সাকিব থাকা মানে দলের কাজটা অনেক সহজ হয়ে যাওয়া

স্পোর্টস ডেস্ক

শনিবার , ২৪ আগস্ট, ২০১৯ at ১১:১৬ পূর্বাহ্ণ
18

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচকে সামনে রেখে ৩৫ সদস্যের প্রাথমিক দল অনুশীলন শুরু করেছে। এই ক্যাম্পে নেই তামিম ইকবাল। কারন আফগানদের বিপক্ষে টেস্ট থেকে নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন তামিম ইকবাল আর বিশ্রামে থাকা সাকিব আল হাসান এখনো যোগ দেননি ক্যাম্পে। এছাড়া অনুশীলন ক্যাম্পে যোগ দিয়েছেন বাকি সবাই। গতকাল শুক্রবার অনুশীলনের ফাঁকে জাতীয় দলের স্পিনার তাইজুল ইসলাম কথা বলেছেন আফগানিস্তান টেস্টকে সামনে রেখে। আগামী ৫ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের বিপক্ষে একমাত্র টেস্ট শুরু হবে বাংলাদেশের। ঢাকায় ইতিমধ্যে এসে যোগ দিয়েছেন টাইগারদের নতুন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো আর পেস বোলিং কোচ শার্ল ল্যাঙ্গাভেল্ট। আর স্পিন কোচ ড্যানিয়েল ভেট্টরি আসবেন আসন্ন ভারত সফরের আগে।
বাংলাদেশের টেস্ট দলের নিয়মিত সদস্য তাইজুল ইসলাম কথা বলেন টেস্টে দেখা যায় অন্যান্য দেশের লোয়ার অর্ডার থেকেও বেশ রান আসে। তবে বাংলাদেশের লোয়ার অর্ডার ব্যাটসম্যানরা তেমন একটা সুবিধা করে উঠতে পারেননা কখনোই। তবে তাদের মধ্যে কিছুটা ব্যতিক্রম তাইজুল। বেশ কিছু টেস্ট জুড়েই দারুণ ব্যাটিং করছেন তাইজুল। আর তাই তো তাইজুলের কাছে প্রশ্ন ব্যাটিং নিয়ে বাড়তি কোনো কাজ করছেন কিনা। তাইজুল বলেন, আসলে ক্রিকেট একটি প্রতিদ্বন্দ্বীতামূলক খেলা। এখানে টিকে থাকতে হলে বোলিংয়ের পাশাপাশি ব্যাটিং নিয়েও কাজ করতে হবে। দলের কথা চিন্তা করে আমি আমার বোলিংয়ের সাথে সাথে ব্যাটিং নিয়েও কাজ করছি। বিশ্বকাপে বাংলাদেশের বোলিং ছিল ছন্নছাড়া। বোলাররা যেন উইকেট নিতেই ভুলে গিয়েছিল। আর তাই তো কথা প্রসঙ্গে উঠে এসেছে টাইগারদের বোলিংয়ের কথাটি। নিজেদের বোলিং সম্পর্কে এই স্পিনার বলেন, দেখুন বিশ্বকাপের ঠিক আগের সিরিজটা আমরা জিতেছিলাম এবং ভাল পারফরম্যান্সও করেছিলাম। একটি সিরিজ খারাপ যেতেই পারে। তাই বলে মন খারাপ করে বসে থাকলে তো চলবে না। আমরা আমাদের উন্নতির জন্য অনুশীলন ক্যাম্পে কাজ করছি। আশা করি দ্রুতই আমরা ভাল পারফরম্যান্সে ফিরে আসতে পারবো।
বিশ্বকাপে বাংলাদেশ দলের হয়ে অকল্পনীয় পারফরম্যান্স করেছেন সাকিব আল হাসান। আর বিশ্বকাপের পর ক্লান্তি দূর করতে তাই লম্বা সময় বিশ্রাম নিয়েছেন তিনি। শ্রীলংকা সফরেও যাননি এই অল রাউন্ডার। টি-টোয়েন্টি, ওয়ান ডে কিংবা টেস্ট সব ফরম্যাটেই টাইগারদের সব থেকে গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার তিনিই। আর তাই তো দলে না থাকলে তার অভাব পূরণ করা অসম্ভব হয়ে পড়ে। সাকিবের সাথে বোলিং করা নিয়েও কথা বলেছেন তাইজুল। তিনি বলেন, সাকিব না থাকলে সব কাজই কঠিন হয়ে যায়। সাকিব যখন বল করে তখন প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যান অনেক সাবধানী হয়ে যায়। আর তখনই আমাদের মতো বোলারদের উইকেট নেওয়ার সুযোগ তৈরি হয়। সাকিব বিশ্বের সেরা অলরাউন্ডার আর অনেক অভিজ্ঞ। সুখবর হচ্ছে সামনের সিরিজেই সে আমাদের সাথে যোগ দিচ্ছে।
ঘরের মাঠে প্রতিপক্ষকে ঘায়েল করতে টাইগারদের প্রধান অস্ত্র স্পিন। আফগানদের বিপক্ষেই একই ফাঁদ পাতবেন কিনা তা নিয়ে করা প্রশ্নের জবাবে তাইজুল বলেন, আমরা আসলে এখনও জানি না কেমন উইকেট হবে। এটার সম্পূর্ণ দেখভাল করবে ম্যানেজমেন্ট। তবে একজন স্পিনার হিসেবে আমি যেকোনো উইকেটের জন্য নিজেকে প্রস্তুত করছি। আফগানদের বিপক্ষে টেস্ট ম্যাচে একটি উইকেট সংগ্রহ করতে পারলেই বাংলাদেশের সব থেকে দ্রুততম বোলার হিসেবে টেস্টে ১০০ উইকেট সংগ্রহ করবেন তাইজুল। তবে আফগানদের মোটেও সহজ প্রতিপক্ষ হিসেবে মনে করছেন না এই স্পিনার। তাইজুল মনে করেন বদলে গেছে আফগানদের ক্রিকেট। এখন আর তারা আগের মতো দুর্বল প্রতিপক্ষ নেই। তাই তো ম্যাচ জিততে হলে নিজদের সেরাটাই দিতে হবে টাইগারদের।

x