মহাজোটের কাছে ইসলামিক ফ্রন্ট চায় দুটি আসন

অন্যথায় ‘একলা চলো’ নীতিতে নির্বাচন

সবুর শুভ

বৃহস্পতিবার , ৬ ডিসেম্বর, ২০১৮ at ৫:৩২ পূর্বাহ্ণ
937

মহাজোটের কাছে অন্তত দুটি আসনে মনোনয়ন চায় ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ। মহাজোটের তরফে চূড়ান্ত ঘোষণার জন্য ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত সময়সীমা। কারণ ৯ ডিসেম্বর মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের শেষ দিন। কাঙ্ক্ষিত সিদ্ধান্ত না আসলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচনে ‘একলা চলো’ নীতিতে এগুবে দলটি। এমন তথ্যই দিলেন ইসলামিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় মহাসচিব অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদিন জুবাইর।
দলটির কাছ থেকে পাওয়া তথ্য অনুযায়ী, ইসলামিক ফ্রন্টের পক্ষ থেকে চট্টগ্রামে ১২টি আসনে মনোনয়ন জমা দেন মনোনয়ন প্রত্যাশীরা। তাছাড়া দেশে ২৯টি আসনে দলটির প্রার্থীরা মনোনয়ন পত্র জমা দিয়েছেন। সবাই বৈধও হয়েছেন। চট্টগ্রামের প্রতিটি আসনে ১৫ থেকে ২০ হাজার ভোটার রয়েছে বলে জানিয়েছেন ইসলামিক ফ্রন্ট নগর শাখার সাংগঠনিক সম্পাদক এ এম মঈন উদ্দিন চৌধুরী। তাই চট্টগ্রামে একটি আসনে ইসলামিক ফ্রন্টের মনোনয়ন নিশ্চিত করলে বাকী ১৫টি আসনে আমাদের সব ভোট যাবে আওয়ামী লীগের নেতৃত্বাধীন মহাজোটের বাক্সে। চাঁদপুর, সিলেট, হবিগঞ্জ, লক্ষ্মীপুরসহ বেশ কিছু জেলায় দলটির সাংগঠনিক অবস্থা শক্ত বলেও জানালেন এ নেতা।
এএম মঈন উদ্দিন চৌধুরী বলেন, আসন্ন নির্বাচনে মহাজোটের শরিক দল হিসেবে আমাদেরকে দু’টি আসন দেওয়ার ব্যাপারে মহাজোটের শীর্ষ নেতৃত্ব থেকে আশ্বাস দেয়া হয়েছে। ইসলামিক ফ্রন্টও সেই আশ্বাসের বাস্তব প্রতিফলন দেখার অপেক্ষায় থাকবে আগামী ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত। কারণ ৯ ডিসেম্বর প্রার্থীদের মনোনয়নপত্র প্রত্যাহারের দিন। দলটির পক্ষ থেকে মহাজোটের সর্বোচ্চ নেতৃত্বের সাথে নিয়মিত যোগাযোগ রক্ষা করা হচ্ছে বলে জানান আল্লামা জুবাইর।
তথ্য অনুযায়ী, মহাজোটের কাছে ইসলামিক ফ্রন্ট বাংলাদেশ এর প্রত্যাশিত চাঁদপুর-৫ (শহরাস্তি) ও নারায়নগঞ্জ-৫ দুই আসনের মধ্যে যেকোন একটি। আর চট্টগ্রাম-১১ (বন্দর-পতেঙ্গা) ও চট্টগ্রাম-৪ (সীতাকুণ্ড) এ দুই আসনের যেকোন একটি। ভোটযুদ্ধে থাকার জন্য দলের চেয়ারম্যান আল্লামা বাহাদুর শাহ মুজাদ্দেদীর চাঁদপুর-৫ (শাহরাস্তি) ও নারায়নগঞ্জ-৫ আসনে মনোনয়ন ফরম নিয়েছেন। মহাসচিব অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদিন জুবাইর বন্দর-পতেঙ্গা ও সীতাকুণ্ড সংসদীয় এলাকা থেকে মনোনয়নপত্র নিয়েছেন। মহাজোটে থেকে নির্বাচন করার ব্যাপারে আশাবাদী ইসলামিক ফ্রন্ট নেতারা জানিয়েছেন, ইসলামী দল হিসাবে প্রতিষ্ঠার পর থেকেই এ দলের অবস্থান জঙ্গিবাদ, মানুষ হত্যা ও আগুন সন্ত্রাসের বিরুদ্ধে। ২০০৮ সালের নবম জাতীয় সংসদ নির্বাচনের আগে থেকেই মহাজোটের সঙ্গে একই ধারায় আন্দোলন কর্মসূচি পালন করে আসছে দলটি। নবম সংসদ নির্বাচনেও মহাজোটের পক্ষ থেকে দুটি আসন দেওয়ার কথা ছিল। নানা নির্বাচনী মেরুকরণে তা পাওয়া যায়নি। এবার নির্বাচনী আলোচনা শুরু হওয়ার পর থেকেই দেশে অন্তত দুই আসনে মনোনয়ন পাওয়ার জন্য তৎপরতা চালাতে থাকেন শীর্ষ নেতৃবৃন্দ। সেই তৎপরতার ফল পাওয়ার জন্য আগামী ৮ ডিসেম্বর পর্যন্ত অপেক্ষা করতে চান তাঁরা। এ বিষয়ে ইসলামিক ফ্রন্টের কেন্দ্রীয় মহাসচিব অধ্যক্ষ আল্লামা জয়নুল আবেদিন জুবাইর বলেন, ইসলামিক ফ্রন্ট জঙ্গিবাদ ও আগুন সন্ত্রাসকে সমর্থন না করার সিদ্ধান্তের ব্যাপারে পরিস্কার অবস্থান নিয়ে আছে। আমরা দীর্ঘদিন ধরে মহাজোটে এক সঙ্গে আন্দোলন সংগ্রাম করে আসছি।
এ এম মঈন উদ্দিন চৌধুরী বলেন, দেশের ৪৪টি জেলায় আমাদের পূর্ণাঙ্গ কমিটি আছে। ইতোমধ্যে আমরা প্রধানমন্ত্রী, ১৪ দলীয় জোটের মুখপাত্র এবং আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদকের সঙ্গে দফায় দফায় বৈঠক করেছি। সেই ধারাবাহিকতায় ইসলামিক ফ্রন্টকে দু’টি আসন দেওয়ার নীতিগত সিদ্ধান্ত আছে। এ সিদ্ধান্তের বাস্তবায়ন দেখতে চাই। তিনি আরো বলেন, কাঙ্ক্ষিত আসনের ব্যাপারে সমঝোতা না হলে নির্বাচনে আমরা ‘একলা চলো’ নীতিতে এগিয়ে যাবো। আমাদের প্রার্থীরা দলীয়ভাবেই নির্বাচনের মাঠে থাকবে।

x