সম্পর্কে স্বচ্ছতা

মেহজাবীন পায়েল

রবিবার , ৯ ডিসেম্বর, ২০১৮ at ৫:৪৬ পূর্বাহ্ণ
65

পৃথিবীতে সবচেয়ে ভালোবাসাময় , বিশ্বাসপূর্ণ আর পবিত্র সম্পর্ক হিসেবে আমরা দাম্পত্য সম্পর্ককে বিনা দ্বিধায় প্রথম সারিতে রাখতে পারি। দাম্পত্য সম্পর্ক মানেই দুজন মানুষের খুঁনসুটি আর একে অপরকে আঁকড়ে ধরে বেঁচে থাকার এক অসীম চেষ্টা। কিন্তু সম্পর্ক তৈরি করার থেকে সম্পর্ক রক্ষা করাটা অনেক কঠিন কাজ। সম্পর্ক জিনিসটা একটা আয়নার মতো, আয়না যেমন রোজ রোজ পরিষ্কার না করলে এক সময় সেখানে আর আপনার অবয়ব ঠিকঠাক ফুটে উঠবে না। ঠিক একই ভাবে সম্পর্কের সঠিক যত্ন আর সেটার খেয়াল না করলে এক সময় কখন আপনি সম্পর্ক থেকে পিছিয়ে পড়বেন বুঝতেও পারবেন না। তাই আপনার দাম্পত্য সম্পর্ক প্রাণবন্ত আর মধুময় রাখতে আপনাকেই দায়িত্ব নিতে হবে এর সঠিক দেখাশোনার।
আসুন দেখি কী উপায়ে আপনার দাম্পত্য সম্পর্ক রাখবেন মধুর চেয়ে মিষ্টি
সঙ্গীর ভালো শ্রোতা হয়ে উঠুন
দাম্পত্য জীবন মধুময় রাখার পূর্ব শর্ত হল নিজেকে আপনার সঙ্গীর কাছে একজন ভালো শ্রোতা হিসেবে উপস্থাপন করা। আপনার সঙ্গী যখন খুব আগ্রহ নিয়ে আপনাকে কিছু শেয়ার করবে আপনার করণীয় হবে সমপরিমাণ আগ্রহ নিয়ে তার কথা শোনা।
সঙ্গীর প্রশংসা করতে কার্পণ্য করবেন না
প্রিয় মানুষের কাছ থেকে প্রশংসা শুনতে কে না ভালোবাসে। আর দাম্পত্য সম্পর্ক যদি চান রাখবেন সর্বাধিক সুমিষ্ট তাহলে সঙ্গীর প্রশংসা করার অভ্যাসটা আজই রপ্ত করে নিন। শুধু রূপের নয় সাথে সাথেই গুণের প্রশংসাও করুন। দেখবেন আপনার অল্প একটু প্রশংসার প্রভাব কতোটা দ্বিগুণ হয়ে আপনার সম্পর্কে প্রভাব ফেলবে।
ভালোবাসার সাথে সঙ্গীকে শ্রদ্ধা করুন
আপনি যদি ভেবে থাকেন শুধুমাত্র ভালোবাসা দিয়েই আপনার দাম্পত্য জীবন সুন্দর করে তুলবেন তাহলে বলবো ভুল করছেন। ভালোবাসার সাথে আপনার সঙ্গীকে তার প্রাপ্য সম্মান আর শ্রদ্ধাটুকুও দিন। সংসারে সুখ বজায় থাকবে একরকম গ্যারান্টি দিয়ে বলা যায়।
সঙ্গীর মতামতের মূল্যায়ন করুন
দাম্পত্য জীবন যেহেতু আপনি এক তরফাভাবে পরিচালনা করতে পারবেন না ঠিক সে কারণেই আপনার নিজের এক তরফা মতামত কখনো আপনার সঙ্গীর উপর চাপিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করবেন না। বরং সংসারে সুখ স্বাচ্ছন্দ্য বজায় রাখতে আপনার সঙ্গীর মতামতের যথাযথ মূল্যায়ন করুন।
সঙ্গীকে সময় দিন
সারাদিন যদিও নানা কাজে ডুবে থাকেন তারপরও কিছুটা সময় নিজেদের জন্য বের করুন। দুজন কিছুটা সময় একান্তে কাটান, দেখবেন সম্পর্কের অনেক ছোটোখাটো সমস্যার সমাধান আপনারা এই সামান্য সময়টুকুতেই করে ফেলতে পারছেন।
ছোটোখাটো উপলক্ষগুলো উদযাপন করুন
সম্পর্ক মধুময় রাখতে সামান্য কোন উপলক্ষ মিস করে যাবেন না। হতে পারে সেটা আপনাদের প্রথম দেখা হওয়ার দিনটি, হতে পারে যেদিন আপনার সঙ্গী আপনাকে প্রপোজ করেছিলো সেই দিনটি অথবা যেদিন আপনার একে অপরকে তুমি করে বলেছিলেন সেই দিনটি। উপলক্ষ যতো ছোটই হোক না কেন আপনার সম্পর্কের মধুরতা বাড়াতে খুব কাজে দেবে।
নিজ কাজের দায়ভার নিতে শিখুন
দুজন মানুষ একসাথে থাকতে গেলে বা একটি পরিবারে থাকতে গেলে খুঁটিনাটি সমস্যা সৃষ্টি হতেই পারে তাই বলে আপনি আপনার সঙ্গীকে এক তরফা দোষারোপ করবেন তা কিন্তু নয়। সম্পর্ক হেলদি রাখতে নিজ কাজের দায়ভার নিতে শিখুন, দেখবেন আর অযথা মনোমালিন্য হচ্ছে না।
একে অপরের কাছে স্বচ্ছ থাকুন
যতো বেশী একজন আরেকজনের কাছে নিজেদের অনুভূতি, কষ্টলাগা, চাওয়া পাওয়া এমনকি ভালোলাগাগুলো লুকোবেন সম্পর্কে ততবেশি দূরত্ব বেড়ে যাবে। তাই দুজন দুজনের কাছে স্বচ্ছ থাকুন। দেখবেন আপনাদের ছোট্ট সংসারটা কেমন স্বর্গে রূপান্তরিত হয়েছে।
সম্পর্কে রোমাঞ্চ ধরে রাখতে আপনার সঙ্গীকে মাঝে মধ্যে চমক দিন। তাকে বুঝিয়ে দিন সে আপনার কাছে কতোটা স্পেশাল। কারণে অকারণে আপনার প্রিয় মানুষটির কানে কানে বলুন ভালোবাসি কথাটি। আপনি একটু চাইলেই আপনাদের দুজনের জীবন রাঙিয়ে তুলতে পারেন ভালোবাসার শতরঙে, বাড়িয়ে তুলতে পারেন সম্পর্কের মধুরতা।

x