(মৃত্যুঞ্জয়ী)

ওমর ফারুক চৌধুরী জীবন

বৃহস্পতিবার , ১৫ আগস্ট, ২০১৯ at ৫:৩৯ পূর্বাহ্ণ
73

: কী পরিমাণ সম্মোহনী শক্তির অধিকারী হলে, কী পরিমাণ মহান ব্যক্তিত্ব হলে, বঙ্গবন্ধু আজ থেকে ৪৫ বছর আগে এমন একটা অর্ধ মূর্খ, বর্বর, জগাখিচুড়ী মার্কা জাতিকে স্বাধীনতা এনে দিতে পেরেছিলেন। কতবড় নেতা হলে তাঁর ডাকে এই বিশৃঙ্খল জাতি সাড়া দিয়ে একত্রিত হয়ে একটি পরাশক্তির বিরুদ্ধে সশস্ত্র সংগ্রামে লিপ্ত হয়েছিল? পারবে কেউ এখন? ছোট্ট কোন একটা ইস্যুতে সমগ্র জাতিকে একত্রিত করতে? অসম্ভব! এই জাতির জন্যেই কি বঙ্গবন্ধু তাঁর জীবনের সোনালী সময়টুকু জেলখানায় কাটিয়েছিলেন? এই বর্বর জাতির জন্যেই কি জাতীয় চার নেতার জীবনোৎসর্গ? এই জাতির জন্যেই কি ৩০ লাখ শহীদের রক্তগঙ্গা বয়ে যাওয়া? ২ লাখ মায়ের সম্ভ্রম বিসর্জন। আমি হলফ করে বলতে পারি, আজকের এই প্রযুক্তির যুগের শিক্ষিত মানুষ গুলোর চাইতে সেদিনের সেই গরীব কৃষক, দিনমজুর, অশিক্ষিত সমাজ অনেক ভাল ছিল। যাদের মধ্যে ছিল অকৃত্রিম দেশপ্রেম, মমত্ববোধ। যা আজকের শিক্ষিত সমাজের মধ্যে ছিটেফোঁটাও নেই! জ্ঞান-বিজ্ঞানের এই যুগে একটা মানুষকে পিটিয়ে মেরে ফেলতে দ্বিধা করেনা। ছেলে ধরা কিংবা কল্লা কেটে নিয়ে যাচ্ছে বলে, গণপিটুনিতে মানুষকে জলজ্যান্ত মেরে ফেলতে পারে। ফুলের মত শিশুর সাথে অমানবিক আচরণ করতে পারে, অতঃপর মেরে ফেলতে পারে। এক মহিলা গিয়ে বিদেশী প্রভুর কাছে মিথ্যা নালিশ করতে পারে। যে দেশে প্রত্যেক মানুষের রক্তে ক্রোধ, চরম সাম্প্রদায়িক মনোভাব (সেটা প্রত্যেক ধর্মেই), ঈর্ষা, পরশ্রীকাতরতা, যুদ্ধাংদেহী ভাব। সরকারের পজেটিভ সিদ্ধান্ত মানে না। নিজের ঘর নিজে নোংরা করে অন্যের দোষ দেয়। সবকিছুতেই উল্টো চিন্তা। একটি কনফিউজড জাতি! এই জাতি কোন অপরাধ ঘটলেই, সাথে সাথে বাছবিচার না করেই ক্রস ফায়ার দিতে হবে বলে চিল্লাফাল্লা করে। আবার কাউকে ক্রস ফায়ার দিলে বলে, মানবাধিকার লঙ্ঘন হয়েছে। সবচেয়ে ইন্টারেস্টিং বিষয় হল; মানুষ মনে করে দেশ ‘জিরো ক্রাইমের দেশ’ হতে হবে। পৃথিবীর প্রত্যেক দেশেই অপরাধ হয়। সেটা স্বাভাবিক বিষয়। ১০টা সাফল্যের পর একটা অপরাধ ঘটলেই সাথে সাথে সব সাফল্যে পানি ঢেলে দেয়। চারিদিকে এক অসুস্থ সমাজ বিরাজ করছে। স্বাধীনতার ৪৫ বছর পর জ্ঞান-বিজ্ঞান, উৎকর্ষতার যুগে বাঙালি জাতির এই অবস্থা। না জানি ৭১ সালে কেমন ছিল। আজ থেকে ৫০ বছর আগে আমেরিকা চাঁদে মানুষ পাঠিয়েছিল, আর আমরা এখানে বসে খালি চোখে চাঁদে মানুষ দেখতে পাই! এই জাতি নিজেরাই জানে না, আসলে তাঁরা কি চায়। আফসোস শুধু একটাই ড. মুনতাসীর মামুনের কথাটাই বারবার সত্য প্রমাণিত হয়; বঙ্গবন্ধু অনিচ্ছুক একটা জাতিকে স্বাধীনতা এনে দিয়েছিল। আমি বলি, বাঙালি জাতির হাজার বছরের কোন পুণ্যের ফলে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব এই দেশে জন্মেছিলেন সেটা কেবল বিধাতাই জানেন। এই অকৃতজ্ঞ জাতি তো তাঁর জনককেই হত্যা করেছিল, সেই পাপের শাস্তি আজ প্রতিটা মানুষ ভোগ করছে হয়ত। গুটি কয়েক বিশ্বাসঘাতক থাকলেও বঙ্গবন্ধুর পাশে সেদিন কিছু বিশ্বস্ত সোনার মানুষ ছিলেন কিন্তু আজ বঙ্গবন্ধুর কন্যা একা, বড্ড একা।

x