রনিতা জামান (মুখোশ আর মুখশ্রী)

শুক্রবার , ৯ নভেম্বর, ২০১৮ at ৮:৩৬ পূর্বাহ্ণ
32

: ব্যক্তির নিজস্ব শৈলী বা স্টাইল হল- একজন ব্যক্তির মেধা মনন, শিক্ষা আর তার আত্মার অভ্যন্তরীণ সত্তা! সময়ের আবর্তে সতত পরিবর্তনশীল মানুষের বাহ্যিক আবরণটাই হচ্ছে ফ্যাশন! স্টাইল আর ফ্যাশন একে অপরের বিপরীত! একটি পরিবর্তনশীল অপরটি স্থায়ী! আজকে আমরা যাকে প্রচলিত ফ্যাশন বলছি! আগামীকাল যে, তার পরিবর্তন হবে না তা কিন্তু নয়! ফ্যাশন যুগে যুগে পরিবর্তিত হচ্ছে, হবে এটাই স্বাভাবিক! নতুন ফ্যাশনের আবির্ভাব হলে পুরনো ফ্যাশনের অস্তিত্ব বিলুপ্ত হয়ে যায়! তাই ফ্যাশনকে আমরা কিন্তু মুখোশের সাথে এক করতে পারি! মুখোশ যেমন বার বার বদলিয়ে মানুষকে আনন্দ দেয়া যায়! ঠিক তেমনি ভাবেই, মানুষের বৈচিত্র্যের জন্য ফ্যাশনের পরিবর্তন আবশ্যক হয়ে যায়! অন্যদিকে স্টাইল অপেক্ষাকৃত স্বায়ী ব্যবস্থা! স্টাইল সচরাচর পরিবর্তন হয় না! বরং পরিবর্ধন ও পরিমার্জন হয়! আমরা বিভিন্নভাবে রকমারি প্রসাধনী ব্যবহার করে মুখের সৌন্দর্য বৃদ্ধি করি! আবার অনুশীলনের মাধ্যমে স্টাইলকে আকর্ষণীয় করে তুলতে পারি! ফ্যাশন আর স্টাইল কখনো এক হতে পারে না! আজকাল আমাদের ভদ্র সমাজে এ দু’টোকে এক বিবেচনা করা হয়! বরং ফ্যাশন আজকাল সভ্যতার অন্তরালে ভোগ – বিলাসিতা চরিতার্থ করার একটা ভদ্র কৌশল! যুগ যুগ ধরে একজন ব্যক্তি তার সুন্দর একটি মুখশ্রীর মধ্যেই নিজেকে সাজাতে পছন্দ করে! আর মুখোশ সে তো নিত্য নতুন রং বদলাতে মরিয়া হয়ে নানান কৌশল অবলম্বন করতে পছন্দ করেন! তাই মনে হয় মুখোশ ত্যাগ করে মুখশ্রী হয়ে নিজের সৌন্দর্যে নিজেই ভালো থাকা যায়!এতে করে নিজেও ভালো থাকা যায়! অন্যকে ও ভালো রাখা যায়!

x