রায়ে ‘পুরো সন্তুষ্ট নয়’ আওয়ামী লীগ

বৃহস্পতিবার , ১১ অক্টোবর, ২০১৮ at ১০:২৬ পূর্বাহ্ণ
25

গ্রেনেড হামলার রায়ে আওয়ামী লীগ অখুশি না হলেও ‘মাস্টারমাইন্ড’ তারেক রহমানের সর্বোচ্চ সাজা না হওয়ায় ‘পুরোপুরি সন্তুষ্টও নয়’ আওয়ামী লীগ। রায়ের পর গতকাল দুপুরে ঢাকায় বঙ্গবন্ধু আন্তর্জাতিক সম্মেলন কেন্দ্রে এক অনুষ্ঠানে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদের তাৎক্ষণিকভাবে এই প্রতিক্রিয়া জানান। তিনি বলেন, ‘আওয়ামী লীগের পক্ষ থেকে আমি বলতে চাই, আমরা বিলম্বিত হলেও এই রায়ে অখুশি নই। কিন্তু পুরোপুরি সন্তুষ্ট নই। কারণ এই রায়ে প্ল্যানার এবং মাস্টারমাইন্ডের শাস্তি হওয়া উচিত ছিল, সর্বোচ্চ শাস্তি, ক্যাপিটাল পানিশমেন্ট।’ খবর বিডিনিউজের।
কাদের বলেন, ‘সে সময় বনানীর হাওয়া ভবন থেকেই সবকিছু নিয়ন্ত্রণ করা হত। তখন বেগম জিয়ার সরকার ক্ষমতায়, হাওয়া ভবনই বিকল্প পাওয়ার সেন্টার ছিল। মুফতি হান্নান নিজেই স্বীকারোক্তি দিয়ে গেছে যে, অপারেশন চালানোর পূর্ব মুহূর্তে তারেক রহমানের অনুমতি নেওয়া হয়েছিল। বিএনপি আমলে ওই হত্যাকাণ্ডের তদন্ত ভিন্ন খাতে নিতে নানা চেষ্টা হয়। পরে ২০০৭ সালে তত্ত্বাবধায়ক সরকারের সময়ে নতুন করে তদন্ত শুরু হলে ‘প্রকৃত তথ্য’ বেরিয়ে আসতে থাকে। উদঘাটিত হয় ‘জজ মিয়া নাটক’। ওবায়দুল কাদের বলেন, ‘ওই নৃশংস ]হত্যাকাণ্ডের প্রধান টার্গেট ছিল তৎকালীন বিরোধীদলের নেতা আজকের প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা। তাকে প্রধান টার্গেট করে যে হামলা এবং যে হত্যাকাণ্ডের পরিকল্পনাকারী, মাস্টারমাইন্ড কে এটা দেশের জনগণ ভালো করে জানে, এটা এখন আর গোপন কিছু নয়। প্রকাশ্য দিবালোকের মতো সত্য।’
ওই হামলায় ২৪ জনের মৃত্যুর কথা মনে করিয়ে দিয়ে আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক বলেন, ‘এই নির্মম হত্যাকাণ্ডের কোনো মূল্য সে সময়কার সরকারের কাছে ছিল না। এমনকি তখনকার সরকার মামলার আলামত পর্যন্ত নষ্ট করে দিয়েছে। এফবিআইকে তদন্ত করতে দেয়নি। স্কটল্যান্ড ইয়ার্ডকে বাংলাদেশে আসতে দেওয়া হয়নি। একটা ছেলেকে ধরে এনে জজ মিয়া নাটক সাজানো হয়েছিল।’
অপকর্ম করলে শাস্তি হবেই -স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী : এদিকে রায়ের প্রতিক্রিয়ায় স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী আসাদুজ্জামান খাঁন কামাল বলেছেন, কেউ অপকর্ম করলে তার শাস্তি হবেই। তিনি বলেন, ‘বাংলাদেশের মানুষ মনে করে, এই রায়ে যোগ্য বিচার হয়েছে। দেশে যারাই অপকর্ম করবে তাদের শাস্তি যে হবে এই রায়ের মাধ্যমে তা আবারও প্রমাণিত হয়েছে।’ স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী বলেন, ‘আজকে জাতির জন্য বড় একটা দিন। আমরা মনে করি, জাতির আরও একটি কালিমা যেটা লেপন করেছিল সেই কালিমা আজকে দূর হল। আমরা মনে করি, বাংলাদেশের মানুষ স্বস্তির নিঃশ্বাস ফেলবে যে এদেশে বিচার প্রতিষ্ঠিত হয়েছে এখানে ন্যায় বিচার হয় এবং যারাই এ ধরনের কর্ম করবে তাদের বিচার অবশ্যই হবে।’ পাশাপাশি সাজাপ্রাপ্ত পলাতক আসামিদের দেশে ফিরিয়ে আনতে সরকারের তরফ থেকে উদ্যোগ নেওয়া হবে বলে জানান স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী।
সাংবাদিকদের ধন্যবাদ দিয়ে তিনি বলেন, ‘শেখ হাসিনাকে হত্যা করার উদ্দেশে সেদিন যে ঘটনা ঘটানো হয়েছিল আপনারা (সাংবাদিক) সেগুলো জানেন, আপনারা সেদিন সাহসিকতার পরিচায় দিয়েছিলেন, আপনারা সেদিন ক্যামেরান্দি করেছিলেন বলেই জাতি জানতে পেরেছিল কত ভয়াবহ, কত হৃদয়বিদারক ঘটনা ঘটেছিল, কত নিষ্ঠুরতা সেখানে ছিল।’
ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে -ইনু : ২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলার ঘটনায় ৪৯ আসামির সাজার রায়ের মধ্য দিয়ে ‘ন্যায়বিচার প্রতিষ্ঠা হয়েছে’ হয়েছে বলে মন্তব্য করেছেন জাসদ সভাপতি হাসানুল হক ইনু। গতকাল এক বিবৃতিতে তথ্যমন্ত্রী ইনু বলেন, ‘২১ আগস্ট গ্রেনেড হামলা ছিল ইতিহাসের ঘৃণ্য সুপরিকল্পিত রাজনৈতিক হত্যাকাণ্ড।’ একটি রাজনৈতিক দলকে নিশ্চিহ্ন করার জন্য রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে এ হত্যাকাণ্ড চালানো হয়েছিল বলে মন্তব্য করেন হাসানুল হক ইনু।

x