মেরিনা সুলতানা (বন্ধুত্ব)

শুক্রবার , ১২ এপ্রিল, ২০১৯ at ৫:৫৩ পূর্বাহ্ণ
255

: বন্ধু মানে এক বা একাধিক বিশেষ ব্যক্তির মাঝে হৃদ্যতা। সেই ব্যক্তি বা ব্যক্তিগুলোকে নিয়ে গড়ে উঠে এক বন্ধন,এটা এমন একটা বন্ধন,যাদের কাছে পেলে মনের ভিতরে একটা ভালোলাগা অনুভূত হয়, দীর্ঘশ্বাস ফেলে হৃদয়ে জমানো সুখ দুঃখের কথা গুলো শেয়ার করা যায়, জমানো কষ্ট ও অর্জিত আনন্দগুলো ভাগাভাগি করে হৃদয়টাকে সচল করা যায়। এমন একটা বন্ধনই হলো বন্ধুত্ব। শিক্ষা জীবনে বন্ধুত্ব যেমন একসাথে পথ চলা,হাতে হাত রেখে কথা বলা,কফি শপে গিয়ে আড্ডার ঝড় তোলা,সন্ধ্যা হলে গিটার হাতে উদাস সুরে গান গেয়ে ওঠা। কিন্তু সংসার ও কর্মজীবনে এসে তা পাল্টে যায় অনেকটা। তবু বন্ধন থাকে। যোগাযোগ হয় ফোনে কিংবা ফেসবুকে। প্রতিদিন দেখা বা কথা না হলেও মাঝে মাঝে কথা ও দেখা করা যায় ইচ্ছে থাকলেই। আবার সবার একসাথে দেখা হওয়ার জন্য বন্ধুরা মিলে আয়োজন করে একটা সমাবেশের। এটা হল বন্ধু সমাবেশ। আর বন্ধু সমাবেশ হলে তো কথাই নেই,অনেক বন্ধুকে একসাথে পাওয়া।যেখানে থাকবে না কোন পিছুটান,সংসারে সব ভুলে যাওয়া।হইচই,আনন্দ, সুখ,দুঃখ ভাগাভাগি সবকিছু। সেই শিক্ষা জীবনের মত ঝড় বইবে গিটারে কিংবা কথায়। প্রাত্যহিক ব্যক্তি জীবনের সব গ্লানি,আর অবসাদগুলো পড়ে থাকবে চায়ের কাপের তলানির মতই।হাই হ্যালোর সাথে আই কন্টাক্ট হবে প্রতিটা বন্ধুর সাথে। কিন্তু সেখানে যদি থাকে হিংসা, দলনেতা হবার আকাঙ্ক্ষা,দোষ ধরাধরি,অহমিকা,অহংকার। থাকে যদি চাকুরিতে পদবির দাপটতা,বন্ধুকে দেখে যদি অন্য বন্ধুরা দাঁড়িয়ে যেতে হয় ,সেই বড় পদবি ওয়ালা বন্ধুটি যদি চেয়ারপারসনের মত জায়গাটি দখল করে,আর মাইক্রোফোনে শুধু তার গুণগান শুরু হয় তাহলে সেটা কি বন্ধু আড্ডা হয়? তখন সেটা মনে হয় কোন রাজনৈতিক বা অফিসিয়াল সভা, যা এক রকম তোষামোদ স্থলে পরিণত হয়ে উঠে। তখন কিছু বন্ধু হতাশ হয়ে পড়ে, যখন দেখে গুটি কয়েক বন্ধু নিজেদের মধ্যে হাই হ্যালো করে আর অন্যদের এড়িয়ে চলে,তখন তাদের মনও খারাপ হয়। তাই কেউ কেউ তখন বাধ্য হয়েই সমাবেশ স্থল ত্যাগ করে।এসব সমাবেশকে বন্ধুত্ব বা বন্ধু সমাবেশের সংজ্ঞায় ফেলা যায় না। বন্ধুত্বে উদারতা শব্দটা বিশাল একটা ভূমিকা রাখে। মনকে প্রশস্ত করে হৃদয়কে উজাড় করে বন্ধুর জন্য উদার হয়ে যেতে পারাটা একটা বিশাল হৃদয়ের ও মানসিকতার বহিঃপ্রকাশ। প্রতি দিনতো নয়। মাত্র এই একদিন। ৩৬৫ দিনের মাঝে এই দিনটায় ভুলে যেতে হবে নিজ নিজ পরিবার, পরদিন আর ব্যবসায়িক পার্টনার । ভুলে যেতে হবে আপনি একজন সচিব, যুগ্ম সচিব, কর কমিশনার বা ডিস্ট্রিক জজ। নিজেকে যুক্ত রাখুন অন্য বন্ধুর সাথে। অহমিকা নয় উদারতাই পারে মানুষকে কাছে টানতে। এমন বন্ধুত্ব স্থাপন করুন যেন তা অমর হয়ে থাকে পৃথিবীর বুকে। হাতটি বাড়িয়ে দিন অসহায়, দরিদ্র, রোগা আক্রান্ত বন্ধুটির দিকে। খোঁজ নেন কেন বন্ধুটি কি অবস্থায় আছে। সৃষ্টি করুন নতুন দিক, নতুন উদাহরণ,প্রশস্থ করুন হৃদয়, লম্বা করুন নিজের হাতটিকে। জয় হবে বন্ধুত্বের।

x