মায়ের দুধের উপাদানে তারতম্য

প্রফেসর ডা. প্রণব কুমার চৌধুরী

শনিবার , ৪ আগস্ট, ২০১৮ at ৯:১১ পূর্বাহ্ণ
34

মায়ের দুধে বিভিন্ন পুষ্টি উপাদানের পরিমাণ শিশুর শরীরের চাহিদা অনুযায়ী থাকে। শিশুর বয়স বৃদ্ধির সাথে সাথে শিশুর পুষ্টি চাহিদা পূরণের জন্য মায়ের দুধের বিভিন্ন পুষ্টি উপাদানেরও তারতম্য হয়। এছাড়া মায়ের খাদ্যভ্যাসও মায়ের দুধের পুষ্টি উপাদানকে প্রভাবিত করে। তবে এ পরিবর্তন খুবই সামান্য। যেমনশাল দুধে পরিপক্ক দুধ অপেক্ষা বেশি আমিষ থাকে এবং পরিপক্ক দুধ শাল দুধের চেয়ে পাতলা ও পরিমাণে বেশি হয়। আবার শিশুকে খাওয়ানোর সময় ভেদও মায়ের দুধের উপাদানে পরিবর্তন লক্ষ্য করা যায়।

মায়ের দুধ বৈশিষ্ট্য

প্রথম দিকের বা প্রারম্ভিক দুধ: দুধ খাওয়ানোর শুরুতে যে দুধ প্রারম্ভিক দুধ শেষের দুধের চাইতে পাতলা, এটা বেশি পরিমাণে তৈরি হয় তাকে প্রারম্ভিক বা প্রথম দিকের দুধ বলে। তৈরি হয় এতে প্রচুর আমিষ, শর্করা এবং অন্যান্য পুষ্টি

উপাদান থাকে। যেহেতু প্রারম্ভিক দুধ পরিমাণে অনেক বেশি

থাকে, তাই শিশু এখান থেকে তার প্রয়োজনীয় পানি পেয়ে

যায়, তাই গরমের দিনেও ৬ মাস বয়স পর্যন্ত শিশুর অন্য

পানীয়ের প্রয়োজন হয় না। যদি তাকে অন্য পানীয় খাওয়ানো

হয় তবে তার তৃষ্ণা মিটে যাবে এবং সে মায়ের দুধ খাওয়া

কমিয়ে দিবে।

শেষের দুধ: দুধ খাওয়ানোর শেষ দিকে যে দুধ তৈরি হয় শেষের দুধ দেখতে সাদা হয় কারণ এতে অনেক চর্বি থাকে।

তাকে বা শেষের দুধ বলে। এই চর্বি মায়ের দুধের বেশির ভাগ শক্তি সরবরাহ করে। যা

শিশুর ওজন বৃদ্ধিতে প্রধান ভূমিকা রাখে। এই জন্যই শিশুকে

দুধ খাওয়ানোর সময় তাড়াতাড়ি ছাড়িয়ে না নিয়ে পরিপূর্ণভাবে

একটি দুধ খাওয়ানো শেষ করতে হবে যাতে সে সবটুকু চর্বি

পায়।

x