শ্রীলংকা সফরের জন্য টাইগারদের অনুশীলন শুরু

ক্রীড়া প্রতিবেদক

বৃহস্পতিবার , ১৮ জুলাই, ২০১৯ at ৫:২০ পূর্বাহ্ণ
40

বিশ্বকাপ শেষ করে দেশে ফিরে খুব বেশি ছুটি পাননি বাংলাদেশ দলের ক্রিকেটাররা। আয়ারল্যান্ডের মাটিতে ত্রিদেশীয় সিরিজ এবং বিশ্বকাপের কন্ডিশনিং ক্যাম্প এবং বিশ্বকাপ মিলে প্রায় দুইমাসের লম্বা সফর শেষ করে দেশে ফিরেছে ক্রিকেটাররা। ফিরে কদিন ছুটি কাটালেও আবার নেমে যেতে হলো মাঠের অনুশীলনে। শ্রীলংকা সফরকে সামনে রেখে অনুশীলন শুরু করেছে টাইগাররা। গতকাল বুধবার বিকেলে মিরপুর শের-ই-বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামে অন্তর্বর্তীকালীন কোচ খালেদ মাহমুদ সুজনের অধীনে প্রথমদিনের অনুশীলনে নামেন মাশরাফিরা।
বিশ্বকাপ মিশন শেষে ১০ দিনের বিশ্রাম পেয়েছিল জাতীয় দলের ক্রিকেটাররা। বিশ্রাম শেষে গতকাল থেকে পুরো দল অনুশীলনে নামে। গতকালের অনুশীলনে ওয়ানডে দলপতি মাশারাফি বিন মর্তুজাসহ অংশ নেন দলের সাত সদস্য। শুরুতে অনুশীলন ছাড়াই শ্রীলংকা সফরে যাওয়ার পরিকল্পনা ছিল টিম ম্যানেজমেন্টের। কিন্তু শেষ মুহূর্তে সিদ্ধান্তে পরিবর্তন আনা হয়। তবে কয়েকদিন আগেই ব্যক্তিগত উদ্যোগে অনুশীলন শুরু করেছিলেন তামিম ইকবাল ও মুশফিকুর রহিম। দলে সুযোগ পেতে হলে ফিটনেস টেস্ট উতরাতে হবে, এমনটাই জানিয়েছেন জাতীয় দলের নির্বাচকরা। তাইতো অনুশীলনে ঘাম ঝরিয়েছেন মাশরাফিও। কারণ বিশ্বকাপ চলার সময় থেকেই ইনজুরিতে ছিলেন মাশরাফি। ফলে বিশ্বকাপে মোটেও ভাল করতে পারেননি টাইগার দলপতি।
নিজের ফিটনেস ফিরে পেতে সংগ্রাম শুরু করেছেন মাশরাফি। গতকালের অনুশীলনে অংশ নিয়েছেন তিনি। অনুশীলনের ফাঁকে হাসি-ঠাট্টাও করতে দেখা গেছে তাকে। তবে অনুশীলনে ছিলেন না প্রায় তিন বছর পর দলে ফেরা তাইজুল ইসলাম। এই বাঁহাতি স্পিনার বর্তমানে বিসিবি একাদশের হয়ে ভারতে ‘মিনি রঞ্জি ট্রফি’তে খেলছেন। ছিলেননা দলে ডাক পাওয়া এনামুল হক বিজয়ও। এই ওপেনার আগামী ১৯ জুলাই ‘এ’ দলের হয়ে আফগানদের বিপক্ষে প্রথম ওয়ানডে খেলে দলের সঙ্গে যোগ দিবেন। এছাড়া ছুটিতে থাকায় শ্রীলংকা সফরে যাচ্ছেন না সাকিব আল হাসান। সেটা জানা ছিল আগেই। এছাড়াও ওপেনার লিটন দাশও ছুটি নিয়েছেন শ্রীলংকা সফর থেকে। কারণ তার বিয়ে। সে কারণে তিনি যেতে পারছেননা। গতকাল প্রথম দিনের মত হালকা অনুশীলন করলেও আজ থেকে পুরোদমে অনুশীলন চলবে টাইগারদের। কারণ শ্রীলংকা যাওয়ার আগে খুব বেশি অনুশীলন করার সুযোগ পাবেনা মাশরাফিরা। আগামী ২০ জুলাই শ্রীলংকা রওয়ানা হবে বাংলাদেশ দল। তার আগে মাত্র আর দুদিন অনুশীলন করার সুযোগ পাবে মাশরাফি-তামিমরা। সফরের তিন ওয়ানডে ম্যাচ খেলতে আগামী ২০ জুলাই দেশ ছাড়বে টাইগাররা। তবে সিরিজ শুরুর আগে আগামী ২৩ জুলাই কলম্বোয় একটি প্রস্তুতিমূলক ম্যাচ খেলবে মাশরাফিবাহিনী। আগামী ২৬, ২৮ এবং ৩১ জুলাই দিবারাত্রির তিনটি ওয়ানডে খেলবে দুই দল। এরই মধ্যে দল ঘোষণা করেছে টাইগাররা। দলের সঙ্গে কোচ হিসেবে যেতে পারেন বিশ্বকাপে ম্যানেজারের দায়িত্ব পালন করা সাবেক ক্রিকেটার খালেদ মাহমুদ সুজন।
খালেদ মাহমুদ জানান শ্রীলঙ্কা অবশ্যই চ্যালেঞ্জের । প্রতিটা ট্যুরই বাংলাদেশের জন্য চ্যালেঞ্জ। অবশ্যই আমি যখন দলের সঙ্গে থাকি তখন আমিও চ্যালেঞ্জের মধ্যে থাকি। ম্যানেজার হিসেবে কাজ করলেও চ্যালেঞ্জ থাকে। শ্রীলঙ্কা সিরিজটি আমাদের জন্য খুবই গুরুত্বপূর্ণ একটি সিরিজ। যদিও আমরা এই সিরিজে কিছু খেলোয়াড়কে মিস করব। তবে আমি মনে করি আমাদের দলটি যথেষ্ট ভারসাম্যপূর্ণ। শ্রীলঙ্কার বিপক্ষে আমরা এর আগেও খেলেছি। আমি আশা করি আমরা ভালো করব। টাইগারদের কোচ হিসেবে সুজনের নামটা বার বার উচ্চারিত হলেও এখনও অফিসিয়ালি কোনো ঘোষণা আসেনি। সুজন জানালেন, আমার সঙ্গে এখনো কোনো কথা হয়নি এই ব্যাপারে। নতুন কোচ না আসা অবধি টাইগারদের কোচের দায়িত্ব পালন করবেন সুজন।
আপাতত এই দুই তিন দিন ট্রেনিং সেশনে অবশ্যই কাজ করব। এরপর বোঝা যাবে কি হবে না হবে। আপাতত যে দায়িত্ব দেয়া হয়েছে সেটাই করি। যেহেতু আমি দলের সঙ্গে থাকি, কোচ হিসেবে না থাকলেও ম্যানেজার হিসেবে থাকতাম। জাতীয় দলে কখনো কোচ, কখনো ম্যানেজার-এভাবে কাজ করা কঠিন কিনা জানতে চাইলে সুজন জানান কোচের জন্য সকলের তো দীর্ঘ দিনের পরিকল্পনা থাকে।
আপনি দেখেন স্টিভ রোডস যখন বাংলাদেশে এসেছিল তার কিন্তু ওয়েস্ট ইন্ডিজ সিরিজ ভালো যায়নি।
এরপর কিন্তু বাংলাদেশ তার অধীনে বেশ কয়েকটি ম্যাচ জিতেছে। সময়ের প্রয়োজন হয় পরিকল্পনা করার জন্য। যে কোনো কোচেরই এটা থাকে। যদিও আমি বাংলাদেশ দলের পরিকল্পনা সম্পর্কে জানি। কারণ দলের সঙ্গে আমি অনেক দিন ধরেই আছি। তারপরও দীর্ঘ সময়ের জন্য সুযোগ পেলে যে কোনো মানুষের জন্য কাজ করতে অবশ্যই সুবিধা হয়।

x