সিআইইউর ইঞ্জিনিয়ারিং শিক্ষার্থীদের সাবমেরিন ক্যাবল স্টেশন পরিদর্শন

রবিবার , ২২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯ at ৮:৩৭ অপরাহ্ণ
204

সাবমেরিন ক্যাবল নিয়ে তরুণদের আগ্রহের কমতি নেই। ইন্টারনেট ব্যান্ডউইথ ভাণ্ডারে বাংলাদেশকে এগিয়ে নিয়ে যেতে তাদের চোখে এখন হাজারও স্বপ্ন। মাথায় ঘুরপাক খাচ্ছে নিত্যনতুন আইডিয়া।
এতোদিন ক্লাসরুমের ভেতরে পাঠ্যবইয়ে এটা নিয়ে অনেক ঘাঁটাঘাটি হলেও বিষয়টির আদ্যোপান্ত জানা হয়নি অনেকের। আর তাই সরজমিনে ব্যবহারিক জ্ঞান আর অভিজ্ঞতার ঝুলি বাড়াতে কক্সবাজার সাবমেরিন ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশন পরিদর্শন করেছেন তারুণ্যমুখর বিদ্যাপীঠ চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি (সিআইইউ)-এর স্কুল অভ সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের শিক্ষার্থীরা।
সম্প্রতি সিআইইউ’র সহযোগী অধ্যাপক ড. আসিফ ইকবালের নেতৃত্বে কমপিউটার সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিং (সিএসই) বিভাগের একঝাঁক মেধাবী শিক্ষার্থী এই ক্যাবল ল্যান্ডিং স্টেশনটি পরিদর্শন করেন।
এ সময় তারা সাবমেরিন ক্যাবল রক্ষণাবেক্ষণ, যন্ত্রপাতি পরিচালনা পদ্ধতি, ল্যান্ডিং স্টেশনের কার্যক্রম, বাংলাদেশে ইন্টারনেট খাতে অবদানের চিত্র, ফাইবার অপটিক ক্যাবল নেটওয়ার্কসহ নানান বিষয়গুলো সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের কাছ থেকে জেনে নেন।
বাংলাদেশ সাবমেরিন ক্যাবল কোম্পানি লিমিটেড (বিএসসিসিএল) কক্সবাজার ল্যান্ডিং স্টেশনের ম্যানেজার (অপারেশন) ইঞ্জিনিয়ার জুয়েল মিয়া পরিদর্শন কার্যক্রমে সিআইইউ’র শিক্ষার্থীদের স্বাগত জানান। এসময় তিনি শিক্ষার্থীদের বিভিন্ন প্রশ্নের জবাব দেন ও সরজমিনে পুরো স্টেশনের কার্যক্রম ঘুরিয়ে দেখান।
জানতে চাইলে সিআইইউ’র স্কুল অভ সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের সহযোগী অধ্যাপক ড. আসিফ ইকবাল বলেন, ‘বিশ্বের সঙ্গে একটি নিবিড় বন্ধন তৈরি করছে এই সাবমেরিন ক্যাবল। উন্নত বিশ্বের সঙ্গে তালমিলিয়ে তথ্য-প্রযুক্তির পাশাপাশি টেলিযোগাযোগ খাতেও আমরা অনেক দূর এগিয়ে গেছি।’
শিক্ষার্থীদের লাইভ-ইন ফিল্ড এক্সপেরিয়েন্স বা এলএফই-১০১ কোর্সের আওতায় মাঠ পর্যায়ে ধারণা দিতেই এ পরিদর্শন কার্যক্রমে সবাই এসেছেন বলে জানান তিনি।

x