মেধাবী শিক্ষার্থীদের গড়ে তুলতে কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে

সিআইইউর অরিয়েন্টেশনে উপাচার্য

বৃহস্পতিবার , ২ মে, ২০১৯ at ৭:৩৫ অপরাহ্ণ
46

চিটাগং ইন্ডিপেন্ডেন্ট ইউনিভার্সিটি(সিআইইউ)-এর উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী মননশীলতা, নিরলস জ্ঞান চর্চা ও নেতৃত্বদানের উপযোগী শিক্ষাব্যবস্থার ওপর গুরুত্বারোপ করে বলেছেন, ‘জাতির স্বপ্ন বাস্তবায়নে উচ্চশিক্ষার বারান্দায় পা রাখা মেধাবী শিক্ষার্থীদের যুগোপযুগী শিক্ষার মাধ্যমে গড়ে তুলতে এখনই কার্যকর পদক্ষেপ নিতে হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘বিশ্ববিদ্যালয় জীবন হচ্ছে মুক্ত আকাশে ডানা মেলে ওড়ার আনন্দ। এখানে জ্ঞান সঞ্চারণ, নতুন জ্ঞানের উদ্ভাবন ও উদ্ভাবিত জ্ঞান কাজে লাগিয়ে নিজেকে প্রস্তুত করার যথেষ্ট সুযোগ রয়েছে।’
আজ বৃহস্পতিবার (২ মে) সকালে নগরীর জামাল খানের সিআইইউ ক্যাম্পাসের অডিটরিয়ামে অনুষ্ঠিত ২০১৯ সালের সামার সেমিস্টারের অরিয়েন্টেশন অনুষ্ঠানে সভাপতির বক্তব্যে এসব কথা বলেন উপাচার্য।
এই সময় বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের শিক্ষক-ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-শিক্ষার্থী ও অভিভাবকরা উপস্থিত ছিলেন।
উপাচার্য অধ্যাপক ড. মাহফুজুল হক চৌধুরী শিক্ষার্থীদের লাইব্রেরিতে ডুবে থাকার পরামর্শ দিয়ে বলেন, ‘বইয়ের সঙ্গে বন্ধুত্ব করার সুযোগটা কখনই হাতছাড়া করা উচিত নয়। সবার আগে জ্ঞান অর্জনের ধাপটাকে অধিক গুরুত্ব দিতে হবে।’
তিনি আরও বলেন, ‘পড়ালেখার পাশাপাশি সৃষ্টিশীল কর্মকান্ড শিক্ষার্থীদের দূরদর্শী নাগরিক হিসেবে গড়ে তোলে। তাই স্বাধীনতা উপভোগ করার সঙ্গে দায়িত্ববান হওয়ার চেষ্টাও থাকতে হবে তরুণ-তরুণীদের।’
অনুষ্ঠানে স্কুলগুলোর বিভিন্ন কার্যক্রম তুলে ধরেন স্কুল অভ লিবারেল আর্টস অ্যান্ড সোশ্যাল সায়েন্সেস-এর ডিন অধ্যাপক কাজী মোস্তাইন বিল্লাহ, স্কুল অভ সায়েন্স অ্যান্ড ইঞ্জিনিয়ারিংয়ের ডিন অধ্যাপক ড. মো. রেজাউল হক খান, স্কুল অভ ল’র উপদেষ্টা অধ্যাপক মো. জাকির হোসেন ও বিজনেস স্কুলের ডিন ড. মোহাম্মদ নাঈম আবদুল্লাহ।
অনুষ্ঠানে ভর্তি হওয়া নতুন শিক্ষার্থীদের কাছে প্রশাসনিক কাজের নানা ধরণ উপস্থাপন করেন ভারপ্রাপ্ত রেজিস্ট্রার আনজুমান বানু লিমা, পরীক্ষা নিয়ন্ত্রক সরকার কামরুল মামুন, ফিন্যান্স অ্যান্ড অ্যাকাউন্টস শাখার ভারপ্রাপ্ত পরিচালক সালমা বেগম (এফসিএ), সহকারী লাইব্রেরিয়ান সাকিনা সুলতানা প্রমুখ।
এদিকে নতুন ভর্তি হওয়া শিক্ষার্থীদের পদচারণায় মুখর হয়ে উঠেছে সিআইইউ ক্যাম্পাস। প্রশান্ত ধর নামের ইঞ্জিনিয়ারিং স্কুলের একজন ছাত্র বলেন, ল্যাবগুলো দেখে ভীষণ ভালো লেগেছে। এখানে পড়তে এসে স্কুল জীবনের বেশ কয়েকজন বন্ধুকে বহুদিন পর পুনরায় কাছে পেয়ে আনন্দটা যেন আজ বেশি পেয়ে গেলাম।

x