সীতাকুণ্ডে ভুলে ভরা জাতীয় পরিচয়পত্র

নবীন ভোটাররা হতাশ

সীতাকুণ্ড প্রতিনিধি

বৃহস্পতিবার , ১১ অক্টোবর, ২০১৮ at ১২:০১ অপরাহ্ণ
15

গত কয়েকদিন ধরে সীতাকুণ্ড উপজেলার পৌরসভা ও ইউনিয়ন পরিষদের নতুন ভোটারদের পরিচয়পত্র দেয়া হচ্ছে। পরিচয়পত্র হাতে পেয়ে খুশি অনেকে তবে কেউ কেউ হতাশ হয়ে পড়েছেন। কারণ বিতরণ করা পরিচয়পত্রগুলো ভুলে ভরা।
জানা যায়, ২০১৪ থেকে ২০১৭ সালের মধ্যে নতুন অন্তর্ভূক্তি সৈয়দপুর, মুরাদপুর ও বারৈয়াঢালা ইউনিয়ন পরিষদ এবং সীতাকুণ্ড পৌরসভা বাসিন্দাদের পরিচয়পত্র বিতরণ করা হয়েছে। বিতরণ করা পরিচয় পত্রে ছবি, জন্ম তারিখ, স্বাক্ষর ও নামে ব্যাপক ভুল রয়েছে। কারো ছবির জায়গায় অন্য জনের ছবি, কারো স্বাক্ষরের জায়গায় অন্য স্বাক্ষর, কিছু কিছু আইডি কার্ডে ছবি, পিতার, মাতার নাম ঠিক থাকলেও ঠিক নেই নিজের নাম। এছাড়াও ১৮/২০ বছরের মেয়ের জন্ম তারিখ দেওয়া হয়েছে ১৯৬৯। এরকম ভুল ধরা পড়েছে প্রায় পরিচয়পত্রে। সীতাকুণ্ড পৌরসভার প্যানেল মেয়র ও কাউন্সিলর হারাধন চৌধুরী বাবু জানান, পরিচয়পত্রে অনেক ভুল। তালিকায় নাম নেই পরিচয়পত্রে আছে, নাম তার বামন সুন্দর, পরিচয়পত্রে তা’ বানর সুন্দর! ছবিতে অর্ধেক নারী আর অর্ধেক পুরুষ, ঠিকানায় গ্রাম একটা ওয়ার্ড অন্য একটা, আবার কারো কারো স্লিপ আছে, তালিকায় নাম বা পরিচয়পত্র নেই! স্বামীর স্থলে পিতা, পিতার স্থলে স্বামী। বয়স যদিওবা ১৮, হয়ে আছে ৫৮! পিতামাতা জীবিত আছে,পরিচয়পত্রে মৃত।
বর্তমান সময়ে যেকোন কাজের ক্ষেত্রে গুরুত্বপূর্ণ হয়ে পড়েছে এই জাতীয় পরিচয়পত্র। যেকোন কাজে দরকার পড়ে এই পরিচয়পত্রের। তাই অনেকদিন পর প্রথম পরিচয়পত্র হাতে পেয়ে খুশি হয়েছিল সবাই। তবে পরিচয় পত্রে এমন ভুলে আবারো হতাশায় তারা। অনেকে রীতিমত ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন।
সুমন নামে এক যুবক জানান, জাতীয় পরিচয় পত্রের মত এমন একটা গুরুত্বপূর্ণ ডকুমেন্টে এরকম ভুল মানা যায়না। ভুলবশত ১/২ জনের এরকম হতেই পারে, তাই বলে এভাবে একই ওয়ার্ডের কয়েকজন। কর্তৃপক্ষের অবহেলার কারণে এমন ভুল হয়েছে বলে আমি মনে করি। এখন এই ভুল ঠিক করতে হলে সময়েরও প্রয়োজন আছে। অনেক দিন পর পরিচয় হাতে পেয়ে খুশি হতে তো পারলামই না উল্টো হতাশ হলাম। তবে এই ভুলগুলো সংশোধন সহজে করা যাবে বলে জানিয়েছে উপজেলা নির্বাচন অফিস। সূত্রটি জানায়, এগুলো সংশোধনের জন্য আবেদন করলে আবারো পুনরায় কার্ড প্রদান করা হবে। তবে সময় কতদিন লাগবে তা নির্দিষ্ট করে জানাতে পারেনি উপজেলা নির্বাচন অফিস।

x