মধুমাসের ফল

সোমবার , ১ জুলাই, ২০১৯ at ১০:৫৫ পূর্বাহ্ণ
66

স্বাস্থ্য, পুষ্টি, রোগ প্রতিরোধ ও খাদ্য চাহিদা পূরণে ফলের ভূমিকা অপরিসীম। জ্যৈষ্ঠ মাসের শুরু থেকে আষাঢ় মাস জুড়ে সুস্বাদু দেশীয় ফলের অধিক সমারোহ থাকায় এখন আমাদের দেশে চলছে মধুমাস। দেশে বছরজুড়ে কমবেশি ফল পাওয়া গেলেও সবচেয়ে বেশি পাওয়া যায় বৈশাখ, জ্যৈষ্ঠ ও আষাঢ় মাসে। যেমন আম, কাঁঠাল, লিচু, আনারস, কালো জাম, খুদিজাম, জামরুল, গোলাপ জাম, কঁচি তাল। এছাড়া মধুমাসে আরো পাওয়া যায় পেঁপে, আমড়া, পেয়ারা, লেবু, আমলকি ইত্যাদি। এসব দেশীয় ফলে এখন বাজার সয়লাব। আবার দেশীয় এসব বিভিন্ন প্রজাতির ফলের স্বাদেও রয়েছে ভিন্নতা। মধুমাসে দেশী ফলের উৎপাদন অনেক বেড়ে যাওয়ায় এসব ফল কমবেশি সবার ক্রয় ক্ষমতার মধ্যে থাকে।
বর্তমানে চন্দনাইশের স্থানীয় সবগুলো হাট-বাজারে এখন জমে উঠেছে মৌসুমী মধুফলের কেনা বেচা। প্রতিদিন দোকানীরা নানা জাতের ফলের পসরা নিয়ে বসেন বাজারে। সকাল থেকেই ক্রেতা বিক্রেতাদের পদভারে মুখরিত থাকে হাটবাজারগুলো। মধুমাসের ফল আমাদের শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতাও বাড়ায়। আদিম যুগের মানুষ ফল খেয়েই জীবন ধারণ করত। এ সমস্ত দেশীয় ফলে প্রচুর পরিমাণ ভিটামিন ‘এ’, ভিটামিন ‘বি-১’, ‘বি-২’ ভিটামিন ‘সি’ প্রচুর পরিমাণ ক্যালসিয়াম, আয়রণ, ফসফরাস, শর্করা পাওয়া যায়। কথায় আছে বছরের ফল একটু হলেও খেতে হয়। মধুমাসের ফলের উপর নির্মিত ফটো ফিচারের ছবি পরিচিতি-
১. মধুমাসের অন্যতম পাকা আম বিক্রির জন্য বসেছেন এক বিক্রেতা। ২. বিভিন্ন স্থান থেকে কাঁঠাল সংগ্রহ করে স্তূপ করে রাখা হয়েছে। ৩. রসে ভরা আনারস বিক্রি করছে এক বিক্রেতা। ৪. বাজারে ক্রেতাদের দৃষ্টি আকর্ষণ করছে রসে ভরা কালো, লাল ও সাদা জাম। মধুমাসের ফলের বাজারে ঘুরে ছবিগুলো তুলে ফটো ফিচারটি উপস্থাপন করেছেন আজাদীর চন্দনাইশ প্রতিনিধি মুহাম্মদ এরশাদ

x