মধু পূর্ণিমা

ছবি: অনুপম বড়ুয়া

সোমবার , ২৪ সেপ্টেম্বর, ২০১৮ at ১১:৫২ অপরাহ্ণ
175

বৌদ্ধ ধর্মের প্রবর্তক গৌতম বুদ্ধ দশম বর্ষাবাস পালন করেন পারিলেয়্য বনে। সেখানে বর্ষা যাপনকালে হস্তীরাজ প্রতিদিন তাঁর সেবা করত, বনের ফলমূল সংগ্রহ করে তাঁকে দান করত। এসময় একটি বানর হস্তীরাজ কর্তৃক বুদ্ধকে সেবা করতে দেখে তারও বুদ্ধকে পূজা করার ইচ্ছা জাগে। বানরটি ভাদ্র পূর্ণিমাতে একটি মৌচাক সংগ্রহ করে বুদ্ধকে দান করে। মৌচাকে মৌমাছির ছানা ও ডিম থাকায় বুদ্ধ প্রথমে মধু পান করেননি। বানরটি তা বুঝতে পেরে মৌচাকটি নিয়ে ছানা ও ডিম পরিষ্কার করে আবার বুদ্ধকে দান করলে এবার বুদ্ধ মধু পান করেন।মধুপান করতে দেখে বানর আনন্দে আত্মহারা হয়ে গাছের এক শাখা হতে আরেক শাখায় লাফাতে গিয়ে অসাবধানতাবশত গাছের শাখা ভেঙ্গে মাটিতে পড়ে মারা যায়।

বুদ্ধকে মধুদান এবং বুদ্ধের প্রতি প্রসন্নচিত্তে মৃত্যুবরণ করার পর বানর তাবতিংশ স্বর্গে ত্রিশ যোজন বিস্তৃত কনক বিমান ও সহস্র অপ্সরা লাভ করে। পারিলেয়্য বনে হস্তীরাজ কর্তৃক বুদ্ধের সেবাপ্রাপ্তি ও বানরের মধুদানের কারণে ভাদ্র পূর্ণিমা বৌদ্ধদের কাছে স্মরণীয় ও পুণ্যময় একটি দিন। দিনটি মধু পূর্ণিমা নামেই বেশি পরিচিত। আজ সোমবার (২৪ সেপ্টেম্বর) ছিল মধূ পূর্ণিমা।

এদিন বৌদ্ধ সম্প্রদায় বুদ্ধ পূজা, সীবলী পূজা, শীল গ্রহণ, মধু দান, ভিক্ষুসংঘকে পিণ্ডদানসহ নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠান পালন করে থাকে। ও আয়োজন করা হয় নানা ধর্মীয় অনুষ্ঠানের।

নগরীর নন্দনকাননের চট্টগ্রাম বৌদ্ধ বিহার থেকে অনুপম বড়ুয়া’র তোলা ছবিতে দেখা যাচ্ছে বুদ্ধ পূজা ও ভিক্ষুসংঘকে মধুদান (ইনসেটে)।

x