সমাজের উন্নয়নে রোটারিয়ানরা গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করছেন

সাত ক্লাবের যৌথ অভিষেক অনুষ্ঠানে বক্তারা

রবিবার , ২১ জুলাই, ২০১৯ at ৪:২২ পূর্বাহ্ণ
11

রোটারী ক্লাব অব চিটাগাং বে ভিউ, কসমোপলিটন, ডাউন টাউন, ইষ্ট, হেরিটেজ, হিলসিটি এবং সাউথ এর যৌথ উদ্যোগে গত ১৭ জুলাই দি ইঞ্জিনিয়ার্স ইন্সষ্টিটিউট, চট্টগ্রামে যৌথ অভিষেক অনুষ্ঠিত হয়। এতে বক্তব্য রাখেন রোটারী ডিষ্ট্রিক্ট গভর্নর প্রিন্সিপাল লে. কর্নেল (অব.) এম আতাউর রহমান পীর। স্বাগত বক্তব্য রাখেন অভিষেক অনুষ্ঠানের চেয়ারম্যান রোটারিয়ান প্রফেসর ড. ওয়াজির আহমদ। প্রফেসর ড. ওয়াজির আহমদ বলেন, রোটারী মানেই মানবতার সেবায় কাজ করা। সকল ধর্মেই কিন্তু মানবতার কথা উল্লেখ আছে। আসুন আমরা সকলে একতাবদ্ধ হয়ে মানবতার সেবায় কাজ করি। রোটারী ডিষ্ট্রিক্ট গভর্ণর প্রিন্সিপাল লে. কর্নেল (অব.) এম আতাউর রহমান পীর বলেন, রোটারী হচ্ছে আর্তমানবতার সেবায় কাজ করা। যার কারণে রোটারিয়ানরা বন্যার্তদের সহায়তায়, পথশিশুদের উন্নয়নে, শিক্ষা, স্বাস্থ্য, রোগ প্রতিরোধ, স্যানিটেশন ও অসহায় এতিম শিশুদের দায়িত্বে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে। রোটারিয়ানরা সমাজের উন্নয়নে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা পালন করে আসছে। প্রাকৃতিক যে কোন দুর্যোগে রোটারিয়ানরা এগিয়ে আসে। কারণ একজন মানুষ রোটারীর মাধ্যমে দরিদ্র মানুষের সেবা করার সুযোগ করে নিতে পারেন। তিনি ৭টি ক্লাবের সমন্বয়ে যৌথ অভিষেক অনুষ্ঠানের বিভিন্ন কার্যক্রমের ভূয়সী প্রশংসা করেন এবং সকলের যৌথ প্রচেষ্টায় সময় ও অর্থের সাশ্রয়ের জন্য ধন্যবাদ জানান। প্রধান অতিথি চুয়েট ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ড. মোহাম্মদ রফিকুল আলম বলেন, সকল ধর্মেই মানবতার কথা বলে। যার জন্য রোটারিয়ানরা একইভাবে সকলের তরে কাজ করে যাচ্ছে। পাশাপাশি দেশ প্রেমে উদ্বুদ্ধ হয়ে দেশ ও জাতি গঠনে এগিয়ে আসতে হবে ও গরীব, অসহায় ও দুঃখী মানুষের মুখে হাসি ফোটাতে পারে। দেশে রোটারিয়ানের সংখ্যা বাড়লে দেশের অসহায় মানুষের উপকার বেশী হবে। এতে বক্তব্য রাখেন ডিষ্ট্রিক্ট গভর্নর ইলেক্ট ড. বেলাল উদ্দিন আহমদ, আইপিডিজি রোটারিয়ান ড. দিল নাসীন মোহসেন, পিডিজি প্রফেসর ড. মো. তৈয়ব চৌধুরী, পিডিজি শহীদ আহমদ চৌধুরী প্রমুখ।
ধন্যবাদ বক্তব্য রাখেন ডিষ্ট্রিক্ট ট্রেইনার রোটারীয়ান অধ্যাপক জাহাঙ্গীর চৌধুরী। তিনি বলেন, রোটারীয়ানরা মানুষের জন্য কাজ করে। প্রত্যেক জিনিসের একটা অর্থনীতি থাকে বা আছে। ঠিক সে রকম রোটারীরও যেমন অর্থনীতি আছে তেমন মানবতারও একটা অর্থনীতি আছে। বস্তুতপক্ষে আমরা মানবতার অর্থনীতির সম্প্রসারণ চাই বলেই আজকের এই আয়োজন পরিশেষে অনুষ্ঠানকে সফল করার জন্য সকলকে আন্তরিক ধন্যবাদ জ্ঞাপন করেন। এতে উপস্থিত ছিলেন এসাইনড এ্যাসিষ্টেন্ট গভর্নর রোটারিয়ান সামিনা ইসলাম, রোটারিয়ান সাইফুদ্দীন আহমদ, রোটারিয়ান প্রফেসর এস.এ.এম জাকারিয়া, রোটারিয়ান মো. মঈন উদ্দিন চৌধুরী, রোটারিয়ান মোঃ মুজিবুর রহমান, জোনাল কোঅর্ডিনেটর রোটারিয়ান মাহফুজুল হক প্রমুখ।
অনুষ্ঠানে উপলব্ধি ফাউন্ডেশনের কর্ণধার ইযাবুর রহমানের হাতে আর্থিক অনুদানের চেক তুলে দেয়া হয় এবং ফাউন্ডেশনের ২ জন অসহায় মেয়ের সারা বছরের দায়িত্বভার গ্রহণ করেন রোটারী ক্লাব অব ফেনী সিটি এবং ফেনী সেন্ট্রাল। অনুষ্ঠান সঞ্চালনা করেন রোটারিয়ান হাসিনা আকতার লিপি এবং রোটারিয়ান মিনহাজ উদ্দিন। প্রেস বিজ্ঞপ্তি।

x