শর্মিলা চৌধুরী (নির্গুণ ব্যক্তির আত্নপ্রচার)

বৃহস্পতিবার , ১ নভেম্বর, ২০১৮ at ৪:১১ পূর্বাহ্ণ
44

: পৃথিবীতে সকলেই বড় হতে চায়, কিন্তু এই কাজটা যে মোটেই সহজ নয় তা অনেকের অজানা। সিঁড়ি দিয়ে উপরে উঠতে গেলে যেমন সর্বনিম্ন ধাপটিতে প্রথম পা রাখতে হয়, তেমনি বড় হতে গেলে বিনয় ও শ্রদ্ধাবোধ আনতে হয়। আমিই বড়, আমার তুল্য কেউ নেই এধরনের মনোভাবে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন প্রকাশিত হয় না।এতে যে স্পর্ধা প্রকাশ পায় তা যেমন নগ্ন, তেমনি নির্লজ্জ। আর এই ধরনের ব্যক্তিরা আত্নপ্রচারের জন্য বিভিন্ন কৃত্রিম প্রচার ব্যবস্থা গ্রহণ করে থাকে। কারণ তার গুণহীনতাকে ঢেকে রাখার জন্য নকল ব্যবস্থা গ্রহণ করে অন্যের কাছে নিজেকে গ্রহণযোগ্য করে তোলার প্রয়াস পায়। কারণ গুণহীন ব্যক্তিদের ঢাকঢোল পিটিয়ে আসল সত্য ঢেকে রাখার প্রয়োজন হয়, নিজের মহিমা কীর্তন করে বেড়াতে হয়। যেহেতু গুণহীন ব্যক্তি অন্যের নিকট স্বাভাবিক সম্মান, শ্রদ্ধা বা মর্যাদা আশা করতে পারে না, সেহেতু আত্নপ্রচারই তার একমাত্র অবলম্বন। ফুলের সুবাস যেমন বাতাসে ছড়াবেই, গুণীজনের গুণও স্বাভাবিক নিয়মে অন্যের নিকট প্রকাশিত হতে বাধ্য। খ্যাতিমান বিজ্ঞানী নিউটনকে বড় বিজ্ঞানী বললে তিনি বিস্ময়ের সাথে বলতেন, আমি জ্ঞান সমুদ্রের বালুকাতটে বালুকণা খুটছি মাত্র। পৃথিবীর কোন জ্ঞানীগুণীর আত্মপ্রচারের কোন প্রয়োজন হয় নি। অথচ নির্গুণ ব্যক্তির আত্মপ্রচারের অন্ত নেই।

x