শিশুর খাবার নিরাপদ রাখার উপায়

প্রফেসর ডা. প্রণব কুমার চৌধুরী

শনিবার , ১৭ নভেম্বর, ২০১৮ at ৫:৫৭ পূর্বাহ্ণ
34

১. পরিচ্ছন্নতা বজায় রাখা

হাত পরিষ্কার করে প্রতিবার খাবার তৈরি ও পরিবেশন।

হাত ধোবার জন্য এমন জায়গায় সাবান রাখতে হবে যাতে প্রতিবার শিশুর খাবার তৈরি ও খাওয়াবার সময় সাবান দিয়ে হাত ধোয়ার কথা মায়ের মনে থাকে।

বাচ্চাদের পায়খানার রাস্তা পরিষ্কার করার পর এবং পশু পাখি পরিচর্যার পর হাত পরিষ্কার করা।

খাবার জন্য ব্যবহৃত বাসনপত্র ধুয়ে নিতে হবে।

রান্নাঘর ও খাদ্য পোকামাকড় মুক্ত করা।

২. কাঁচা এবং রান্না করা খাদ্য আলাদা রাখা

অন্যান্য খাবার থেকে কাঁচা সামুদ্রিক খাবার মাছ ও মাংস আলাদা রাখতে হবে।

কাঁচা খাবার কাটার জন্য আলাদা ছুরি ও বোর্ড ব্যাবহার করা।

ঢাকনা যুক্ত পাত্রে রান্না করা খাবার রাখা।

৩. ভালোভাবে সিদ্ধ করে রান্না করা

মাংস, ডিম এবং সামুদ্রিক খাদ্য ভালো করে সিদ্ধ করে রান্না করতে হবে।

পুনরায় গরম করার সময় ভালোভাবে গরম করা। সম্ভব হলে ভালো করে ফুটিয়ে নেয়া।

৪. নিরাপদ তাপমাত্রায় সংরক্ষণ

রান্নাকরা খাবার ঘরের তাপমাত্রা ২ ঘন্টার বেশী রাখা যাবে না।

রেফ্রিজারেটর থাকলে লম্বা সময় (৪০ ডিগ্রী ফারনহাইট অথবা এর নিচের তাপমাত্রায় মুরগী, মাংস ১ থেকে ২ দিন এর বেশী) খাদ্য সংরক্ষণ করা উচিত নয়।

৫. নিরাপদ পানি ব্যাবহার

রান্না ও খাবার বেলায় সবসময় নিরাপদ পানি ব্যবহার করা।

সবসময় টাটকা খাবার নির্বাচন করা।

পাস্তুরিত দুধ পান।

যদি কাঁচা খেতে হয়, তাহলে ফল ও শাক নিরাপদ পানিতে ভালোভাবে ধুয়ে নিতে হবে।

প্রক্রিয়াজাত খাবার মেয়াদ (Expiry date) পার হলে না খাওয়া।

লেখক : বিভাগীয় প্রধান, শিশুস্বাস্থ্য বিভাগ, চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ
হাসপাতাল

- Advertistment -