মরুর বুকে এশিয়া কাপ শুরু আজ

প্রথম ম্যাচে টাইগারদের সামনে লংকান সিংহ

নজরুল ইসলাম

শনিবার , ১৫ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ at ৪:০১ পূর্বাহ্ণ
33

বিশ্বকাপ ক্রিকেটের সেরা দলগুলো এশিয়ার। ভারত, পাকিস্তান, শ্রীলংকাতো রয়েছেই। বাংলাদেশ এখন বিশ্ব ক্রিকেটে অন্যতম পরাশক্তি। সে সাথে উঠে আসছে আফগানিস্তানও। আর এই সব বিশ্বসেরা শক্তির সমাবেশ ঘটতে যাচ্ছে মরুর দেশ আরব আমিরাতে। এশিয়ার ক্রিকেট পরাশক্তির শ্রেষ্ঠত্বের মুকুট পড়তে আজ থেকে মাঠে নামছে এশিয়ার ছয় দেশ। ভারত এমনিতেই এই অঞ্চলে সেরা। পাকিস্তানও দুর্দমনীয়। লংকানরাও কম যায়না। ৫ বার এশিয়া কাপের ট্রফি তাদের ঘরে। কিন্তু টাইগাররা গত তিন আসরের দুটিতেই ফাইনাল খেলেছে। তাই এবারে আর একক কারো আধিপত্য থাকবে না এশিয়া কাপে। লড়াই করতে প্রস্তুত সব দলই। টুর্নামেন্টের ১৪তম আসরের পর্দা উঠছে আজ। যেখানে প্রথম দিনেই মাঠে নামছে বাংলাদেশ। প্রতিপক্ষ চেনা পরিচিত শ্রীলংকা।

ছয় জাতির এই এশিয়া কাপে পাঁচটি টেস্ট খেলুড়ে দেশ। একমাত্র হংকং এসেছে বাছাই পর্ব খেলে। তবে এশিয়া কাপের এবারের আসরে বাংলাদেশ রয়েছে ডেথ গ্রুপে। যেখাবে মাশরাফিদের সঙ্গী শ্রীলংকার পাশাপাশি আফগানিস্তান। এশিয়ার সেরা হওয়ার মঞ্চ হলেও এই টুর্নামেন্ট বিশ্বকাপ প্রস্তুতিরও। কারণ ২০১৯ সালের বিশ্বকাপের আগে এরকম ৫টি বিশ্বকাপের দল একসাথে কোন টুর্নামেন্ট খেলার সুযোগ পাবে না। তাই নিজেদের শক্তি পরীক্ষার জায়গাও এই এশিয়া কাপ। এশিয়ার দলগুলোর কাছে বিশ্বকাপের মতই গুরুত্বপূর্ণ এশিয়া কাপ। এখানেই রয়েছে চারবার বিশ্বকাপ জেতা তিনটি দল। টুর্নামেন্টের গত আসরটি ছিলো টি২০ ফরম্যাটে। এশিয়ার কাপের ইতিহাসেই সেবারই প্রথম টি২০ ফরম্যাটে খেলা অনুষ্ঠিত হয়। বাংলাদেশের মাটিতে স্বাগতিকদের হারিয়ে সে আসরের শিরোপা জিতে ভারত। তাই চ্যাম্পিয়নের তকমা গায়ে মেখে ১৪তম আসরে খেলতে নামবে টিম ইন্ডিয়া।

তবে সামপ্রতিক সময়ে ব্যর্থতা ভারতের নিত্য সঙ্গী। ইংল্যান্ডের মাটিতে পাঁচ ম্যাচের সিরিজে ৪১ ব্যবধানে হারে বিরাট কোহলির দল। টেস্ট সিরিজের আগে ইংল্যান্ডের বিপক্ষে তিন ম্যাচের ওয়ানডে সিরিজও হেরেছিল ভারত। এমন নড়বড়ে অবস্থায় অধিনায়ক বিরাট কোহলিকে ছাড়াই খেলতে নামছে ভারত। তারপরও তাদের টুর্নামেন্টের শিরোপা জয়ের সামর্থ রয়েছে বলে মত ক্রিকেট সংশ্লিষ্টদের। অপরদিকে একেবারে পরিষ্কার ফেভারিটের তকমা নিয়ে এমিয়া কাপ খেলতে নামছে পাকিস্তান। সেই আইসিসি চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফি জয়ের পর থেকে একেবারে অপ্রতিরোধ্য গতিতে এগিয়ে যাচ্ছে পাকিস্তান। তাই নিজেদের চেনা কন্ডিশনে পাকিস্তানকে ফেভারিটের তকমা দিচ্ছে অনেকেই।

কিন্তু আজকের ম্যাচের দুই প্রতিপক্ষ বাংলাদেশ এবং শ্রীলংকা কোন অবস্থায় রয়েছে সেটা বোধহয় বলার অপেক্ষা রাখেনা। সম্প্রতি ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে দারুন একটি সিরিজ শেষ করে আরব আমিরাতে গেছে মাশরাফিরা। আর লংকানরাও ফর্মের হিসেবে পিছিয়ে নেই। তবে লংকানদের বাড়তি সুবিধা হচ্ছে হাথুরুসিংহে নামক ক্রিকেট ডিকশনারী। এই একজন মানুষই পাল্টে দিচ্ছে লংকানদের। তাই এই দলটিকে নিয়ে হেলা করার কোন সুযোগ নাই। যদিও এশিয়া কাপ শুরুর আগে লংকানদের দুই গুরুত্বপূর্ণ ক্রিকেটার ছিটকে গেছেন দল থেকে। তারপরও হাল ছাড়তে নারাজ লংকানরা। সবশেষ ২০১৪ সালে শিরোপা জেতা লংকানরা এবারেও চাইবে আবার ট্রফিটা উচিয়ে ধরতে। আর গত তিন আসরের দুটিতে ফাইনালে খেলা বাংলাদেশ আগের দুইবারের মত আর এবারে খালি হাতে ফিরতে চায় না। দু দলের চাওয়া যখন এক বিন্দুতে তখন লড়াইটা সেয়ানে সেয়ানে হতে বাধ্য।

দলকে দারুনভাবে নেতৃত্ব দেওয়া মাশরাফি দেশ ছাড়ার আগে যে লক্ষ্যের কথা বলেছিলেন গতকাল আরো একবার সে লক্ষ্যের কথাটা স্মরণ করিয়ে দিলেন। আর সে লক্ষ্যটা অজানা নয় কারো। লক্ষ্য একটাই, তৃতীয়বার যেন ফিরতে না হয় খালি হাতে। কন্ডিশন, গরম, কুয়াশা, উইকেট অনেক কিছুর কথাই উঠে আসছে আলোচনায়। তবে সে সবকে ছাপিয়ে মাশরাফিদের ভাবনা ভাল ক্রিকেট। সেরা ক্রিকেট। আর সেটিই লক্ষ্য পুরনের মুল মন্ত্র। আর সে মুল মন্ত্রে মাশরাফি উদ্বুদ্ধ করছেন পুরো দলকে। জয়ের মন্ত্রটা যেন কানে ঢুকিয়ে দেওয়ার চেষ্টা করছেন টাইগার দলপতি। ওয়েস্ট ইন্ডিজের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে যেন বলতে চাইলেন ইচ্ছা থাকিলে উপাই হয়। যদিও এশিয়া কাপে পরিসংখ্যানটা খুব সুখকর নয় বাংলাদেশের। ৪২ ম্যাচে অংশ নিয়ে জয় মাত্র ৭টি। হারের স্বাদ নিয়েছে ৩৫টি ম্যাচে। যেখানে ৫২ ম্যাচে অংশ নিয়ে লংকানদের জয় ৩৫টি। হেরেছে ১৭টি ম্যাচ। তবে রেকর্ডকে বৃদ্ধাঙ্গুলি দেখাতে তৈরি বাংলাদেশ। কারণ অতীতের চেয়ে এখন অনেক পরিণত বাংলাদেশ। এখন বলে কয়ে প্রতিপক্ষকে হারায় বাংলাদেশ।

x