রবিবারের বিমান ছিনতাই চেষ্টায় পতেঙ্গা থানায় মামলা

আজাদী অনলাইন

সোমবার , ২৫ ফেব্রুয়ারি, ২০১৯ at ৯:৪৬ অপরাহ্ণ
148

গতকাল রবিবার (২৪ ফেব্রুয়ারি) বিমান ছিনতাই চেষ্টার ঘটনায় নিহত পলাশ আহমেদসহ কয়েকজনকে আসামি করে নগরীর পতেঙ্গা থানায় মামলা করেছে বেসামরিক বিমান চলাচল কর্তৃপক্ষ।

এতে বাদী হয়েছেন সিভিল এভিয়েশন কর্তৃপক্ষ, চট্টগ্রামের প্রযুক্তি সহকারী দেবতোষ সরকার।

আজ সোমবার (২৫ ফেব্রুয়ারি) রাতে মামলাটি করা হয়।

পতেঙ্গা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) উৎপল বড়ুয়া বলেন, ‘সন্ত্রাস বিরোধী আইন ২০১৩-এর ১৩ ও ৬ (১) ধারা এবং বিমান-নিরাপত্তা বিরোধী অপরাধ দমন আইন ১৯৯৭-এর ১১ (২) ও ১৩ (২) ধারায় মামলাটি করা হয়েছে।’ বিডিনিউজ

বিমান-নিরাপত্তা বিরোধী অপরাধ দমন আইনের ১১ (২) ধারা অনুযায়ী কোনো বিমান উড্ডয়নে থাকাকালে বল প্রয়োগের মাধ্যমে বা ভীতি প্রদর্শন বা অন্য কোনো উপায়ে বিমানটির নিয়ন্ত্রণ ব্যবস্থা দখলের চেষ্টা করলে তা হবে অপরাধ। এর শাস্তি কমপক্ষে ৫ বছর কারাদণ্ড, অনধিক ২০ বৎসর সশ্রম কারাদণ্ড অথবা যাবজ্জীবন কারাদণ্ড অথবা মৃত্যুদণ্ড।

আইনটির ১৩ (২) ধারা অনুযায়ী কোনো ব্যক্তি যদি বেআইনি ও ইচ্ছাকৃতভাবে কোনো বিমান উড্ডয়নে থাকাকালে সহিংস কাজ করেন, তাহলেও শাস্তি একই।

সন্ত্রাসবিরোধী আইনের ১৩ ধারায় সর্বোচ্চ শাস্তি যাবজ্জীবন কারাদণ্ড। ৬ (১) ধারায়ও সর্বোচ্চ শাস্তি একই।

এই বিমান ছিনতাইচেষ্টায় একজনই জড়িত ছিলেন বলে জানানো হয়েছে। পলাশ আহমেদ নামে সেই যুবক রবিবার চট্টগ্রাম শাহ আমানত বিমানবন্দরে কমান্ডো অভিযানে নিহত হন।

মামলায় পলাশ আহমেদের নাম উল্লেখসহ অজ্ঞাতনামা আরও কয়েকজনকে আসামির তালিকায় রাখা হয়েছে বলে জানিয়েছেন ওসি উৎপল।

রাষ্ট্রায়ত্ত সংস্থা বিমান বাংলাদেশ এয়ারলাইন্সের ফ্লাইট বিজি-১৪৭ রবিবার বিকালে ঢাকার হজরত শাহজালাল আন্তর্জাতিক বিমানবন্দর থেকে উড্ডয়নের পরপরই ওই যুবক অস্ত্র ঠেকিয়ে জিম্মি করেন ক্রুদের।

ওই অবস্থায় বিমানের পাইলট চট্টগ্রামের শাহ আমানত আন্তর্জাতিক বিমানবন্দরে বিমানটি জরুরি অবতরণ করান। যাত্রী ও ক্রুদের নামিয়ে আনার পর কমান্ডো অভিযান চালানো হয়।

ওই যুবক তার স্ত্রীর সঙ্গে সমস্যা নিয়ে প্রধানমন্ত্রীর সঙ্গে দেখা করতে চেয়েছিলেন বলে জানিয়েছিলেন অভিযান পরিচালনাকারীরা।

পরে জানা যায়, তিনি চিত্রনায়িকা শিমলার স্বামী ছিলেন, সাড়ে ৩ মাস আগে শিমলা তাকে তালাক দেন।

তার কাছ থেকে একটি অস্ত্র উদ্ধারের কথা জানানো হলেও পরে পুলিশ জানায়, সেটি ছিল খেলনা পিস্তল।

এই ঘটনা তদন্তে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে একজন অতিরিক্ত সচিবের নেতৃত্বে ৫ সদস্যের একটি তদন্ত দল গঠন করা হয়েছে।

x