মাইন বিস্ফোরণে উড়ে গেল আ. লীগ নেতার দুই পা

নাইক্ষ্যংছড়ি প্রতিনিধি

রবিবার , ৪ ফেব্রুয়ারি, ২০১৮ at ৪:০৩ পূর্বাহ্ণ
409

বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে স্থলমাইন বিস্ফোরণে আবারো এক বাংলাদেশি গুরুতর আহত হয়েছেন। গতকাল শনিবার সকাল ১১টার দিকে উপজেলা সদরের চাকঢালা গ্রামের চেরারমাঠ সীমান্তের ৪৩নং পিলার এলাকায় এ ঘটনা ঘটে।

আহত বাংলাদেশি হলেন উপজেলা সদরের চাকঢালা ৬নং ওয়ার্ডের জাকের হোসনের পুত্র বদিউর রহমান (৪৫)। তিনি ৬নং ওয়ার্ড আওয়ামী লীগের সাংগঠনিক সম্পাদক। মাইন বিস্ফোরণে তার দু’পা উড়ে যায় বলে জানান স্থানীয় বাসিন্দা মাওলানা শামশুল আলম।

স্থানীয়রা জানান, শনিবার সকাল ১১ টা দিকে নিজ ঘরের গরু আনতে গিয়ে তিনি মাইন বিস্ফোরণের শিকার হন। ঘটনার সত্যতা নিশ্চিত করে নাইক্ষ্যংছড়ি সদর ইউপি চেয়ারম্যান তসলিম ইকবাল চৌধুরী বলেনগুরুতর আহত বদিউর রহমানকে ঘটনাস্থল থেকে উদ্ধার করে কক্সবাজার ফুয়াদআল খতিব হাসপাতালে প্রেরণ করা হয়েছে। বর্তমানে তার অবস্থা আশংকাজনক।

উল্লেখ্য, গত ৩ মাসে নাইক্ষ্যংছড়ি সীমান্তে মাইন বিস্ফোরণে ৩ রোহিঙ্গা নাগরিক ও ১ বাংলাদেশি নিহত হয়েছিলেন। এর আগে এ পয়েন্টে আরো ২ জন নিহত সহ অনেকে গুরতর আহত হয়ে পঙ্গুত্ব বরণ করে অমানবিক দিন যাপন করছেন। সীমান্তের লোকজন জানান, মিয়ানমারের সীমান্ত রক্ষী বিজিপি পূর্বেব বসানো মাইন ছাড়াও আবারো নতুন করে মাইন বসাচ্ছে কাজ নিজেদের অংশে। সীমান্তের দীর্ঘ প্রায় ৭০ কিলোমিটার নোম্যানস ল্যান্ডেও তারা স্থল মাইন বসাতে তৎপর আর্ন্তজাতিক আইন লংঘন করে। আর এ কারনে বার বার এ দুর্ঘটনা ঘটে যাচ্ছে বার বার মিয়ানমার সীমান্তে।

এই বিষয়ে নাইক্ষ্যংছড়িস্থ ৩১ বিজিবি অধিনায়ক ও জোন কমান্ডার লে. কর্নেল আনোয়ারুল আজিম বলেন, মিয়ানমার বাহিনী সীমান্তে সব সময় মাইন বসিয়ে রাখে। এখনও রেখেছে। বিষয়টি সকলে জানে। বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ বিজিবিও এ বিষয়টি সীমান্তের লোকজনকে বার বার সর্তক করে দিয়ে আসছে। এরপরও লোকজন সীমান্তে গিয়ে দুর্ঘটনার শিকার হচ্ছে।

x