সুস্থ থাকতে দিনে ১৫ মিনিট ব্যায়াম

মো. মুজিবুল হক শ্যামল

শনিবার , ৯ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ at ৫:২৭ পূর্বাহ্ণ
233

আমাদের শরীরটা অনেকটা ব্যাংকের মতো। যদি শুধু টাকা জমিয়েই যাওয়া যায়, তাহলে বছরের শেষে সুদে-আসলে মিলে সেই টাকার অংক বেড়ে যাবে অনেক। ঠিক সেরকমই আমরা যদি শুধু খেয়েই যাই কিন্তু তার সঙ্গে সামঞ্জস্য কায়িক পরিশ্রম না করি, তখনই শরীরে জমা হয় বাড়তি মেদ। শরীরে স্বাভাবিক সৌন্দর্য যে মর্যাদা দিতে পারে, শুধু ভালো পোশাক কোনো দিনই তা পারবে না। বছর দশেক আগেও স্বাভাবিক সৌন্দর্য নিয়ে আমরা সচেতন ছিলাম না, আজ হয়েছি। আগে শুধু নাক মুখ নিয়েই মাথা ঘামাতাম আমরা। পাতলা ঠোঁটের চেয়েও মানুষকে সুন্দর করে তার চিপচিপে শরীর ও আনন্দ-উৎসাহে ভরা দ্রুত হাঁটাচলা। মোটা, নাদসি-নুদুস ও গোলগাল হওয়া এখন আর খুশির খবর নয়। প্রাচীণ ধ্যান ধারণা ছিল মোটা, নাদুস-নুদুস হলেই তা সু-স্বাস্থ্যের লক্ষণ। কিন্তু চিকিৎসার আধুনিকতা সঙ্গে সঙ্গে এটা ভুল প্রমাণিত হচ্ছে। কারণ মেদস্বীতা হার্ট অ্যাটাকের একটি বিশেষ কারণ হিসেবে চিহ্নিত হযেছে। অতীতে নাদুস-নুদুস শিশুদের মনে করা হতো সুন্দর এবং আকর্ষণীয়। কিন্তু অতি মোটা শিশুরা বাবা মায়ের কাছে এখন একটা খারাপ চিন্তার কারণ হয়ে দাঁড়িয়েছে। কারণ মোটা শিশুরা তাদের যুব বয়সেই অতি মোটা হয়ে যায়। এটাও আজ স্পষ্ট হয়েছে যে অতিমেদী মানুষ ততোটা সু-স্বাস্থ্যের অধিকারী নয়, যেমনটি অতীতে ধারণা করা হতো। শরীরে মেদবৃদ্ধি হয় প্রধানত কম পরিশ্রম এবং প্রয়োজনের অতিরিক্ত খাওয়ার ফলে। যা ভালো লাগে তাই খাওয়াটাই অনেকের জীবনে এটা একটা মহা আনন্দের বিষয়। এদিকে মনের আনন্দে খেয়ে যাচ্ছেন, ওদিকে আপনার দেহের মেদ বেড়েই চলেছে। নিজের খুশিমতো খেয়ে যারা আনন্দ পান, তাদের বেশির ভাগ লোকেরই দেখা যায় ২৫ বছর বয়স হতে না হতেই দেহে বাড়তি মেদ জমতে দেখা যায়। এর প্রধান কারণ হলো বর্তমানে নর-নারীরা কায়িক পরিশ্রম থেকে একেবারে দূরে। এখন কেউ সামনের পানির মগটি পর্যন্ত টেনে পানি খেতে অভ্যস্থ নয়। মানুষ বর্তমানে অনেক আলস্য হয়ে গেছে। একদিকে আলস্য অন্যদিক ফাস্টফুড, অ্যালকোহল, কোল্ডড্রিংঙ খাবার ফলে মানুষ আরো আলস্য হয়ে যাচ্ছে। এছাড়া শরীরে মেদী হওয়ার কারণে শরীরে কত ধরনের রোগ-বালাই হয়ে থাকে বা লেগে থাকে। তাই এ থেকে বর্তমানে সুস্থ ও সুন্দরভাবে বেঁচে থাকতে চাইলে আপনাকে সামান্য কিছু সময় ব্যায়ামে, হাঁটাহাঁটি, বা দৌড়াতে হবে। দিনে কম করে হলেও ১৫ মিনিট ব্যায়াম করার চেষ্টা করতে হবে। কিন্তু যখন আপনি অসুস্থ হবেন তখন আপনার টাকা-পয়সা, শরীর সবই যাবে। বর্তমানে মানুষের মেদী শরীরের পাশা-পাশি আরও অনেক কিছু যোগ হয়েছে হাঁটু ব্যথা, কোমর ব্যথা, ঘাড় ব্যথা গোড়ালি ব্যথা আরো কতো কি। আমাদের দেশে সবাই বলেন ব্যায়াম করার সময় নাই সময় নাই। এটি আসলে একেবারে বাজে একটি কথা। দিনে ২৪ ঘন্টার মধ্যে আপনি মাত্র ১৫ মিনিট সময় বের করা কোনো ব্যাপার না। শুধু আপনার ইচ্ছা যথেষ্ট। প্রথম কয়েকদিন খারাপ লাগতে পারে, তাই শুরু করতে পারেন। কয়েকবার করতে থাকলে দেখবেন ভাল লাগবে। বর্তমানে আপনি যদি সুস্থ থাকতে চান তাহলে ব্যায়ামের কোনো বিকল্প নেই।

- Advertistment -