তাদের মধ্যে কয়েকজন হচ্ছেন মরহুম আলহাজ্ব ডা.শামশুল হুদা চৌধুরী, মরহুম আলহাজ্ব আবদুস ছালাম, মরহুম আলহাজ্ব শামশুল হুদা ভেণ্ডার, আলহাজ্ব ছৈয়্যদুর রহমান সওদাগর, আলহাজ্ব সুলতান আহমদ শরীফ, আলহাজ্ব খায়ের আহমদ, তোয়ায়েল আহমেদ, রাবেয়া খাতুন, আয়েশা খাতুন, এয়ার মোহাম্মদ সওদাগর, আলহাজ্ব আবদুস ছমদ, কাজী লতিফা হক, খতিজা বেগম চৌধুরাণী, বেগমা খাতুন, হাজী আবদুল গফুর, হাজী মফিজুর রহমান, বদিউল আলম প্রমুখের নাম। রাউজানের এই প্রাচীণ শিক্ষা প্রতিষ্ঠানটির ধারাবাহিক উন্নয়নে যুগে যুগে অবদান রেখেছেন এলাকার আরো অনেক নাম জানা অজানা দানশীল ব্যক্তি। যারা মাদরাসা প্রতিষ্ঠার পর থেকে এই পর্যন্ত শিক্ষাদান ও পরিচালনা কমিটিতে থেকে কাজ করছেন তাদের অবদানও অপরিসীম। যাঁরা আছেন তাঁরা এখনো প্রতিষ্ঠানটিকে শীর্ষ পর্যায়ে নিয়ে যাওয়ার চেষ্টা করছেন।

মাদরাসার অধ্যক্ষ আলহাজ্ব মাওলানা রফিক আহমদ ওসমানী জানিয়েছেন আল্ল্লামা আলহাজ্ব হাফেজ ক্বারী সৈয়দ আহমদ শাহ্‌ সিরিকোটি (রাঃ) হাতে ভিত্তিস্থাপন করা এই মাদরাসাটি উত্তরোত্তর সমৃদ্ধি পেয়েছে হুজুরের বরকতময় হাতের ছোঁয়ায়। এলাকার মানুষের সাহায্য ও আনজুমানের দিক নির্দেশনায় পরিচালিত এই প্রতিষ্ঠান এখন আদর্শ প্রতিষ্ঠানে পরিচিতি লাভ করছে। তিনি জানান মাদরাসার উন্নয়ন কাজে অবদান রাখছেন রাউজানের সাংসদ এবিএম ফজলে করিম চৌধুরীও। জানা যায় ২০০৭ সালের ২৯ মে থেকে এই মাদরাসাটি পরিচালনার দায়িত্ব নিয়েছেন আনজুমানএ রহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া দ্বীনি ট্রাস্ট। বিভিন্ন কর্মসূচিতে মেহমান হয়ে আসেন আনজুমানের কর্মকর্তাগণ। আল্লামা ক্বারী সৈয়দ আহমদ শাহ্‌ সিরিকোটি (রাঃ) এর বংশধর গণের মধ্যে হযরত আল্ল্লামা ক্বারী সৈয়দ তৈয়ব শাহ (রাঃ), হযরত আল্ল্লামা সৈয়দ তাহের শাহ (মঃ অঃ) ইতিপূর্বে এই মাদরাসায় এসেছেন।

উল্ল্লেখ্য যে, আজ ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৮ সোমবার এই মাদ্‌রাসায় অনুষ্ঠিত হচ্ছে প্রতিষ্ঠাতা ও পৃষ্ঠপোষক হযরতুল আল্ল্লামা হাফেজ ক্বারী সৈয়্যদ আহমদ শাহ্‌ সিরিকোটি (রাহ.) ও গাউছে জামান মোরশেদে বরহক আল্লা্লমা হাফেজ ক্বারী সৈয়্যদ মুহাম্মদ তৈয়্যব শাহ্‌ (রাহ.) এর ওরস মোবারক। এই শুভ দিনে কামিল (স্নাতকোত্তর) শ্রেণির প্রথম ছবক অনুষ্ঠানে থাকবে দিনব্যাপী কর্মসূচি। অনুষ্ঠানে আন্‌জুমানরহমানিয়া আহমদিয়া সুন্নিয়া ট্রাস্টের সম্মানিত সহসভাপতি আলহাজ্ব মুহাম্মদ মহসিন প্রধান অতিথি ও আন্‌জুমান ট্রাস্টের অন্যান্য নেতৃবৃন্দ বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকবেন।

x