রোহিঙ্গা অনুপ্রবেশের দুই বছর

প্রত্যাবাসন পরিকল্পনা বানচালের পর বর্ষপূর্তি পালনে নানা আয়োজন

রফিকুল ইসলাম, উখিয়া

রবিবার , ২৫ আগস্ট, ২০১৯ at ৪:৪২ পূর্বাহ্ণ
543

বাংলাদেশে রোহিঙ্গাদের পালিয়ে আসার দুই বছর পূর্ণ হচ্ছে আজ। দিনটিকে ব্যাপক আকারে পালন করতে রোহিঙ্গারা নানা কর্মসূচি গ্রহণ করেছে। গত বছরও রোহিঙ্গারা ক্যাম্পগুলোতে তাদের পলায়নের প্রথম বার্ষিকী উদযাপন করেছিল। জাতিসংঘের কিছু সংস্থা ও দেশী বিদেশী এনজিওগুলোর সহযোগিতায় এবারের বর্ষপূর্তি উদযাপন ভিন্ন মাত্রা যোগ হবে বলে জানা গেছে। কারণ তারা সমম্বিতভাবে গত ২২ আগস্টের রোহিঙ্গা প্রত্যাবাসন পরিকল্পনা বানচাল করতে সক্ষম হয়েছে।
জানা গেছে, ৩২টি ক্যাম্পে গত ১৫ দিন ধরে রোহিঙ্গা নেতারা ডোর টু ডোর কাজ করেছে। তারা সব ক্যাম্পে ২৫ আগস্ট ব্যাপকভাবে পালনে সাধারণ রোহিঙ্গাদের সম্পৃক্ত করতে উদ্বুদ্ধকরণ সভা সমাবেশ করেছে। রোহিঙ্গাদের দেশি বিদেশি কিছু সংগঠনের নির্দেশনা ও পরিকল্পনা অনুযায়ী ক্যাম্পগুলোতে রোহিঙ্গা নেতা ও মাঝিরা দিবসটি পালনে অধিক তৎপরতা চালাচ্ছে।
এবার সব ধরনের নারী, শিশু, পুরুষদের সম্মিলিতভাবে প্রত্যেকটি ক্যাম্প স্ব স্ব নেতা ও মাঝিদের নেতৃত্বে মিছিল মিটিং ও বিক্ষোভ কর্মসূচিতে অংশ গ্রহণের নির্দেশ দেয়া হয়েছে বলে রোহিঙ্গারা জানান। আরাকান রোহিঙ্গা সোসাইটি ফর পিস এন্ড হিউম্যান রাইটস বা এআরএসপিএইচ, ভয়েস অব রোহিঙ্গা যৌথভাবে তাদের গৃহীত কর্মসূচি পালনের অনুমতি পেয়েছে বলে জানা গেছে। এ দুই সংগঠনের পক্ষ থেকে ক্যাম্পগুলোর বিভিন্ন ব্লক মাঝিকে প্রয়োজনীয় ব্যানার, ফেস্টুন, প্লেকার্ড সরবরাহ করা হয়েছে। উখিয়ার ২০টি ক্যাম্প থেকে একই সময়ে ২৫ আগস্ট বিক্ষোভ মিছিল নিয়ে কুতুপালং এঙটেনশন -৪ ক্যাম্পের মাঠে সমবেত হওয়ার কথা রয়েছে।
এ দুটি রোহিঙ্গা সংগঠন তাদের দেশী বিদেশী নেতাদের সমম্বয়ে কর্মসূচি যাবতীয় সরঞ্জামাদির খরচ মেটাচ্ছে বলে জানা যায়। প্রতিটি রোহিঙ্গাকে সাদা কাপড় পরে কর্মসূচিতে অংশগ্রহনের নির্দেশ দেয়া হয়েছে। বিশাল আয়োজন, ব্যানার মালামাল, ফেস্টুন, প্লেকার্ড ইত্যাদির যোগানদাতা ও খরচ বহনকারীরা বরাবরই আড়ালে থেকে যাচ্ছে।
উখিয়া থানার ওসি মো. আবুল মনসুর বলেন, রোহিঙ্গা ক্যাম্পগুলোতে ২৫ আগস্ট পালন উপলক্ষে সংশ্লিষ্ট ক্যাম্পের ইনচার্জগণ দেখভাল করবেন। উখিয়া উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মো. নিকারুজ্জামান চৌধুরী বলেন, এখনও এ ব্যাপারে সরকারের কোন নির্দেশনা পাওয়া যায়নি। কঙবাজার জেলা প্রশাসকের সাথে আলোচনা করে পরবর্তী ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান। কুতুপালং ৩ ও ৪নং ক্যাম্পের ইনচার্জ মো. শামীমুল হক পাভেলের ফোন যোগাযোগ করে তাকে পাওয়া যায়নি।

x