শামীম হাসান এর কবিতা

শুক্রবার , ৪ অক্টোবর, ২০১৯ at ১০:৫৮ পূর্বাহ্ণ
23

অপেক্ষা

সন্ধ্যা ছটায় আসার কথা ছিলো তার
নিয়নের আলো জ্বলে উঠার মাহেন্দ্রক্ষণে
বড় অপরূপ মনে হয় শহরের এই কোণা
শিরিষের ছায়ায় এমনিতে যা থাকে মায়াময়
এই আলো আঁধারি যাকে করেছে আরো উন্মাতাল

কেমন উৎসব চারিদিকে, রেস্তোরাঁর প্রবেশ মুখে
তরুণীরা ভেঙ্গে ভেঙ্গে গোধুলীর রঙ
তরুণেরা জটলায়, হল্লায়, বাইকে ধাবমান
এর মাঝে কোন এক কোনা বেছে নিয়ে বসে আছি

সন্ধ্যা ছটায় আসার কথা ছিলো তার,
এখন রাত দশটা।

স্বপনচারিনী

এখন স্বপ্নেও তাকে দেখি না আর
অনেক দিন সে আসেনা স্বপ্নের ভিতর
সময়-সে কি শূন্য করে দেয় ক্রমে
অন্তরগত সকল আধার !

বহুকাল কেটে গেছে দেখিনা তারে
সে যে আমায় ডেকেছিলো বারে বারে
সকল যাত্রালোকে মেঘের ওপারে
ময়ুর পেখম তোলা দারুণ সব দিনে।

এখন সে বাস করে লখিন্দরের
লোহার ঘরে
কেবল সুতিনালী সাপে যার
পায় খবর……

সকল ধারাপাত যেন গেছে থেমে
ঝাপসা হয় তার অবয়ব
মহাস্থবির হয়ে পড়ে রয় চিন্তামনি
খতম হয় কাহানিয়া অপভ্রংশ হয়ে …।

মোহনার দিকে

কেমন কাটালে বলো বিশটি বছর
বলো দেখি কেমন অনায়াস কেটেছে
প্রেমহীন বিশটি বছর-
কি করে কাটাও সময় আজ,
কি করে এখন দিতে পারো সকল নৈবেদ্য,
পূজার সকল ফুল দেবতারে ছেড়ে আঘাটার কুলে !

নাকি তুড়ি মেরে, ঝেড়ে ফেলে দিয়ে প্রীতির পরশ
নাকি নিপুণ অভিনেত্রীর মতো নির্লিপ্ত অভ্যস্ত ঠোঁটে
আওড়ে গেছো প্রমটার বিহীন গাদা গাদা ডায়ালগ
নব প্রেমে নতুন আঙ্গিকে, নতুন এক মঞ্চে হে নটবর !

উষ্ণতার চাদরে মোড়া যৌবনের কথাগুলো কি মনে আছে
মনে কি আছে প্রতিশ্রুতির আওড়ানো সকল কথন?
এখনো কি তুমি সুনিপুন অষ্টাঙ্গের কামে ও লীলায়
এখনো কি তুমি দিতে পারো আবেগের ঢেউ তোলা প্রগাঢ় চুম্বন ?

বড় বেশী স্পর্শকাতর আজ, বড় বেশী জ্বলছি ঈর্ষার আগুনে
অনিঃশেষ চলেছি উজানে বিপ্রতীপ বিন্দুতে
ভাটার বেলায় দাঁড় টেনে টেনে দূর আরো দূরে চলেছি
মোহনার দিকে আমার আর কখনো যাওয়া হলোনা ।

x