ল্যাম্পপোস্টের আলোয় উপকৃত হচ্ছেন চন্দনাইশের পূর্ব বরকল এলাকাবাসী ও পথচারীরা

সোমবার , ১৭ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ at ৬:৪৫ পূর্বাহ্ণ
77

চন্দনাইশ পূর্ব বরকল সুন্নী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে এবং সেফায়েত হোসেনের পরিচালনায় ল্যাম্পপোস্টের আলোয় উপকৃত হচ্ছেন পূর্ব বরকল এলাকাবাসী ও পথচারীরা। যেখানে সন্ধ্যা হলেই নেমে আসত ঘুটঘুটে অন্ধকার। বাতাসের শন শন আর ঝিঝি পোকার শব্দে যেন গা ছমছমে লোম দাঁড়িয়ে যাওয়ার উপক্রম হতো। আর অন্ধকারে পথচারিদের প্রতিনিয়ত চুরি ও ছিনতাইয়ের ঘটনা ঘটত। এমন দৃশ্য চন্দনাইশ উপজেলার বাংলাবাজার থেকে পূর্ব বরকল বাহাদুর খান জামে মসজিদ পর্যন্ত প্রায় ১ কিলোমিটার রাস্তায়। আজ সেখানে পূর্ব বরকল সুন্নী কল্যাণ পরিষদের উদ্যোগে বাংলা বাজার থেকে বাহাদুর খান চৌধুরী জামে মসজিদ পর্যন্ত রাতে ল্যাম্পপোস্টের (সড়ক বাতি) মাধ্যমে আলো দেয়া হচ্ছে। ল্যাম্পপোস্টের আলোয় উপকৃত হচ্ছেন এলাকাবাসী ও পথচারীরা। ফলে রাস্তায় কমেছে চুরি ও ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধ। তবে অপরাধ ঠেকাতে রাস্তায় পর্যাপ্ত পরিমাণ ল্যাম্পপোস্ট স্থাপন করা দরকার। সন্ধ্যার পর চুরি ও ছিনতাইয়ের ভয়ে গত কয়েক মাস আগে বাংলা বাজার থেকে সিকদারপাড়া হয়ে বাহাদুর খান চৌধুরী জামে মসজিদ পর্যন্ত মানুষ এ রাস্তা দিয়ে নিতান্ত প্রয়োজন ছাড়া চলাচল করত না। এতে রাতের অন্ধকারে পথ চলতে সমস্যায় পড়তে হতো পথচারিদের। কিন্তু সে দৃশ্য এখন পাল্টিয়ে দিয়েছে ল্যাম্পপোস্টের আলোয়। সন্ধ্যা হলেই নিজ থেকে জ্বলে উঠে নির্দিষ্ট দুরুত্বে স্থাপন করা ১৫টি ল্যাম্পপোস্টের বাতি। চলে সকাল পর্যন্ত। শুধু রাস্তাঘাটই নয়। হাটবাজার ও জনবহুল স্থানগুলোতে ল্যাম্পপোস্টের মাধ্যমে আলোকিত করণ করা হয়েছে। মানুষ এখন যেকোন সময় নির্দ্বিধায় রাস্তা দিয়ে চলাচল করতে পারছে। রাস্তায় কমেছে চুরি ও ছিনতাইসহ বিভিন্ন অপরাধ এবং সড়ক দুর্ঘটনা। ভবিষ্যতে পূর্ব বরকল সুন্নী কল্যাণ পরিষদের সদস্যরা বিভিন্ন উন্নয়নের কাজ হাতে নেবে এবং এ কাজে তাদেরকে সহযোগিতা করার জন্য এলাকার বিত্তবানদের সহযোগিতা আশা করছেন এলাকাবাসীরা। বাংলা বাজারের এক অটোরিক্সা চালক জামাল উদ্দিন বলেন, এক সময় এ রাস্তা খুবই ঝুঁকিপূর্ণ ছিল। সন্ধ্যার পর মানুষ ভ্যান ও গাড়ী নিয়ে চলাচল করতে পারত না। রাস্তায় বাতি দেয়ার পর থেকে আলোকিত হয়েছে। চুরি ও ছিনতাইয়ের কোন ঘটনা ঘটছে না। যে কোন সময় যাত্রী নিয়ে আসা যাওয়া করা যায়। এতে আমাদের জন্য অনেক সুবিধা হয়েছে। রাস্তায় আগে অন্ধকার ছিল। বিশেষ করে রাস্তার বাঁকগুলোতে প্রতিনিয়ত দুর্ঘটনা ঘটত। গত ছয়মাস থেকে রাস্তায় বাতি দেয়ার পর থেকে তেমন আর দুর্ঘটনা ঘটছে না। তবে বাংলা বাজার থেকে বাহাদুর খান চৌধুরী জামে মসজিদ পর্যন্ত ল্যাম্পপোস্টের দূরত্বটা বেশি হয়েছে। মাঝখানে আরেকটি করে দিলে সুবিধা হতো।

এলাকাবাসীর পক্ষেমোহাম্মদ রিদুওয়ান সিকদার, পূর্ব বরকল, চন্দনাইশ, চট্টগ্রাম।

x