মহান স্বাধীনতা দিবস নিয়ে ‘দায়সারা’ আয়োজন

আয়শা আদৃতা

বৃহস্পতিবার , ২৮ মার্চ, ২০১৯ at ১০:০৪ পূর্বাহ্ণ
34

মুক্তিযুদ্ধ বিষয়ক আবৃত্তি আর আলোচনা অনুষ্ঠান প্রচারিত হয়েছে মহান স্বাধীনতা দিবস উপলক্ষে। প্রতিবছরই প্রায় একইরকম চিন্তাভাবনার ওপর নির্ভর করে চলেছে অনুষ্ঠান নির্মাণ ও প্রচার। এসব অনুষ্ঠানকে ‘দায়সারা’ গোছের আয়োজন বললেও খুব বেশি বলা হবে না। দেশের জাতীয় দিবস নিয়ে এমন ভাবনা-চিন্তাহীন আয়োজন মূলত সংশ্লিষ্টদের দেশপ্রেমকেও প্রশ্নবিদ্ধ করে। মুক্তিযুদ্ধ নিয়ে এত বছরেও একটি নাটক নির্মাণ করতে না পারাকে শুধু ব্যর্থতাই নয়, চরম অবহেলাও বটে। নাটক তো নেইই, চট্টগ্রামে মুক্তিযুদ্ধের স্মৃতি নিয়ে কোনো প্রামাণ্যচিত্রও নেই। বলতে গেলে, আবৃত্তি, গান, নাচ- আলোচনা অনুষ্ঠানের মতো সাধারণ ভাবনার অনুষ্ঠান ছাড়া গবেষণাধর্মী কোনো অনুষ্ঠান নির্মাণে বিটিভি চট্টগ্রাম কেন্দ্রের কোনো আগ্রহ, উদ্যোগ পরিলক্ষিত হয় না।
এবছর স্বাধীনতা পদক পেয়েছেন দৈনিক আজাদী সম্পাদক অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদ। এ উপলক্ষে ২৫ মার্চ রাতে প্রচারিত হয় একটি বিশেষ আলোচনা অনুষ্ঠান। অনুষ্ঠানে অতিথি ছিলেন, চট্টগ্রাম প্রেস ক্লাবের সাবেক সভাপতি আবু সুফিয়ান, অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদের সন্তান মোহাম্মদ জহিরসহ আরো একজন। কামরুল হাসান বাদলের উপস্থাপনায় অনুষ্ঠানে অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদের বর্ণাঢ্য জীবনের নানা দিক ওঠে আসে। তবে, একজন দর্শক যিনি অধ্যাপক মোহাম্মদ খালেদকে চিনেন না, তার জন্য এ অনুষ্ঠান দেখে খুব বেশি কিছু বোঝার অবকাশ নেই। আরো ব্যাপক ভিত্তিতে অধ্যাপক খালেদের কর্মময় জীবন নিয়ে আলোচনা করা যেত। এ অনুষ্ঠানটি প্রচারের পরপরই প্রচারিত হয় একই উপস্থাপকের আরেকটি অনুষ্ঠান শুদ্ধাচার। একইদিনে একই উপস্থাপকের একাধিক অনুষ্ঠান প্রচার নিয়ে আগেও একাধিকবার আলোকপাত করা হয়েছে।
গত পর্বের আলোচনায় অনুষ্ঠানে প্রযুক্তির ব্যবহার নিয়ে আলোচনা করা হয়েছে। গতকাল বুধবার সাহিত্যে নারী অনুষ্ঠান দেখে মনে হয়েছে, তার কিছুটা হলেও প্রয়োগ হয়েছে। অনুষ্ঠানের টাইটেলে কম্পিউটার গ্রাফিক্সের কাজ দেখা গেছে। প্রথম কাজ হিসেবে সাদামাটা হলেও বিষয়টি নিয়মিত হলে এবং গুরুত্ব দেয়া হলে অসাধারণ অনেক ভাবনা বেরিয়ে আসতে পারে। আগে এ অনুষ্ঠানটি যেখানে সাদামাটাভাবে শুরু হতো, সেখানে গতকালের পর্বের টাইটেলে দেখা গেছে, খ্যাতিমান সাহিত্যিকদের নাম ও ছবি সংবলিত অ্যনিমেশন। এই অ্যানিমেশনে রবীন্দ্রনাথ-নজরুল যেমন ছিলেন, তেমন ছিলেন শরৎচন্দ্র, জহির রায়হান, হুমায়ূন আহমেদ, ইমদাদুল হক মিলন, সৈয়দ শামসুল হকরাও। এই অ্যানিমেশন দেখেও অনেক দর্শক আগ্রহী হতে পারেন। গতকালের সাহিত্যে নারী অনুষ্ঠানে অতিথিরা আলোচনা করেন উইলিয়াম শেক্সপিয়রের নাটক ‘অ্যান্টনি অ্যান্ড ক্লিওপেট্রা’ নিয়ে। ড. আনোয়ারা আলমের উপস্থাপনায় আলোচক ছিলেন ড. উদিতি দাশ ও মুজিব রাহমান। আলোচনার ফাঁকে ফাঁকে নাটকটির বিভিন্ন ভিডিওচিত্রও দেখানো হয়।

x